করোনা পজিটিভ মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প ও স্ত্রী মেলানিয়া

0

Last Updated on October 2, 2020 6:18 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন: এবার করোনা হানা দিল হোয়াইট হাউসে। কিছুক্ষণ আগেই করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের। নিজেই ট্যুইট করে জানিয়েছেন সে-কথা। ট্যুইটে ট্রাম্প লিখেছেন, আমি ও আমার স্ত্রী দু’জনেই কোভিড পজিটিভ। দুজনে মিলে কোয়ারেন্টাইনে থেকে দ্রুত সুস্থ হওয়ার চেষ্টা করব। একসঙ্গে এর মোকাবিলা করব। ফার্স্ট লেডি মেলানিয়াও টুইটে তাদের কোভিড ১৯ পজিটিভ হওয়ার কথা জানান । বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারীর আকার নেওয়া সত্ত্বেও, কোনরকম সতর্কতা না নিয়েই প্রথম থেকে মাস্ক না পরার পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে স্কুল কলেজ খুলে দেওয়া এবং ভোটের প্রচারে নেমে পড়ার সিদ্ধান্ত নেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প।

- Advertisement -

এর আগে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও উপদেষ্টা হোপ হিকস করোনা আক্রান্ত হন। ইদানীং মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিভিন্ন সফরে সঙ্গী ছিলেন হোপ। এয়ারফোর্স ওয়ানেও ট্রাম্পের সঙ্গে সফর করেন তিনি । তাই এই খবর পাওয়া মাত্রই ট্যুইট করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, তিনি ও মেলানিয়া কোয়ারেন্টাইনে আছেন। অপেক্ষা করছেন করোনা পরীক্ষার ফলের জন্য। ট্রাম্পের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে তাঁর আরোগ্য কামনায় টুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ।
এর আগে, গত জুলাই মাসেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ মহলে হানা দেয় করোনা। এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হন প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন। তাঁর করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রবার্ট ও’ব্রায়েন প্রথম মার্কিন প্রশাসনের উচ্চ পদস্থ আধিকারিক যিনি এই করোনায় আক্রান্ত হন। এ ছাড়াও আরও অনেক কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলির শীর্ষে থাকা আমেরিকায় এখনও পর্যন্ত ৭২ লক্ষেরও বেশি মানুষ কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২ লক্ষেরও বেশি আমেরিকানের। কিন্তু তারপরেও মার্কিন প্রেসিডেন্টের মধ্যে কোনও হেলদোল দেখা যায়নি । বরং যত বেড়েছে সংক্রমণ ততই বেশি আনলক হয়েছে আমেরিকা। গবেষক ও চিকিৎসক ডেভিড ফৌসি বারবার হুঁশিয়ার করা সত্ত্বেও অফিস, স্কুল, কলেজ, শপিং মল, থিয়েটার খুলে দিয়েছেন ট্রাম্প । এমনকি সরকারি করোনা পরীক্ষার আর দরকার নেই বলেও মন্তব্য করেন । রাজনীতিকদের মত, সামনেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন । তার আগে নিজের গদি বাঁচাতে এই মারাত্মক স্ট্ান্স ট্রাম্পের ।
জানা গেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে তার উপদেষ্টা হিকস সম্প্রতি বেশ কয়েকটি স্থানে ভ্রমণ করেছেন। এমনকি মঙ্গলবার ক্লিভল্যান্ডে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের প্রথম বিতর্কেও তিনি ট্রাম্পের সঙ্গী হয়েছিলেন।
আসন্ন মার্কিন নির্বাচন সামনে রেখে মঙ্গলবার টিভি বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন ট্রাম্প। তার সঙ্গে এয়ারফোর্স ওয়ানে করে ওহিওতে গিয়েছিলেন উপদেষ্টা হিকস।
এমনকি বুধবারে হেলিকপ্টার মেরিন ওয়ানে চড়তেও ট্রাম্পের সঙ্গী ছিলেন ৩১ বছর বয়সী হিকস। এদিন মিনোসোটায় নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন ট্রাম্প। সেখানে একই বিমানে করে যান ট্রাম্প ও তার উপদেষ্টা হিকস, কুশনার, ড্যান স্ক্যাভিনো ও নিকোলাস লুনা। তাদের কেউ-ই মাস্ক পরা ছিলেন না।
সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে বিরোধী প্রার্থী জো বিডেনের মাস্ক পরা নিয়েও ব্যঙ্গ করেন ট্রাম্প । খোলাখুলি বলেন আমি মাস্ক পরা বা দূরত্ববিধি নিয়ে মাথা ঘামাই না । পাল্টা বিডেনও বলেন, আজ রাষ্ট্রপ্রধান মাথা ঘামালে অন্তত ১ লক্ষ দেশবাসীর মৃত্যু ঠেকানো যেত । এবার উদাসীনতার ফল প্রেসিডেন্টকেই ভুগতে হবে বলে মনে করছেন মার্কিনীরা। ভোটের আগে ধাক্কা খেল তার প্রচার । এখন সম্পূর্ণ সেরে না ওঠা পর্যন্ত হোয়াইট হাউসেই বন্দী সস্ত্রীক ট্রাম্প ।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here