হায়দরাবাদের ওয়াইসি, গুজরাতি নেতাদের এক ইঞ্চি জমি নয়, সাম্প্রদায়িক মিমকে রুখতে প্রয়োজনে নির্বাচনে লড়বে বাংলার মুসলিমরা

0
16729

৩৬৫ দিন। হিন্দু এবং মুসলমান এর মধ্যে জাতের ভিত্তিতে ভাগাভাগি করে বাংলা দখলের জন্য হায়দ্রাবাদ এবং গুজরাট থেকে যে সমস্ত নেতা বাংলা দখল করতে আসছেন, তাদের আমরা মানি না। প্রয়োজনে বাংলা এবং বাঙালির জাতিসত্তা রক্ষার জন্য রাজনীতির ময়দানে নামব। তবু রবীন্দ্রনাথ, বিবেকানন্দ, নজরুলের বাংলায় সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়াতে দেব না গুজরাত এবং হায়দ্রাবাদের নেতাদের। সম্প্রতি মিম সুপ্রিমো আসাদুদ্দিন ওয়াইসি এবং নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহ-রা যেভাবে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বাংলাকে টার্গেট করেছেন, তার বিরুদ্ধে এভাবেই রুখে দাঁড়িয়ে হুঁশিয়ারি দিল বাংলার মুসলমান সমাজের সব থেকে বড় সংগঠন বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়েশন।

- Advertisement -


সংগঠনের চেয়ারম্যান মহম্মদ ইয়াহিয়া আজ স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন, বাংলার মুসলিমদের নিয়ে এরকম রাজনীতির তীব্র বিরোধিতা করছি। আমরা জাতি বনাম জাতের লড়াইয়ের মুখোমুখি। ধর্মের জিগির তুলে এমন রাজনীতি একেবারেই মেনে নেওয়া যায় না।
কয়েকদিন আগেই হায়দ্রাবাদ থেকে মিম সুপ্রিমো আসাদুদ্দিন ওয়াইসি বাংলার ফুরফুরা শরীফে এসে বাংলার মুসলমানদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক হানাহানির বিষ ছড়িয়ে বাংলা দখলের জন্য বৈঠক করেন আব্বাসউদ্দিন সিদ্দিকীর সঙ্গে। সেই প্রসঙ্গ তুলে
মহম্মদ ইয়াহিয়া বলেন, মিম এর মতো সাম্প্রদায়িক ভাবনা নিয়ে যারা কাজ করে তাদের বিরোধিতা করছে বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়শন। প্রয়োজনে আমরা নতুন দল গড়ব। রাস্তায় নেমে এরকম রাজনীতির বিরোধিতা করব। বাঙালি মুসলিমদের বাইরে থেকে আসা কোনও মুসলিম নেতার কোনও প্রয়োজন নেই। বিজেপি যখনই কোনও রাজ্যে জেতার জন্য ঝাঁপায় তখনই তাদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেন ওয়াইসি। হায়দরাবাদে মসজিদ ভাঙা হলে ওয়াইসি কিছু বলেন না। যত বড় পীরই আসুন না কেন আমরা বাংলায় মুসলিম ভোট ভাগ হতে দেব না।
এর পরেই তিনি আক্রমণ করেন বিজেপির সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে। সম্প্রতি অমিত সাহা যেভাবে বোলপুরে এসে রবীন্দ্রনাথের সংস্কৃতি নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করেছেন, তা নিয়ে মুফতি মেহেদি হাসান বলেন, পশ্চিমবঙ্গ কথাটাই ভালো করে বলতে পারেন না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। পশ্চিম বাঙাল বলেন। কখনো কখনো আবার এইসব নেতারা বাংলাতে অপমান করার জন্য কাঙ্গাল বলতেও দ্বিধা বোধ করেন না। গুজরাট থেকে এসে এখানে ভাগাভাগি করা যাবে না। কোনও পীরজাদা আমাদের নেতা নন। হায়দরাবাদ থেকে এসে এখানে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করা যাবে না।
অন্যদিকে, ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকি এদিন ওয়াইসিকে কার্যত বিজেপির এজেন্ট বলে অভিযোগ করে বলেন, ওয়েইসি সাহেবের সাদা কাপড়ের ভেতরে বিজেপির গেরুয়া রং লুকিয়ে রয়েছে। বাংলায় কখনও কোনও সাম্প্রদায়িক শক্তি পা রাখতে পারবে না। ফুরফুরা শরিফ তাকেই সমর্থন করবে, যে বাংলার শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখতে পারে।
তাঁর আরও অভিযোগ, আব্বাস সিদ্দিকি ধর্মের নামে অনেক মানুষের কাছ থেকে পয়সা তুলেছেন। আর এই তিনি মানুষের আকর্ষণ অন্যদিকে ঘোরানোর চেষ্টা করছেন। তাই রাজনীতির কথা বলছেন।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here