নন্দীগ্রাম মামলায় সুপ্রিমকোর্টে শুভেন্দুর আর্জি খারিজ, মামলা সরানোর প্রশ্নই নেই, হাই কোর্টে যাওয়ার নির্দেশ

0

Last Updated on November 15, 2021 11:58 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। নন্দীগ্রাম মামলাতে অস্বস্তি বাড়ল শুভেন্দু অধিকারীর। কলকাতা হাইকোর্টের শুনানিতে আস্থা নেই বলে দাবি করে ভিন রাজ্যে মামলা সরানোর জন্য সুপ্রিম কোর্টে ছুটে গিয়েছিলেন ভাজপা নেতা শুভেন্দু। কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টে যখন মামলার শুনানি চলছে সেই সময় যথেষ্ট কারণ না দেখিয়েই শুভেন্দুর আবদারে পাত্তা না দিয়ে ফের কলকাতা হাইকোর্টে ফেরত পাঠালো দেশের সর্বোচ্চ আদালত। সুপ্রিম কোর্টে শুভেন্দুর আবদার খারিজের কিছুক্ষণের মধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি শুরু হওয়ার পরেই বিচারপতি সম্পা সরকার শুভেন্দুর গাছে লিখিত জবাব দিহি চাইলেন কেন কলকাতা হাইকোর্টের শুনানিতে আস্থা নেই সেই বিষয়। আগামী ১লা ডিসেম্বর ফের নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। তার আগেই ২৯ নভেম্বরের মধ্যে এই বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারীর বক্তব্য লিখিত আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শম্পা সরকারের। সেই লিখিত আবেদন দেখার পরেই এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত বলে এদিন বিচারপতি তাঁর পর্যবেক্ষণে জানায়।
আজ সকালে পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী কলকাতা হাইকোর্টে মামলার শুনানি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তার আগেই সময় চেয়ে আবেদন জানান শুভেন্দু অধিকারী। আইনজীবী মারফৎ এই আবেদন জানান। কলকাতা হাইকোর্টে শুভেন্দুর আইনজীবী বলেন, সুপ্রিম কোর্টে নন্দীগ্রাম সংক্রান্ত একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। সেই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত পিছানো হোক হাইকোর্টে মামলার শুনানি। মামলার শুনানিতে আদালত পুরো বিষয়টি দেখে।

- Advertisement -

তবে শুনানি পিছিয়ে দেওয়ার আবেদনে কিছুটা ক্ষুব্ধ হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আইনজীবী। কেন পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেই বিষয়ে আদালতের কাছে যুক্তি কি সে বিষয়ে প্রশ্ন তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আইনজীবী। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত শুভেন্দুকে লিখিত আকারে কেন কলকাতা হাইকোর্টের উপর অনাস্থা সে বিষয়ে লিখিত আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশ।
কলকাতা হাইকোর্ট থেকে নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি ভিন রাজ্যের সরানোর আবেদন জানিয়ে শুভেন্দুর দায়ের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ সুপ্রিমকোর্টে শুনানি শুরু হওয়ার পরেই সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট ভাষায় বলে, কলকাতা হাইকোর্টের মত একটি সাংবিধানিক সংস্থার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ কিভাবে তুলছেন আপনারা? সেইসঙ্গে শুভেন্দুর তরফে কলকাতা হাইকোর্টের শুনানি স্থগিত করার আবেদন খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

হাইকোর্টের শুনানিতে শুভেন্দু অধিকারীর আইনজীবী জয়দীপ কর বলেন, আরও একমাসের জন্য এই মামলার শুনানির উপর স্থগিতাদেশ জারি করুক আদালত৷ সুপ্রিম কোর্টে মামলার শুনানি দু’সপ্তাহের জন্য পিছিয়ে দেওয়া দেওয়া হয়েছে৷ সেখানে কী হয়, আগে সেটা দেখা যাক৷ আর সেই সময়ের মধ্যেই শুভেন্দু অধিকারী আদালতে তাঁর লিখিত বক্তব্য পেশ করবেন।
কিন্তু রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল এর বিরোধিতা করেন ৷ তিনি বলেন, ছ’মাসের মধ্যে নির্বাচন সংক্রান্ত মামলার নিস্পত্তি করতে হয়৷ কিন্তু, সংশ্লিষ্ট মামলায় শুভেন্দু অধিকারী বারবার বাড়তি সময় চাইছেন। আগেও তিনি বক্তব্য পেশের জন্য সময় চেয়েছিলেন। গত ১২ অগাস্ট মামলার শুনানি হয়েছিল৷ এক্ষেত্রে আদালতের আর তাঁকে সময় দেওয়া উচিত নয়। এরপর অবশ্য দু’পক্ষের সম্মতির ভিত্তিতেই বিচারপতি শম্পা সরকার জানান, আগামী ২৯ নভেম্বরের মধ্যে শুভেন্দু অধিকারীকে তাঁর বক্তব্য লিখিত আকারে জমা দিতে হবে৷ মামলার পরবর্তী শুনানি হবে আগামী ১ ডিসেম্বর।
প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর জয়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন মমতা। কিন্তু ফলাফল পুনর্গণনার দাবি নিয়ে করা এই মামলার শুনানি ভাজপা নেতা কৌশিক চন্দের এজলাসে ওঠায় তা নিয়ে প্রতিবাদ জানায় তৃণমূল। এর কারণ হিসেবে দাবি করা হয়, কৌশিক চন্দকে একাধিক সময় ভাজপার নানা অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছে। তাঁর সঙ্গে ভাজপার ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ তুলে মমতার তরফে আবেদন জানানো হয় যেন এই মামলাটি অন্য বিচারপতির বেঞ্চে সরিয়ে দেওয়া হয়। বহু বাক বিতণ্ডার পর অবশেষে মামলাটি ছেড়ে দেন বিচারপতি কৌশিক চন্দ।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here