কেন্দ্রীয় সরকারের চলচ্চিত্র উৎসব কেলেঙ্কারি,রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় ব্রাত্যর ছবি শেষ মুহূর্তে তালিকা থেকে প্রত্যাহার

0

Last Updated on November 12, 2021 12:30 AM by Khabar365Din

৩৬৫দিন। বাছাই হওয়ার পরও গোয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে বাদ পড়ল ব্রাত্য বসু পরিচালিত ছবি ‘ডিকশনারি’। পরিচালকের দাবি, ‘নাম বিভ্রাট’-এর কারণ দেখিয়ে সিনেমা বাদ দেওয়া হয়েছে। অথচ ৫২ তম জাতীয় ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এর তরফ থেকে বাংলা থেকে পাঁচটি ছবির মধ্যে এই ছবিটি মনোনীত হওয়ার সংবাদ দেওয়া হয়, শুভেচ্ছা বার্তা আসে, গোয়ায় পানাজিতে স্ক্রিনিং এর সময় উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণও আসে। অথচ সংবাদপত্রে প্রকাশের পরেই সব রাতারাতি উল্টে গেল। বার্লিন কিংবা রোম ফেস্টিভ্যাল থেকে প্রশংসা কুড়িয়ে আসা বুদ্ধদেব গুহর দুটি ছোট গল্প অবলম্বনে এই ছবির কোথাও রাজনীতির ছোঁয়া ছিল না।  সাংবাদিক বৈঠক করে ব্রাত্য বসু জানান, তাঁর সিনেমা ‘ডিকশনারি’ বাদ দেওয়া হয়েছে গোয়া চলচ্চিত্র উৎসব থেকে। তিনি বলেন, ইমেলে নামের ভুল বানানের কারণ দেখিয়ে সিনেমা বাদ দেওয়া হয়েছে। প্রযোজককে ডিকশনারি বাদে অন্য সিনেমা পাঠাতে বলা হয়। তাঁর যুক্তি, ওয়েবসাইটে নামের বানান ঠিকই লেখা আছে। গোটা ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে বলেই দাবি ব্রাত্য বসুর। তাঁর ধারণা সিনেমা নির্বাচিত হয়ে যাওয়ার পর নিশ্চয়ই ব্রাত্য বসুর রাজনৈতিক পরিচয় সম্পর্কে জানতে পারে চলচ্চিত্র উৎসবে কর্মকর্তারা। এরপর ‘দিল্লির কর্তা’দের নির্দেশেই তাঁর ছবি বাদ পড়েছে বলে দাবি ব্রাত্যর। তাঁর সঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলনে ছিলেন ছবির প্রযোজক ফেরদৌস হাসান। তাঁরা দুজনেই তথ্য দিয়ে জানান,৫ নভেম্বর প্যানোরমার তরফে ২০২১-এর ফিচার ফিল্ম ক্যাটেগরিতে নির্বাচিত ২৫টি ছবির তালিকা ঘোষিত হয়।

- Advertisement -

এগুলির মধ্যে পাঁচটি বাংলা ছায়াছবি। সেখানে পঞ্চম চলচ্চিত্রের নাম ছিল ব্রাত্যর পরিচালিত ‘ডিকশনারি’।’এরপর ফের একটি সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করা হয় যেখানে ছবির সংখ্যা ২৫ থেকে কমে ২৪ হয়ে যায়। দেখা যায় একটিমাত্র বাংলা ছবি বাদ গেছে, ‘ডিকশনারি’।’ কারণ হিসেবে জানানো হয় ইমেলে, পরিচালকের নামের বানান ভুল লেখা রয়েছে, ব্রাত্য ইংরাজি বানানে বি অক্ষরের বদলে নাকি ইংরেজি ডি অক্ষর লেখা হয়েছে। মনে পরিচালকের নাম ড্রাত্য হয়ে গিয়েছে। ফলে সেটিকে ‘বড় ভুল’ হিসেবে দেখিয়ে ছবির মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।এরপর মনোনয়নের নির্ধারিত দিন পেরিয়ে যাওয়ায় আমার প্রযোজককে বলা হয় যেকোনও ছবি পাঠান, কিন্তু ডিকশনারি নয়। ব্রাত্য বসুর দাবি, ছবিটি বাদ দেওয়া হয়েছে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক কারণে। ‘জুরিরা ছবি দেখে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছিলেন। এটি আন্তর্জাতিক স্তরে পুরস্কৃত একটি ছবি। করোনাকালের পর মুক্তি পাওয়া এটি প্রথম বাংলা ছবি। সেই সময়েও এই ছবিটি হাউজফুল ছিল।ছবিটি নির্বাচিত হওয়ার পর কোনওভাবে তাঁদের কাছে খবর যায়, আমার রাজনৈতিক পরিচয়ের কথা ওঠে। ফলত ছবিটি বাদ দেওয়া হচ্ছে।
গোটা ঘটনার পিছনে যে ভাজপার নোংরা রাজনীতি রয়েছে

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here