মমতার বাংলায় বিনিয়োগ টাটার, তাজ বেঙ্গলের পর তাজ নিউটাউন

0

Last Updated on May 9, 2022 8:09 AM by Khabar365Din

সৌগত মন্ডল। খবর ৩৬৫ দিন।

- Advertisement -

ডেস্টিনেশন বেঙ্গল।

বাংলায় বিনিয়োগ আটকাতে ভাজপা এবং সিপিএম এর যাবতীয় প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে ফের বড়োসড়ো বিনিয়োগ করে হোটেল উদ্বোধনের কথা ঘোষণা করলো টাটা গোষ্ঠী।

নিউটাউনে টাটা গোষ্ঠীর তৈরি করছে কলকাতার সবথেকে বিলাসবহুল ফাইভ স্টার হোটেল তাজ সিটি সেন্টার নিউ টাউন।

মমতা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে যেভাবে ভিন রাজ্য এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাংলায় বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য বিশ্বের দরবারে বাংলায় বিনিয়োগের বিভিন্ন সম্ভাবনার দিক তুলে ধরেছেন এবং বিশ্ববাণিজ্য সম্মেলনের মাধ্যমে শিল্পপতিদের সঙ্গে সরাসরি সরকারের যোগাযোগ স্থাপন করেছেন, তার ফলে খুব স্বাভাবিকভাবেই ভিন রাজ্যের শিল্পপতিরা বাংলায় বিনিয়োগ করতে আগ্রহী হচ্ছেন।

এবারেও বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের উদ্বোধনের দিন বাংলায় যাতে শিল্পপতিরা বিনিয়োগ না করেন তার জন্য ভাজপা এবং সিপিএম রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে গিয়েছে রাজ্যের খারাপ দিক গুলি তুলে ধরার জন্য।

হুগলির সিঙ্গুরে যেভাবে কৃষকদের কাছ থেকে জোর করে ওর বর কৃষি জমি কেড়ে নিয়ে টাটা গোষ্ঠীর হাতে সিপিএম সরকার তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তার বিরোধিতা করে কৃষকদের হাতে সেই জমি ফিরিয়ে দেওয়ার পর থেকে ভাজপা এবং সিপিএম প্রচার করে গিয়েছে টাটা গোষ্ঠী নাকি মমতার বাংলায় বিনিয়োগ করতে আসবে না।

বিরোধীদের এই সমস্ত প্রচার মিথ্যে প্রমাণ করে টাটা গোষ্ঠীর এবারে নিউটাউনে তৈরি করল অত্যাধুনিক বিলাসবহুল ফাইভ স্টার হোটেল। ১৩৭ রুম, ১০ বিলাসবহুল স্যুইট এবং আন্তর্জাতিক মানের কনফারেন্সের জন্য ৬ ব্যাঙ্কোয়েট হল ও দুটি রেস্তোরাঁ নিয়ে যাত্রা শুরু করল তাজ সিটি সেন্টার নিউ টাউন। মুম্বইয়ের মতো এই তাজেও থাকছে বিখ্যাত শামিয়ানা। আর শিল্পকলার উৎকৃষ্ট নিদর্শন রয়েছে প্রতিটি ঘরে। শুধু তাই নয়, প্রতিটি ঘরের কার্পেটে রয়েছে গুগল ম্যাপের মতো করে বানানো সুন্দর আঁকিবুঁকি।

কলকাতার এই নতুন তাজকে মোটেই বাজেট পাঁচতারা হোটেল বলা যাবে না। তবে মধ্যবিত্ত বাঙালি এক রাত কাটিয়ে আসতেই পারেন, যখন বুকিং শুরু হচ্ছে ৭৫০০ টাকা থেকে!

এম্পেরর’স লাউঞ্জে ব্রু এবং বেকের সেরা সংগ্রহ পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন হোটেল কর্তৃপক্ষ।কলকাতায় তাজ বেঙ্গল সহ টাটা গোষ্ঠীর আরো পাঁচটি বিলাসবহুল হোটেল থাকা সত্বেও নিউটাউনে এত বড় বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে টাটা গোষ্ঠীর অধীনস্থ ইন্ডিয়ান হোটেলস কোম্পানি লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার পুনীত ছাটওয়াল বলেন, বরাবর ভারতের শিল্প সংস্কৃতি এবং বৌদ্ধিক রাজধানী হিসেবে স্বীকৃত কলকাতা।

তার পাশাপাশি সাম্প্রতিককালে বাংলার সরকারের উদ্যোগে কলকাতা দেশের দ্বিতীয় বাণিজ্যিক রাজধানীতে পরিণত হয়েছে। তাই স্বাভাবিক ভাবেই বিনিয়োগের জন্য কলকাতাকে বেছে নিতে কোন অসুবিধা হয়নি। শুধুমাত্র এই হোটেল নয়, কলকাতা তথা বাংলায় টাটা গোষ্ঠী আরো বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আগ্রহী। পাশাপাশি অম্বুজা নেওটিয়া গ্রুপের সঙ্গে আমাদের অংশীদারিত্ব আরো বাড়লো এই হোটেল তৈরীর সঙ্গে সঙ্গে।

বর্তমানে বাংলার বিজনেস এবং আইটি হাফ বলে পরিচিত নিউটাউনে টাটা গোষ্ঠীর এই হোটেল তৈরীর জন্য আইএইচসিএল-এর সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করেছে অম্বুজা নেওটিয়া গোষ্ঠী। হোটেলের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা উপলক্ষে আম্বুজা নেওটিয়া গোষ্ঠীর কর্ণধার হর্ষবর্ধন নেওটিয়া বলেন, তাজ সিটি সেন্টার নিউ টাউন বাণিজ্যিক কারণে বাইরে থেকে বাংলায় আসা ব্যক্তিদের পাশাপাশি কলকাতায় ছুটি কাটাতে এলেও বিলাসবহুল গন্তব্য হিসেবে প্রথম সারিতে থাকবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here