মাদক চালান, মধুচক্রের দায়ে বাংলাদেশের পরীমণি র‌্যাব রিম্যান্ডে, ঢাকা ঘনিষ্ঠ টালিগঞ্জের প্রভাবশালীরাও লিস্টে

0

Last Updated on August 6, 2021 10:24 PM by Khabar365Din

খবর ৩৬৫ দিন ও বাংলাদেশের সংবাদসংস্থা যৌথভাবে

- Advertisement -

৩৬৫দিন ৷ ঢাকা। শত কান্নাকাটি করেও রেহাই পেল না বাংলাদেশের মক্ষীরানি। বিপুল পরিমাণে মদ ও মাদকদ্রব্য সমেত গ্রেফতার হওয়া অভিনেত্রী পরীমণিকে ৪ দিনের র্যাব হেফাজতের নির্দেশ দিল ঢাকার আদালত। সূত্রের খবর, পরীমনিকে জেরা করে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে র্যাবের গোয়েন্দাদের কাছে। পরীমণি জেরায় জানিয়েছেন, তার সঙ্গে আন্তর্জাতিক মাদক পাচারের যোগ রয়েছে। এছাড়াও বিদেশি মদ পাচার ও মধুচক্রের সঙ্গে জড়িত ৩০০ এর ওপরে তার ক্লায়েন্ট রয়েছে। ক্লায়েন্টরা অনেকেই দুবাই ও পাকিস্তানের বাসিন্দা। এমনকি ঢাকা ঘনিষ্ঠ টালিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রির প্রভাবশালী ৮ থেকে ১০ জনের নাম রয়েছে ওই কায়েন্টের তালিকায়। হামেশাই তার বাড়িতে বসতো রেভ পার্টি। আর সেই পার্টিতে আসতেন রাজনৈতিক নেতা মন্ত্রী সহ বাংলাদেশের উচ্চ পদে থাকা বহু নাম করা ব্যক্তিরা। যারা এই রেভ পার্টিতে যেতেন এবং যারা এই আন্তর্জাতিক মাদক চক্র সহ দেহ ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত তাদেরকেও গ্রেফতার করা হবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন গোয়েন্দারা। বাংলাদেশের খোদ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নির্দেশে গত বুধবার ঢাকার বনানীতে পরীমণির পাঁচতলা ফ্ল্যাটে আচমকা হানা দেয় ঢাকার র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ানের আধিকারিকরা। কিন্তু দরজা না খুলে বিখ্যাত বাংলাদেশী অভিনেত্রী ফেসবুকের লাইভ করে

কান্নাকাটি শুরু করেন। পাক্কা আধঘন্টা ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় নাটক করার পর দরজা খুলতে বাধ্য হন তিনি। তার ফ্ল্যাট থেকে এক্সপায়ার হওয়া একটি মদের লাইসেন্স ও পাওয়া গেছে। এর মাঝে মুখ খুলেছেন পরিমণির প্রথম স্বামী তথা ফুটবলার ফিরদৌস কবি সৌরভ। তার দাবি, ২০১২ সালে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর ফুটবল খেলার জন্য পরীমণিকে নিয়ে ঢাকায় বসবাস করতে থাকেন। এরপরই এক মিডিয়া কর্মী পরীমণিকে মডেলিং এর সুযোগ করে দেয়। তখন থেকেই পরিমণির উৎশৃঙ্খল ও নষ্ট জীবন যাপন করা শুরু হয়। পরে ওই মিডিয়া কর্মীকে বিয়েও করে। র্যাবের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আটকের পর সারারাত না ঘুমিয়ে কান্নাকাটি করেছেন অভিনেত্রী। মধ্যরাত পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য সাতদিনের পুলিশ হেফাজত চেয়ে আদালতে দাবি করে র্যাব। জিজ্ঞাসাবাদের পর র্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আলি মঈন জানিয়েছেন, পরীমণি ছাড়া আরও ৪ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন র্যাবের কর্তাদের কাছে নিষ্কৃতি চেয়ে তাদের হাতেপায়েও ধরেন। কিন্তু কিছুতেই বরফ গলেনি। এমন দুঃসময়ে পরীমণি পাশে পাননি তার মা চয়নিকা চৌধুরীকেও। বরং তিনি দেশের আইনশৃঙ্খলার উপর ভরসা

রাখছেন বলে জানিয়েছেন । পরীমনিকে আটকের পর ফেসবুকে তাকে নিয়ে মুখ খুলেছেন বাংলাদের জনপ্রিয় পরিচালক মালেক আফসারী। লাইভে এসে তিনি বলেন, সাত-আট মাস আগে ফেসবুকে পরী কিছু উল্টোপাল্টা ছবি দেয়। আমি সেইসময়ে তাকে হুঁশিয়ার করি। কিন্তু সে ফেসবুকের মাধ্যমে আমাকে বলে, আপনি পরিচালক, ছবি পরিচালনা করুন, আমাকে পরিচালনা করবেন না। তখন যদিও আমি কিছু মনে করিনি। আমি এখানে কারোর পক্ষ নিয়ে কথা বলবো না। আমি শুধু দেখতে চাই কী ঘটনা ঘটে। লাইভে পরীমনিকে তিনি সরাসরি ‘নাটকবাজ’ বলে উল্লেখ করেছেন। প্রসঙ্গত, কয়েক মাস আগেই বোট ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা তথা ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনে ফেসবুকে লাইভ করেন পরীমণি।

ওই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। কিন্তু সেইসময় পরীমনীর বিরুদ্ধে ওই ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর অভিযোগ ওঠে। এদিকে, গ্রেফতারির পর বিনোদন জগতের কেউ পরীমনির পাশে না পেলেও তাকে যখন বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার আদালতে পেশ করা হয় তখন তার হয়ে জবাবদিহি করার জন্য আইনজীবীদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। সুন্দরী পরীমনির হয়ে কে লড়বেন তাই নিয়ে আইনজীবীরা তর্কাতর্কি শুরু করে দেন। তবে শেষ পর্যন্ত এত নাটকে আখেরে লাভ কিছুই হল না।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here