বিজেপির ক্ষ্যাপা দূত কঙ্গনা শিবসেনার বিরুদ্ধে আসরে

0
1999

৩৬৫ দিন: মুম্বই। সুশান্ত সিং রাজপুতের অস্বাভাবিক মৃত্যু অথবা হত্যার পেছনে কারা আছে তা খুঁজে বের করা নয়, কঙ্গনা রানাওয়াত আসলে বিজেপির ভাড়াটে সেনা অথবা টকিং ডল। শিবসেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত এর কথায় লাউড স্পিকার। তাই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের আশীর্বাদ ধন্য কঙ্গনা রানাওয়াত যে মোটেই সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্যের সমাধান নিয়ে বিন্দুমাত্র চিন্তিত নন, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে গোটা দেশের মানুষের কাছে। কঙ্গনার একমাত্র উদ্দেশ্য হলো মহারাষ্ট্রে কংগ্রেস শিবসেনা এবং এনসিপি জোটের সরকারের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি করে যেনতেন প্রকারেণ আবার বিজেপিকে ক্ষমতায় ফেরানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া। তার জন্য কখনো সোনিয়া গান্ধীকে বিদেশিনী বলে আক্রমণ, আবার কখনো বা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী তথা শিবসেনা সুপ্রিমো উদ্ধব ঠাকরে কে তুই তোকারি করে অশালীন গালিগালাজ করা।
আবার অমিত শাহের আশীর্বাদ ধন্য কঙ্গনাকে বিমানে ধাওয়া করা এবং এয়ারপোর্ট এর মধ্যেই ওয়াই ক্যাটেগরির সিকিউরিটি গার্ড পরিবৃত কঙ্গনার ছবি তোলার প্রতিবাদ না করায় ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের বিরুদ্ধে কড়া হুঁশিয়ারি দিল দেশের অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক। সেইসঙ্গে দেশের সমস্ত বিমান সংস্থার জন্য আজ সকালেই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে ভবিষ্যতে এমন কোনও ঘটনা ঘটলে সেই রুটে সংশ্লিষ্ট বিমান সংস্থার ফ্লাইট পরেরদিন সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হবে শাস্তি হিসেবে।
দিল্লিতে বসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশে মহারাষ্ট্রে কঙ্গনা রানাওয়াতকে প্রতিনিয়ত লোকবল এবং রাজনৈতিক পরামর্শ দিয়ে চলেছেন মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। দেবেন্দ্র ফড়নবিশকে আসন্ন বিহার বিধানসভা নির্বাচনের পর্যবেক্ষক নিয়োগ করে বিজেপি বুঝিয়ে দিয়েছে বিহার নির্বাচনে সুশান্তের মৃত্যুকে ইস্যু করতে যে কোনও সীমালংঘন করতে প্রস্তুত। তাই বিহার বিধানসভার নির্বাচনের দায়িত্ব পাওয়া মাত্রই দেবেন্দ্র ফড়নবিশ সুশান্ত সিং রাজপুতের ছবিসহ পোস্ট আর গোটা বিহারের ছড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ঘোষণা করেছেন যতক্ষণ না সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পেছনে দায়ী তা খুঁজে বের করতে পারে ততক্ষণ বিজেপি বসে থাকবে না।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here