বাড়বে উত্তুরে হাওয়ার দাপট, শহর এবং গ্রামে হেমন্তের আমেজ, জাঁকিয়ে শীতের ঢের দেরী

0

Last Updated on October 28, 2022 11:09 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। ঘূর্ণিঝড়ের আবডালে কার্যত চুপিসারেই এসেছে হেমন্ত। বর্ষা বিদায়ের শেষ পর্বেই সাগরে ঘনিয়ে ওঠে ঘূর্ণিঝড়। আর, সেই ফাঁকেই রাজ্যে প্রবেশ করেছে হেমন্ত। শহর থেকে গ্রাম, সব জায়গাতেই তার আগমন স্পষ্ট। তাপমাত্রার অস্থায়ী গ্রাফ বারংবার প্রমাণ করেছে তার আধিপত্য বিস্তারের কথা। তবে, জাঁকিয়ে শীতের জন্যে আর কতদিনের অপেক্ষা? আপাতত এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে শহরবাসীর মনে।

এই প্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদদের বক্তব্য, এখনই নির্দিষ্ট করে তারিখ বা দিনক্ষণ বলা সম্ভব নয়। তবে, তাপমাত্রা আরও কমার জন্যে কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। শুধু তাই নয়, তাপমাত্রা কমলেই হবে না, সেই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নির্দিষ্ট সময়ের জন্যে স্থায়ী হলে তবেই বলা যাবে শহরে শীতের প্রবেশ ঘটেছে। এখন শহরের তাপমাত্রা ২৩-২৪ ডিগ্রির আশেপাশেই ঘোরাফেরা করবে। তারপর, ধীরে ধীরে নামতে শুরু করবে।

আবহাওয়াবিদরা আরও জানিয়েছেন, আগামী কয়েকদিন আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে বঙ্গে। বৃষ্টির সম্ভাবনা ক্ষীণ। উত্তুরে হাওয়ার দাপট ধীরে ধীরে বাড়বে। তাঁরা আরও জানিয়েছেন, জেলায় শীতের আমেজ থাকলেও কলকাতায় জাঁকিয়ে শীত পড়তে ডিসেম্বর। অন্যদিকে, শহরের অনেক আগে থেকেই জেলাতে নামতে শুরু করেছে তাপমাত্রা। বেশ কিছু জেলাতে তাপমাত্রা রয়েছে ২০ ডিগ্রির আশেপাশে। ফলে, ইতিমধ্যেই শীতের আমেজকে সম্পূর্ণভাবে উপভোগ করছেন জেলার মানুষ।

রাতের দিকে কিংবা ভোরের বেলায় কমছে তাপমাত্রা। উল্লেখ্য, সিত্রং শক্তি বাড়াতে শুরু করলেই নিশ্চিহ্ন হয় মৌসুমী বায়ু বিদায় বার্তা। যদিও, চলতি মরশুমে ঘাটতি বজায় রেখেই রাজ্য থেকে পাততাড়ি গুটিয়েছে বর্ষা। কিন্তু, সেই সবই ঢাকা পড়ে আগত বিভীষিকার ত্রাসে। মুখ ঘুরিয়ে বাংলাদেশ গিয়েছে ঘূর্ণিঝড়। রাজ্যের ঘূর্ণিঝড়ের পরোক্ষ প্রভাবে কালীপুজো ঝড়বৃষ্টি চলে রাজ্যে। উপকূলের জেলায় কমলা সতর্কতা জারি করে আবহাওয়া দফতর।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here