Partha Chatterjee Removed : নীতির প্রশ্নে আপোষ নয় মমতার, তৃণমূল মন্ত্রিসভা থেকে অপসারিত পার্থ

0

Last Updated on July 28, 2022 5:08 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। রাজ্য মন্ত্রীসভা থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে অপসারণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি কান্ডে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের গোয়েন্দারা গ্রেপ্তার করার পরে আজ রাজ্য মন্ত্রিসভার ক্যাবিনেট বৈঠকে সর্বসম্মত সিদ্ধান্তক্রমে মন্ত্রিসভা থেকে পার্থকে অপসারণ করা হলো।


এর ফলে ভারতীয় রাজনীতির ইতিহাসে সম্পূর্ণ নজির বিহীন ভাবে দল এবং রাজ্য মন্ত্রিসভার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির অপরাধের দায় স্বীকার করে ইতিহাস তৈরি করলেন মমতা। অর্থাৎ মন্ত্রী হিসেবে থাকার সুবাদে যে সমস্ত দুর্নীতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম জড়িয়েছে এবং প্রাথমিক তথ্যপ্রমাণে তার যুক্ত থাকার কথা উঠে এসেছে তদন্তকারীদের বয়ানে, সেই দায় স্বীকার করে নিল রাজ্য সরকার।


পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে রাজ্যের শিল্প, বাণিজ্য, তথ্য প্রযুক্তি এবং পার্লামেন্টারি অ্যাফেয়ার্স এর দফতরের যে সমস্ত মন্ত্রীত্ব ছিল তা বন্টন করে দেওয়া হল। পার্থর হাতে থাকা প্রত্যেকটি দপ্তরের দায়িত্ব আপাতত নিজের হাতেই রেখেছেন মমতা।

অপসারণের সম্ভাবনা দল থেকেও

তৃণমূলের মহাসচিব পদ থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে অপসারণ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে তৃণমূল সুত্রে জানা গিয়েছে। আজ বিকেল পাঁচটার সময় তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে বৈঠক ডেকেছেন। সেই বৈঠকেই তৃণমূলের মহাসচিব পদ থেকে পার্থকে অপসারণ করার পাশাপাশি তৃণমূল থেকেও বহিষ্কারের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

দায় নেয় না ভাজপা থেকে শুরু করে অন্যান্য দল

মমতা তার রাজ্য মন্ত্রিসভার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে গ্রেফতার হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই ছাটাই এর মত সাহস দেখাতে পারলেও এই সাহস দেখাতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অথবা মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বিপুল অংকের দুর্নীতি নিয়ে নারায়ন রানে গ্রেপ্তার হয়ে জেলবন্দী হলেও নরেন্দ্র মোদি তাকে অপসারণের সাহস দেখাতে পারেননি। মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীর নবাব মালিক আর্থিক তছরুপের মামলায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের হাতে গ্রেফতার হলেও তাকে মন্ত্রিসভা থেকে ছাটাই করেননি উদ্ধব ঠাকরে। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র যাদব কে গ্রেফতারের পরেও মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণ করেননি অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

পার্থকে সরানোর দাবি দলের মধ্যেই

মন্ত্রিসভার বৈঠকের আগে এদিন কুণাল ঘোষ ট্যুইট করেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে মন্ত্রীত্ব এবং দলের সমস্ত পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া উচিত। বহিস্কার করা উচিত। বক্তব্য ভুল মনে হলে দলের সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে আমায় সব পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার। সেক্ষেত্রে দলের কর্মী হিসাবে কাজ চালিয়ে যাব।
তবে দলের রাজ্য সম্পাদক তথা দলীয় মুখপাত্র কুনাল ঘোষের এই টুইটের কিছুক্ষণের মধ্যেই আগের টুইটটি মুছে ফেলেন। কুণাল ঘোষ প্রথম ট্যুইটটি ধরে ফের একটি ট্যুইট করেন, সেখানে তিনি লেখেন, আমি আমার ট্যুইটে নিজের মতামত প্রকাশ করেছি। এখন দল বিষয়টি আলোচনার মধ্যে এনেছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দলের একটি মিটিং ডেকেছেন বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটার সময়। তৃণমূল ভবনে এই আলোচনা হবে। আমাকেও সেই আলোচনায় অংশ নিতে বলা হয়েছে। তাই, যেহেতু তৃণমূল দলীয় স্তর থেকে এই আলোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেই কারণে আমি আপাতত আগের ট্যুইটটি ডিলিট করছি।

কুনালের পাশাপাশি যুব তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা তৃণমূলের অন্যতম মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য কুনালের দাবিকে সমর্থন জানিয়ে টুইট করেন, ঠাকুমা বলতেন, ফোঁড়া যখন পুঁজে ভরে এসেছে, অনতিবিলম্বে তাকে ফাটিয়ে দেওয়াই শ্রেয়। শরীর ভালো থাকে, শান্তিতে ঘুমানো যায়। একটি ফোঁড়ার জন্য গোটা শরীরকে কষ্ট দেওয়া বৃথা।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here