সংক্রমণ গ্রাফ বাড়লেও সাধারণের মুখে বেপাত্তা মাস্ক, শহর জুড়ে অসচেতনতার ছবি

0

Last Updated on June 17, 2022 4:59 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। রাজ্যে সংক্রমণ গ্রাফে পরিবর্তন এসেছে। তবুও, ফেরেনি হুঁশ। ট্রেনে, মেট্রো, কিংবা শপিং মলে চলছে ঘোষণা। তবে, সেসব উপেক্ষা করেই মাস্ক ছাড়া চলছে যাতায়াত থেকে কেনাকাটা সবকিছুই।

যদিও, বঙ্গে করোনা গ্রাফ এখনও নিয়ন্ত্রণে। কিন্তু, মুহূর্তে বদলে যেতে পারে পরিস্থিতি। সেই অবস্থার কথা আশঙ্কা করেই বারবার সতর্ক করছেন চিকিৎসকরা। একেবারে হাতে গোনা মানুষের মুখেই দেখা যাচ্ছে মাস্ক। ট্রেন, বাস, মেট্রো থেকে ট্রাম, সব জায়গাতেই মাস্ক ছাড়া অবাধ বিচরণ। গত ৩১ মার্চ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে সমস্ত করোনা বিধি নিষেধ তুলে নিয়েছে রাজ্য সরকার।

তবে, নির্দেশিকায় কড়া ভাবে মাস্ক পরা এবং করোনা বিধি মেনে চলার উপর জোর দেওয়া হয়। দু বছর পর বিধি নিষেধ-মুক্ত হয় রাজ্য। তারপরই, শুরু হয় বাড়বাড়ন্ত। এই মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে রাজ্য সরকার। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বিধি নিষেধ প্রত্যাহার করা হলেও মানতে হবে নিয়ম কানুন। বাইরে বেরোলেই পরতে হবে মাস্ক। মানতে হবে সামাজিক দূরত্বের নীতি। বারংবার হাত জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

কর্মক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে করতে হবে জীবাণুমুক্ত করণের কাজ। কিন্তু, সে সবের তোয়াক্কা না করেই চলছে জীবন যাপন। কিন্তু, নতুন করে ঊর্ধ্বমুখী সূচক আবারও ডেকে আনতে পারে নতুন বিপদ, অর্থাৎ চতুর্থ ঢেউ। মাস্কহীনতা দেখে চিন্তিত চিকিৎসক মহল। তাঁদের মত, এখনই মাস্ক ত্যাগ করা কোনভাবেই সতর্কমূলক পদক্ষেপ নয়।

এক চিকিৎসক জানান, বিভিন্ন রাজ্যে আবার বাড়তে শুরু করেছে গ্রাফ। তাই, করোনা থেকে একটাই শিক্ষা নেওয়া হয়েছে। যেটা মাস্ক পরার অভ্যেস। যার মাধ্যমে অন্যান্য রোগজীবাণু এবং দূষণ থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

প্রসঙ্গত, মাঝেমধ্যেই সামনে আসছে নিত্যনতুন করোনা প্রজাতির খোঁজ। সেখান থেকেও বিপদের আশঙ্কার কথা স্মরণ করাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here