কাঁথি সমবায় ব্যাংক থেকে অপসারিত শুভেন্দু, সরলেন চেয়ারম্যানের পদ থেকে

0
514

365 দিন। কাঁথি কো-অপারেটিভ ব্যাংকের চেয়ারম্যানের পদ থেকে অপসারিত শুভেন্দু। ১৮ জন ডিরেক্টরের মধ‍্যে ১০ জন শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মত দিলেন। আমন্ত্রণ জানানো হলেও উপস্থিত ছিলেন না শুভেন্দু। শেষ পর্যন্ত সংখ‍্যাগরিষ্ঠের মত অনুসারে অনাস্থা পাশ হয়ে যায়। এদিন ব্যাংকের জরুরি বৈঠকে পরিচালন কমিটি বসে। কাঁথি কো-অপারেটিভ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এদিন দাবি করা হয় ,দীর্ঘদিন চেয়ারম্যান অনুপস্থিত হওয়াতে ব্যাংকের স্বাভাবিক পরিষেবা বাধা প্রাপ্ত হচ্ছিল। অপরদিকে শুভেন্দু কলকাতা হাইকোর্টে যে মামলা করেছেন তাতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের পক্ষেই রায় দিয়েছে কোর্ট এবং ওই মামলা খারিজ করেছে। তাই ব্যাংক সিদ্ধান্ত নিয়েছে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরানো হবে শুভেন্দুকে। ব্যাংকের মোট ১৯জন ডিরেক্টর। ভোট দেওয়ার অধিকারী আছে ১৪ জনের। এদিন মত প্রকাশ করেন ১০জন। প্রত্যেকেই শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মত দেন। ব্যাংকের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান চিন্তামনি মন্ডল পরবর্তী চেয়ারম্যান পদ সামলাবেন বলেই সিদ্ধান্ত পরিচালন কমিটির। শুভেন্দু অধিকারী দীর্ঘদিন ধরে এই ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে ছিলেন। তার পদ খারিজ নিয়ে তৃণমূল ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার সরব হয়েছিল। ব্যাংকের সামনে বিক্ষোভ দেখানো হয়েছিল। তৃণমূলের দাবি ছিল সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে কাঁথি কো-অপারেটিভ ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন শুভেন্দু অবিলম্বে তাকে এই পদ থেকে সরাতে হবে। একইসঙ্গে শুভেন্দু চেয়ারম্যান থাকাকালীন কাঁথি সমবায় ব্যাংকে যে সমস্ত দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে তারা তদন্ত করতে হবে। পাল্টা অপসারণ নিয়ে প্রশ্ন তুলে শুভেন্দু অধিকারী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। পরপর তিনটি টার্মে এই ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। সাংবাদিক সম্মেলন করে অন্যতম ডাইরেক্টর আলেম আলী খান জানিয়েছেন দীর্ঘ চার মাস ধরে টালবাহানা চলছিল ব্যাংকে, গ্রাহকরা পরিষেবা পাচ্ছিলেন না লোনের ফাইল আটকে ছিল। সমবায় আইন কে মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলো। আদালত নির্দেশ দিয়েছিল অপসারণের দাবিতে অনাস্থা প্রস্তাবের সঠিক নিয়ম মানতে হবে। আদালতের নির্দেশ মতো সমবায় আইন মোতাবেক এবার অনাস্থা প্রস্তাব আনা হলো নিয়মমত সংস্থার চেয়ারম্যান শুভেন্দু কেউ উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছিল কিন্তু তিনি উপস্থিত থাকেন নি তাই চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে দায়িত্ব দেওয়া হল ভাইস চেয়ারম্যান চিন্তামণি মন্ডলকে। শুভেন্দু কে চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণ করা হলো। এদিন শুভেন্দু অধিকারীকেও চেয়ারম্যান হিসেবে উপস্থিত হওয়ার জন্য জানানো হয়েছিল নোটিশ করে। তিনি আজ উপস্থিত হননি। তার তরফের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। জেলা তৃণমূল নেতৃত্তের বক্তব্য, সমবায় আইন অনুসারে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কাঁথি সমবায় ব্যাংকের ডাইরেক্টর এর মধ্যে কোন রাজনীতি নেই সমবায় আইন মেনে চেয়ারম্যান পদে থাকা শুভেন্দু অধিকারী কেউ বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল তাকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছিল কিন্তু তিনি উপস্থিত হননি তাই যে দশজন ডাইরেক্টর উপস্থিত ছিলেন তাদের মত অনুসারে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে কাঁথি সমবায় ব্যাংকের একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে তৃণমূল দল হিসেবে মনে করে এই সমস্ত দুর্নীতির তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। তাছাড়া তিনি দীর্ঘদিন ধরে সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে একই পদে রয়েছেন বহুদিন যাবৎ তিনি চেয়ারম্যান হিসেবে থাকলেও সক্রিয় ভাবে কোনো কাজ করছেন না হলে সমবায় ব্যাংকের গ্রাহকরা অসুবিধায় পড়েছে তাই সবদিক বিবেচনা করে সংস্থার ডাইরেক্টর রা যা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শুভেন্দুর উচিত ছিল নিজে থেকেই চেয়ারম্যানের পদ ছেড়ে দেওয়া।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here