মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা জানুয়ারিতেই ডিএ ৩ শতাংশ হারে

0

Last Updated on December 3, 2020 10:25 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ৩ শতাংশ ডিএ দেওয়ার কথা ঘােষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, নতুন বছরে জানুয়ারি মাসে সরকারি কর্মচারীদের ডিএ দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, আমরা কোনওদিন সরকারি কর্মচারীদের গায়ে হাত দিইনি। কারও চাকরি খাইনি। এমনকি যারা প্রতিদিন বিরােধিতা করেন, তাদেরও বেতন বাড়ানাে হয়েছে। পে-কমিশন গঠন করে দেওয়া হয়েছে। এর জন্যে ২ হাজার কোটি টাকা খরচ হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের থেকে এখনও ৮৫ হাজার কোটি টাকার বেশি বকেয়া রয়েছে রাজ্যের। কোভিড, আমফানের টাকা আমরা পাইনি। পাশাপাশি এদিন মুখ্যমন্ত্রী ঘােষণা করেছেন, উচ্চ মাধ্যমিক স্তর, মাদ্রাসা স্তরে সাড়ে ৯ লক্ষ ছাত্রছাত্রীকে কোভিড পরিস্থিতিতে অনলাইনে পড়াশুনাে চালানাের জন্য ট্যাব (ছােট কম্পিউটার) দেওয়া হবে। মাধ্যমিক স্তরে প্রতিটি স্কুলকে একটি করে ট্যাব দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এক কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্যদিকে বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড ১৯ পরীক্ষার খরচ কমিয়ে ৯৫০ টাকা বেঁধে দেওয়ার কথা ঘােষণা করা হয়েছে।

- Advertisement -

রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) ঘােষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। ২০২১-র জানুয়ারিতে ৩ শতাংশ ডিএ দেওয়া হবে বলে বৃহস্পতিবার জানান তিনি। এই ৩শতাংশ ডি দিতে রাজ্য সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে ২ হাজার কোটি টাকা।

অনলাইন ক্লাসের জন্য রাজ্যের সাড়ে ৯ লক্ষ পড়ুয়াকে ট্যাব দেবে সরকার। উচ্চমাধ্যমিক এবং মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রীদের জন্য ট্যাব দেওয়া হবে। অষ্টম শ্রেণির ক্ষেত্রে প্রতি স্কুলকে একটি করে কম্পিউটার দেওয়া হবে। 

তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে ইনফোসিস বাংলায় আরােও ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়ােগ করছে। সেই সঙ্গে বহু তথ্য প্রযুক্তি কর্মীর চাকরির সুযােগও তৈরি হতে চলেছে বাংলায়।

বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড ১৯ পরীক্ষার খরচ কমিয়ে ৯৫০ টাকা বেঁধে দেওয়ার কথা ঘােষণা করা হয়েছে।

জলপাইগুড়িতে একটি সিমেন্ট কারখানাকে জমি দেওয়া হবে।

রাজ্যে আরও ৫০০ কোটি বিনিয়ােগ করবে উইপ্রাে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে বাংলায় ইনফোসিস আরও ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়ােগ করতে চলেছে। সেই সঙ্গে বহু তথ্য প্রযুক্তি কর্মীর চাকরির সুযােগও তৈরি হতে চলেছে বাংলায়। টাটা কনসালটেন্সি সার্ভিসেসও রাজ্যে বিনিয়ােগ করছে। রাজ্যে তৈরি হচ্ছে সিলিকন ভ্যালি, আইটি হাব। আইটিসি, টিসিএস, ইনফোসিসের মতাে সংস্থার মাধ্যমে তথ্যপ্রযুটি শিল্পে এ রাজ্যে বিপুল কর্মসংস্থানও হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল এক আলােচনা সভায় অংশগ্রহণ করে রাজ্যে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের অগ্রগতি ও পরিকাঠামাের এই খতিয়ান তুলে ধরেছেন মুখ্যমন্ত্রী।কইসঙ্গে বাংলায় যে শিল্পবান্ধব পরিবেশ পরিকাঠামাে গড়ে উঠেছে তাও পরিসংখ্যান দিয়ে তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, করােনা আবহে অন্যান্য রাজ্যগুলােতে যেখানে বেতন কেটে নেওয়া হচ্ছে সেখানে বাংলায় কর্মসংস্থান হয়েছে। বাংলার উন্নয়নের প্রসঙ্গে মুখ মন্ত্রী এদিন বলেন, দারিদ্র্য দূরীকরণে বাংলা প্রথম। এছাড়া ই-গর্ভনেন্স, ই-টেন্ডার, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলা প্রথম। রাজ্যে ১০ লক্ষ আইটি কর্মী রয়েছেন। করােনা পরিস্থিতির মধ্যেও বাংলায় ২.৫ শতাংশ জিডিপি বেড়েছে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here