মমতার ভোটে দায়িত্বাধীন ফিরহাদের মতে, খুব ভালো ভোট হয়েছে, ভাজপার সব অভিযোগ মিথ্যা

0

Last Updated on September 30, 2021 11:56 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

রিপোর্ট: শুভায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়, ইন্দ্রনীল সাহা

ছবি: অভীক দাস, কুণাল মালিক


৩৬৫ দিন। মেঘ ছিল, বৃষ্টিও, তবু সব রেকর্ড পার করে ভবানীপুর উপনির্বাচনে এযাবৎকাল পর্যন্ত সবথেকে বেশি ভোট পরল শুক্রবার। উপনির্বাচনে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ভবানীপুরে ভোট পড়ল ৫৩.৩২ শতাংশ।‌ যা ভবানীপুরের 2011 তুলনায় বেশি। অন্যদিকে সামশেরগঞ্জে ৭৮.৬০ শতাংশ এবং জঙ্গিপুরে ৭৬.১২ শতাংশ ভোট উপনির্বাচনে পড়েছে। এদিন সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার হয়ে ছিল, তবু ছাতা মাথায় দিয়ে ভবানীপুরের একাধিক বুথে মানুষ লাইন দেয় ভোট দেওয়ার জন্য। এদিন সকালে হঠাৎ করেই ভবানীপুরের চেতলা অঞ্চলে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সিপিএমের বুথে গিয়ে বসেন। সিপিএমের বুথে তখন উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা বাবলু হালদার, শ্রীকান্ত প্রামানিকরা। সকাল-সকাল সৌজন্য বিনিময়ের পাশাপাশি চলে এলো মাটির ভাঁড়ে লাল চা। লাল চা নিয়ে চলল বেশ কিছুক্ষণ আড্ডা, এরই মাঝে সিপিএম কর্মীরা দেখে নিচ্ছিলেন নামের তালিকা। সকাল 8:35, ততক্ষণে 70, ৭১, ৭৪ নম্বর ওয়ার্ড সহ সবকটি ওয়ার্ডেই জোরকদমে চলছে ভোট দান পর্ব। ভবানীপুরের আলিপুর রোড কেএমসি প্রাথমিক বিদ্যালয় 124 নম্বর বুথে একটি ভিভিপ্যাট মেশিন বিকল দেখা দেয় ভোট শুরু হওয়ার আগেই। ব্যাস আর এই ধরনের কোনো অভিযোগ আসেনি। ফিরহাদ হাকিমের চা পান পর্ব শেষ হয়ে গেলেই ফিরহাদ হাকিম বলেন, “সৌজন্যতা আগে, ওরা আমার পাড়ার ছেলে, আদর্শগতভাবে ওরা অন্য রাজনৈতিক দল করতে পারে, কিন্তু ওদের বিপদে আপদে আমি আছি।” সকাল 8:15, এবার থেকেই ভাজপার হয়ে পথে নেমে পড়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। ভবানীপুরের বেশ কয়েকটি চায়ের দোকান অধিকাংশই ফাঁকা ছিল জোর করে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। সকাল নটা পর্যন্ত ভবানীপুরে ভোট পড়ে গিয়েছে ৭.৫৭ শতাংশ। “খড়দহ আমিই জিতব”, ভবানীপুরের কাছারিপাড়া বেলা 11 টা ৮ মিনিট। সপরিবারে ভোট দিলেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং ভোট দিয়ে বেরিয়ে এসে এ কথাই জানালেন তিনি। এরইমধ্যে ফিরহাদ হাকিম এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায় কে নজর বন্দি করার আর্জি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানান ভাজপা শিবির। বেলা বারোটা ৮ মিনিট, ভাজপা প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল ভবানীপুরের এক বুথের সামনে গাড়ি নিয়ে ভিড় করেন। ইচ্ছাকৃতভাবে ভিড় করার ফলে ভোট প্রক্রিয়া ধীর স্থির হয়ে পড়ে।‌ তখনই সাধারণ মানুষ ভাজপা প্রার্থীর ওপর প্রবলভাবে রেগে যায় এলাকার মানুষ। প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তারা। নিজে গাড়ি চালিয়ে ভবানীপুর ভোটকেন্দ্রে আসেন মদন মিত্র, সঙ্গে ছিলেন তার দিদি। এরইমধ্যে ভোটারদের ক্রমাগত বিরক্ত করা শুরু করেন ভাজপা প্রার্থী। প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল এর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে দ্বারস্থ হয় তৃণমূল। এদিন ফিরহাদ হাকিম বলেন, “আমরা কোন প্রার্থীর নাম করে টুইট করিনি। ‌পেন কলম আছে অভিযোগ জানাবে। চিঠি পেলে জবাব দেব। সকাল থেকে অমিত মালব্য টুইট করছেন তাকে কিছু বলছেন না কেন?” দুপুর দুটো 7 মিনিট, তৃণমূলের বিরুদ্ধে করা বিজেপির তেইশটি অভিযোগ খারিজ করল ভবানীপুরের ডিইও অভনীন্দ্র সিং। এই সময় সপরিবারে চেতলা বয়েজ স্কুলে ভোট দিলেন ফিরহাদ হাকিম একই সময় টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার অভিযোগে শেক্সপিয়ার সরণি থানার দ্বারস্থ হলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তিনটে 13 মিনিট, সবেমাত্র বৃষ্টি থেমেছে, মিত্র ইন্সটিটিউশন এসে ভোট দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিট থেকে বেরিয়ে সোজা ভোটকেন্দ্রে পৌঁছান তিনি। পথে বেশ কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। মাত্র 4 মিনিট ভোটকেন্দ্রে ছিলেন মমতা। তারপর প্রত্যেককে নমস্কার জানিয়ে বাড়ি ফিরে গেলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা ভবানীপুরে তৃণমূলের প্রার্থী। বাবাকে সঙ্গে নিয়ে মিত্র ইন্সটিটিউশন এ ভোট দিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। এর মাঝে শরৎ বোস লেনে বিজেপি নেতার কল্যান চৌবে এর গাড়ি ভাঙচুর করে স্থানীয় উত্তেজিত জনতা। বাংলায় নির্বাচন কেমন হচ্ছে,? ফোন করে খোঁজ নিলেন ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ভবানীপুরে ভোটদানের হার সর্বাধিক ৫৩.৩২ শতাংশ। বৃহস্পতিবার উপনির্বাচনে ভবানীপুর সহ সামশেরগঞ্জ, জঙ্গিপুরে যেভাবে সর্বাধিক ভোট পড়ল তা এককথায় সাধারণ মানুষের ভোটদানকেই স্বীকৃতি দেয়।

ব্রাত্য বসুর টুইট

আজকের উপনির্বাচন আমাদের হৃদয়ের নেত্রীকে ৫০ হাজারের বেশি ব্যবধানের ভোটে শুধু জেতাবেই না, সমসাময়িক সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে বিশেষ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। মমতা ব্যানার্জী বিজেপি ও তার সহকারী সাম্প্রদায়িক দলগুলির কাছে ত্রাস হয়ে আবির্ভূত হয়েছেন।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here