মাস্ক বাধ্যতামূলক, টিকায় জোর দিয়ে নির্দেশিকা প্রকাশ স্বাস্থ্য দফতরের

0

Last Updated on July 3, 2022 6:16 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। দু হাজারের পথে করোনা গ্রাফ।লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, একদিনে রাজ্যে আক্রান্ত ১ হাজার ৭৩৯ জন। মৃত শূন্য। কিছুদিন আগে আক্রান্তের সংখ্যা কমে যাওয়ায় মাস্কহীনতায় ভুগছিল শহর। সংক্রমণ বাড়তেই আরও একবার কড়া ভূমিকায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর। জারি করা হল নতুন নির্দেশিকা।

নির্দেশিকা অনুযায়ী, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক৷ স্যানিটাইজার ব্যবহার করা এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। উপসর্গহীন এবং ভ্যাকসিন নেওয়া ব্যক্তিরাই কোন জনসমাগমে হাজির হতে পারবেন। প্রত্যেকের প্রাথমিক টিকাকরণ জরুরি থেকে শুরু করে বুস্টার ডোজ, সবটাই করতে হবে। সরকারকে প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে টিকাকরণের কর্মসূচি সম্পূর্ণ করতে হবে।

প্রবীণ নাগরিক, কো-মর্বিডিটি সম্পন্ন ব্যক্তি, স্বাস্থ্যকর্মী, প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা, সকলকেই টিকার তিনটি ডোজই নিতে হবে। ভিড় জায়গা, গণপরিবহণ, বাজার, শপিং মল আগের মতন স্যানিটাইজ করতে হবে ৷ হাওয়া বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা করতে হবে ৷ পাবলিক প্লেসে থার্মাল স্ক্যানিং এবং সঠিক স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।

এছাড়া, কিছুদিন আগেই বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে করোনা প্রটোকল সঠিকভাবে মানার জন্যে সতর্ক করে স্বাস্থ্য দফতর। এই নিয়ম ইনডোর এবং আউটডোর দুই ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে।

সম্প্রতি, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বেশ কয়েক জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন করে প্রতিদিনই খবর আসছে এবং সংখ্যা বাড়ছে ক্রমাগত। সেখান থেকেই এই নির্দেশিকা দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। আক্রান্তরা বেলেঘাটা আই ডি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। মেডিক্যাল কলেজ হোস্টেলে আরও কিছুজনের উপসর্গ দেখা গিয়েছে, তাদের গৃহবন্দী রাখা হয়েছে।

এর আগে প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউয়ে চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা অনেকে আক্রান্ত হন। সেই সময় কার্যত ভেঙে পড়ে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। এমত অবস্থায় হাসপাতাল এবং হাসপাতালের কর্মীরা যাতে কোন ভাবে সংক্রমিত না হন সেই কারণেই আগে থেকেই সতর্ক ভূমিকা নিচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here