বিজেপি আরএসএস আর বিশ্বভারতীর যৌথ টার্গেটে অমর্ত্য

0

Last Updated on December 26, 2020 9:13 PM by Khabar365Din

বিজেপি আরএসএস আর বিশ্বভারতী

- Advertisement -

যৌথ টার্গেটে অমর্ত্য

মুখ খুলেছেন অমর্ত্য

বিশ্বভারতীর ছােটলােকামি ঢাকা যাচ্ছে না 

রাজনৈতিক উদ্দেশ্যটা কী তা 

মুখ্যমন্ত্রী আমায় চিঠিতে জানিয়েছেন

আমাদের জমি 

দীর্ঘমেয়াদী লিজে

৩৬৫ দিন। শান্তিনিকেতনে আমার জন্ম, সেখানেই বড় হয়েছি, তাই সেখানকার নিজস্ব ঐতিহ্যের সঙ্গে বিশ্বভারতীর বর্তমান উপাচার্যের সংস্কৃতির বড় রকমের তফাতের বিষয়ে আমি আলোচনা করতেই পারতাম। এটাও জানি যে, তিনি দিল্লির কেন্দ্রীয় সরকারের বলে বলীয়ান। কিন্তু আমি যা করার, ভারতের আইনের সাহায্যেই করতে চাইব। শান্তিনিকেতনে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের পৈতৃক বাড়ি প্রতীচী দখলের জন্য বিশ্বভারতীর অপচেষ্টা সম্পর্কে মমতার সমর্থনের পরে দ্য টেলিগ্রাফে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এ কথা জানালেন অমর্ত্য সেন নিজেই। শুধু তাই নয়, দেশের যে সমস্ত একনায়কতান্ত্রিক এবং ধর্মান্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ শক্তি তাঁর বিরুদ্ধে দমনমূলক নীতি গ্রহণের চেষ্টা চালাচ্ছে, সেইসব অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই প্রসঙ্গে অমর্ত্য সেন জানান, নিজের মনের জোর সংগ্রহের জন্য হয়তো অনেক কাল আগে অবনীন্দ্রনাথের আঁকা আমাদের বাড়ির ছবিটির, বা অনুরূপ নানা সম্পদের সাহায্যও নিতে পারি।প্রসঙ্গত, শুক্রবার সরাসরি নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে চিঠি লিখে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বভারতীতে কিছু নব্য বহিরাগত আপনার পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে আশ্চর্যজনক এবং ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলতে শুরু করেছেন। এতে আমি বেদনাহত এবং দেশের সংখ্যাগুরুদের ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে যে লড়াই আপনি শুরু করেছেন, আমি তাকে পূর্ণ সমর্থন জানাই। এই লড়াই-ই আপনাকে এই সব অসত্য শক্তির শত্রুতে পরিণত করেছে।মমতার চিঠি প্রসঙ্গে অমর্ত্য সেন বলেন, মুখ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে সহানুভূতি জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন, তাতে দুঃখ করার কিছু নেই। কিন্তু হঠাৎ বিশ্বভারতী থেকে এরকমভাবে মিথ্যে কথা বলা শুরু করল কেন..সেটার বোধহয় রাজনৈতিক কারণ থাকতে পারে। আর সেই কারণটা কী হতে পারে, সে নিয়েও মুখ্যমন্ত্রী দু’এক কথা বলেছেন। আমায় চিঠিতেও বলেছেন।বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ অথবা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিজেপি এবং আরএসএস নেতারা যেভাবে অমর্ত্য সেনের বাড়ি বিতর্কে তাঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে চলেছেন, সেসব মন্তব্যকে গুরুত্ব না দিয়েই বিশ্ববরেণ্য অর্থনীতিবিদ জমি বিতর্কে শুধু এটুকু জানিয়েছেন, বিশ্বভারতীর যে জমিতে আমাদের বাড়ি, সেটির দীর্ঘমেয়াদি লিজ নেওয়া আছে, এবং সেই লিজের মেয়াদ ফুরোতে এখনও বহু দেরি। আমার বাবা নিজে আরও কিছু জমি কিনেছিলেন, সুরুল মৌজার সরকারি খতিয়ানে তার মালিকানার তথ্যও যথাবিধি নথিভুক্ত আছে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here