আইপিএল বেটিং – দিঘা থেকে গ্রেফতার 9 জুয়াড়ি

0
1355

365 দিন। রবিবারের দিঘা। পর্যটকের ভিড় তেমন না থাকলেও ভোর হওয়া মাত্রই কয়েকজন নিউ দিঘার সি বিচে স্নান করছিলেন। হঠাৎই সেখানে পুলিশের হানা। কিছু বুঝে ওঠার আগেই 10 থেকে 15 জন পুলিশ কর্মী সমুদ্রে নেমে কার্যত ঘাড় ধরে যারা সমুদ্রস্নান করছিলেন তাদের পুলিশের গাড়িতে তুললেন। গন্তব্য দিঘা থানা। কিন্তু কেন এই অভিযান! কেনইবা ধরা হলো এদের! নিউ দিঘার সি-বিচ জুড়ে যখন এই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে তখন জানা গেল এরা প্রত্যেকেই হলো বেটিং চক্রের পান্ডা। আইপিএলে বেটিং করে প্রচুর টাকা কামিয়ে দিঘায় এসেছিলেন আমোদ করতে। কার্যত দিঘা থেকেই বেটিং চক্র চালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন কিন্তু সেই পরিকল্পনা আর সফল হল না। 9 জনেরই ঠাঁই হল শ্রীঘরে। পুলিশ সূত্রে খবর, পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানা ও দিঘা থানার পুলিশ যৌথ ভাবে অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেফতার করে। আইপিএলে বেটিং চক্রের রমরমা বর্ধমান জুড়ে ।এর মধ্যে দু’দিন আগেই মেমোরি থেকে এই ব্যাটিং চক্রের সাথে জড়িত কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে সেখানকার পুলিশ। এদের জিজ্ঞাসাবাদ করেই বেশ কয়েকজনের নাম পায় তদন্তকারী পুলিশ অফিসারের। কিন্তু বেটিং চক্রের এই পাণ্ডাদের ধরতে তাদের বাড়ি বা পরিচিত এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের ধরতে পারেনি মেমোরি থানা।পরে এই ৯ জনের মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে সৈকত শহর দিঘা থেকে গ্রেপ্তার করে। প্রসঙ্গত মারণ করোনা ভাইরাসের আবহে এই বছর আইপিএল এর আসর দেশের মধ্যে হচ্ছে না। কুড়ি ওভারের এই ক্রিকেট যুদ্ধ আসর বসেছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহী তে। লক্ষ লক্ষ মাইল দূরে এই ক্রিকেট যুদ্ধ চললেও এর উন্মাদনার ঢেউ ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের সাথে বাংলাতেও আছড়ে পড়েছে। ক্রিকেট উন্মাদনার সাথে চলছে দেদার বেটিং। পুলিশ জানিয়েছে বেটিং চক্রের সন্ধান প্রথমে কলকাতায় পাওয়া যায়। ধরা পড়ে কয়েকজন জুয়াড়ি। তারপর হুগলির উত্তর পাড়া থানা এলাকার গোবরডাঙ্গা এলাকা থেকে বেটিং এর সঙ্গে জড়িত সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের থেকেই মেমরি এলাকার কয়েকজনের নাম পাওয়া যায় ।সেই কয়েকজনকে গ্রেপ্তার এর পরে উঠে আসে এই ন’জন জুয়াড়ির নাম। তাদের ধরতেই পূর্ব বর্ধমানের মেমোরি থানার পুলিশ যৌথভাবে দিঘা থানার পুলিশের সাথে অভিযান চালায়। জানা গেছে অভিযুক্তদের দিঘার স্নানঘাট থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here