কাঁথির অধিকারীরা আবার অভিযুক্ত, দিব্যেন্দুর অ্যাম্বুল্যান্স কেলেঙ্কারি

0

Last Updated on July 6, 2021 10:36 AM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। কিছুদিন আগে কাঁথি পুরসভা থেকে ত্রিপল লুঠ নিয়ে এফআইআর হয় শুভেন্দুর বিরুদ্ধে। এবার দিব্যেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে অ্যাম্বুল্যান্স দুর্নীতির অভিযোগ।
বিভিন্ন দুর্নীতির অভিযোগ সামনে আসার পর অধিকারী বাড়ির ছোট ছেলে সৌমেন্দু অধিকারীকে কাঁথি পুরসভার পৌর প্রশাসক এর পদ থেকে সরানো হয়। এবার তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারি বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ। ঠিক কী ঘটেছে এবার? জানা গিয়েছে, তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী গত বছরের ৫ জানুয়ারি ইন্ডিয়ান অয়েল কর্তৃপক্ষের এক্সেকিউটিভ ডিরেক্টর একটি চিঠি দেন। সেই চিঠিতে তিনি কাঁথি মহকুমায় জাতীয় সড়ক, রাজ্য সড়ক, পর্যটন কেন্দ্র এবং ফিশিং হারবার রয়েছে ও দুর্ঘটনা প্রবণ এলাকার জন্য একটি অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য আবেদন করেন। জানানো হয়, এই ট্রমা অ্যাম্বুল্যান্সের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে থাকবে কাঁথি পুরসভা। সাংসদের সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে ইন্ডিয়ান অয়েল কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত জেলা শাসকের মাধ্যমে কাঁথি পুর প্রশাসককে গত ২ জুলাই একটি ট্রমা অ্যাম্বুল্যান্স প্রদান করে। এখন এইঅ্যাম্বুল্যান্স পাওয়ার কৃতিত্ব কার তাই নিয়ে শুরু হয়েছে অধিকারী বনাম পুরসভার লড়াই।

- Advertisement -

একদিকে এই অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা দেওয়া বা পাওয়ার ক্ষেত্রে অধিকারীদের কোনও কৃতিত্বই দিতে নারাজ কাঁথি পুরসভার বর্তমান প্রশাসক সিদ্ধার্থ মাইতি। তাঁর কথায়, “আমরা বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় দেখছি দিব্যেন্দু অধিকারী বলছেন যে এই অ্যাম্বুলেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে সাংসদ হিসাবে ওনার প্রচেষ্টা রয়েছে। কিন্তু বাস্তব হল আমাদের উনি সাহায্য করেননি। স্বয়ং জেলা শাসক ইন্ডিয়ান অয়েল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে আমাদের এই অ্যাম্বুল্যান্স প্রদান করেছেন। কিছু কাজ বাকি রয়েছে। শেষ হলেই দ্রুত এই পরিষেবা পাবেন এলাকাবাসী। ওনার ভূমিকা ছিল কিনা আমার জানা নেই। কিন্তু আমারাই চিঠি দিয়েছিলাম এবং জেলাশাসকের মাধ্যমে অ্যাম্বুল্যান্স পেয়েছি।”

কাঁথি পুর প্রশাসক মণ্ডলীর সদস্য সুবল মান্না আবার জানাচ্ছেন, দিব্যেন্দুবাবু এই ট্রমা অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা দেওয়ার জন্য চেষ্টা করেছিলেন বটে। কিন্তু তাঁর সেই প্রচেষ্টা সম্পূর্ণ হয়নি। তিনিই বর্তমান পুর প্রশাসককে বলেকয়ে উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here