মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব-এর আক্ষেপ “ভাজপার সঙ্গে ২৫ বছর নষ্ট করেছে শিবসেনা, ভাজপার গায়ে চাপানো হিন্দুত্বের নকল চামড়া”

0
182
Advertisement

Last Updated on January 25, 2022 7:01 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। মুম্বই। Khabar 365 Din সর্বভারতীয় রাজনীতিতে যাত্রা শুরু করার জন্য অটল বিহারী বাজপেয়ী এবং লালকৃষ্ণ আদবানীর উদ্যোগে তৈরি ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সে ভাজপার সবচেয়ে পুরনো সঙ্গী ছিল শিবসেনা। কিন্তু গত ২০১৯ মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের পরেই মহারাষ্ট্রের মসনদের লড়াইয়ে ভেঙে গিয়েছে ( Shivsena BJP Alliance ) শিবসেনা ভাজপা জোট। ভাজপা কে কার্যত মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে অপ্রাসঙ্গিক করে দেওয়া শিবসেনা সুপ্রিমো তথা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে ( Uddhav Thackaray ) এবারের সরাসরি ভাজপা জোট সঙ্গী থাকার জন্য শিবসেনার সর্ব ভারতীয় রাজনীতিতে এগিয়ে যায় নি বলে আক্ষেপ করলেন।

শিবসেনার প্রতিষ্ঠাতা তথা উদ্ধব ঠাকরের বাবা বালাসাহেব ঠাকরের ৯৬ তম জন্মবার্ষিকীতে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে ভার্চুয়াল মাধ্যমে কথা বলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। সেখানেই বাবার আদর্শ নিয়ে কথা বলতে বলতেই আচমকা বিজেপির দিকে আক্রমণ শানান। তিনি বলেন, ভাজপার সঙ্গে জোট বেঁধে শিবসেনা ২৫ বছর নষ্ট করল। আমার একটাই দুঃখ যে এক সময়ে ওরা আমাদের বন্ধু ছিল। আমরা ওদের দেখভাল করেছি। আমি আগেও বলেছি যে ভাজপার সঙ্গে জোট বেঁধে আমাদেরই ২৫ বছর সময় নষ্ট হয়েছে।

মেকি হিন্দুত্বের ধারক ভাজপা

অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরি করা হোক অথবা দেশে যে কোন নির্বাচন আসলেই উগ্র হিন্দুত্ববাদ এর যে নীতি বর্তমান সরকারের আমলে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের ভাজপা নিয়েছে, তা আসলে মেকি হিন্দুত্ব বলে তীব্র আক্রমণ করলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি নিজের দলের অবস্থান স্পষ্ট করে উদ্ধব বলেন, শিবসেনা কখনই হিন্দুত্ববাদের পথ থেকে সরে আসবে না। শিবসেনার প্রধান আমাদের হিন্দুত্ব নিয়ে বলেছিলেন। আমরা হিন্দুত্ব স্থাপনের জন্যই ক্ষমতা চেয়েছিলাম। এই লোকজনেরা যে হিন্দুত্বের বার্তা দিচ্ছে, তা কেবল লোক দেখানো। তাদের হিন্দুত্ব কেবল ক্ষমতার জন্য। ক্ষমতা পেতেই ভাজপা হিন্দুত্বের নকল চামড়া পরে রয়েছে। সাধারণ মানুষ আমাদের প্রশ্ন করেন যে আমরা হিন্দুত্ব কেন ছেড়ে দিলাম, তবে আমি বলি যে আমরা ভাজপাকে ছেড়েছি, হিন্দুত্বকে নয়। ভাজপার অর্থ হিন্দুত্ব নয়।

ভাজপা সঙ্গ ছাড়লে প্রধানমন্ত্রী হতো শিবসেনার

উত্তর ভারতে এতদিন ভাজপার হয়ে না লড়াই করলে ভারত এতদিনে শিবসেনার নেতাকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পেত। এমন দাবি করে শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত ( Sanjay Raut ) বলেন প্রথম থেকে শিবসেনা যদি ভাজপার বিরুদ্ধে লড়াই করত তাহলে পুরো ছবিটাই অন্য রকম হত। মহারাষ্ট্রের ( Maharashtra Politics ) মত উত্তর ভারতে বরাবরই শিবসেনার পক্ষে জনসমর্থন ছিল। বাবরি মসজিদ ধ্বংসের পরে শিবসেনার পক্ষে উত্তর ভারতের রাজ্যগুলিতে একটি ঢেউ ছিল। কিন্তু সেই সময় শিবসেনা উত্তর ভারতের নির্বাচনে লড়াই করেনি। ভাজপার হয়েই কাজ করেছিল। কিন্তু সেই সময় যদি শিবসেনা উত্তর ভারতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করত তাহলে এতদিন ভারতে তাঁর দলেরই কোনও নেতাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে পেত।

ভাজপার ইউজ এন্ড থ্রো পলিসি

শিবসেনার সঙ্গে জোট ভাঙার পর ভাজপা যে ছোট দলগুলির সঙ্গে জোট বেঁধেছে, তা নিয়েও উদ্ধব ঠাকরে বলেন, বিজেপির নীতি হল ইউজ অ্যান্ড থ্রো। নিজেদের স্বার্থ ফুরিয়ে গেলেই ওরা ছু়ঁড়ে ফেলে দেয়। মনে আছে সেই দিন, যখন ভাজপা প্রার্থীরা নির্বাচনে নিজেদের জমা রাখা টাকা হারাত? সেই সময় ওদের প্রয়োজন পড়েছিল আমাদের। কিন্তু এখন এই নতুন হিন্দুত্ববাদীরা কেবল নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য হিন্দুত্বকে ব্যবহার করছে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এর উদ্দেশ্যে শিব সেনার বিরুদ্ধে একা লড়াই এর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে উদ্ভব ঠাকরে বলেন, আসুন দুটি রাজনৈতিক দল হিসাবে লড়াই করি আমরা। এর মাঝখানে ইডি বা আয়কর বিভাগকে ব্যবহার করা সঠিক হবে না।

পাল্টা আক্রমণে ভাজপা

শিবসেনা সুপ্রিমো তথা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে এই আক্রমণের জবাব দিতে গিয়ে ভাজপা আসরে নামিয়েছে মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশকে ( Devendra Fadnabis )। ফড়নবিশের দাবি, শিবসেনার সিলেক্টিভ মেমোরি রয়েছে। মুম্বইয়ে পুরসভায় যখন ভাজপার সদস্য ছিল, সেই সময় শিবসেনার জন্ম হয়নি। রাম জন্মভূমির প্রচারের সময়ে তিনি কোথায় ছিলেন? সেই সময় ভাজপা কর্মীরা গুলি খেয়েছিল, তবে হাতে লাঠিও তুলে নিয়েছিল। আর এখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে অযোধ্যায় রামমন্দির ( Ayodhya Ram Temple ) তৈরি হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here