কলকাতা হাইকোর্টের রায়, বিশ্বভারতীতে পাঁচিল তোলা যাবে না

0

Last Updated on September 18, 2020 8:22 PM by Khabar365Din

বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের কোনো ক্ষমতাই নেই কোন নির্মাণকার্য করার। হাইকোর্ট ৪ সদস্যের হাই পাওয়ার কমিটি তৈরি করল।

- Advertisement -

৩৬৫ দিন: বিশ্বভারতীতে পাঁচিল তোলার বিষয় একতরফা কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে ডিভিশন বেঞ্চ আজ চার সদস্যের এক উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করে স্পষ্ট জানিয়ে দিল এখন থেকে বিশ্বভারতী সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে হাইকোর্ট নিয়োজিত এই কমিটি। গত মাসে বোলপুরের স্থানীয় বাসিন্দাদের আপত্তি অগ্রাহ্য করে জোর করে বিশ্বভারতীর এলাকা এবং পৌষ মেলার মাঠ ঘিরে ফেলার জন্য পাঁচিল তোলার কাজ শুরু করে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। স্বাভাবিকভাবেই গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্বপ্নের বিশ্বভারতীর চারদিকে পাঁচিল তোলার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে নির্মীয়মান সেই পাঁচিল ভেঙে ফেলে উত্তেজিত জনতা। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বভারতীতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার দাবি সহ সিবিআই তদন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে আবদার করেন উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী।
এই সমস্ত ঘটনার জেরে আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকারের দায়ের করা জনস্বার্থের মামলার প্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ এবং রাজ্য সরকারের কাছে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট চেয়ে পাঠায়। রিপোর্ট জমা পড়ার পরে আজ প্রধান বিচারপতি টিবি রাধাকৃষ্ণণ এবং বিচারপতি শম্পা সরকারের ডিভিশন বেঞ্চ এই রায় দেয়। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে গঠিত এই কমিটিতে রয়েছেন বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁরা দু’জনেই বিশ্বভারতীর শিক্ষা সমিতির সদস্য ছিলেন। রয়েছেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত ও কেন্দ্রের উপ সলিসিটর জেনারেল ওয়াইজে দস্তুর। সঙ্গে আইনজীবী জয়দীপ করকে আদালত বান্ধব নিয়োগ করা হয়েছে। এবার থেকে বিশ্বভারতীতে কোনও নির্মাণ, পুরনো কোনও নির্মাণ ভাঙা, সংস্কার, মূর্তি সরানো সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ এই কমিটির পরামর্শ ছাড়া করা যাবে না। রাজ্য এবং কেন্দ্র সরকার উভয়কেই এই কমিটিকে সাহায্য করতে হবে। পৌষমেলার জমিতে পাঁচিল দেওয়া সংক্রান্ত যাবতীয় মামলার আপাতত দেখভাল করবে এই কমিটি। সঙ্গে বিবাদের কারণ বিশ্লেষণ করে তার সমাধানসূত্র দেওয়ারও চেষ্টা করবেন তাঁরা। প্রসঙ্গত এই একই দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টে গত সপ্তাহেই আরো একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন আইনজীবী অরুণাংশু চক্রবর্তী। আগামী সপ্তাহেই সেই আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা ছিল।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here