১২ বোরোতে ৮টি ক্যানসার স্ক্রিনিং সেন্টার পুরসভার,চলছে পরীক্ষা নিরীক্ষা

0

Last Updated on August 6, 2022 10:48 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। নতুন উদ্যোগ কলকাতা পুরসভার।ক্যান্সারের কোনও উপসর্গ রোগীদের মধ্যে আছে কি না,তা পরীক্ষা করে জানিয়ে দেবেন চিকিৎসকরা৷ক্যানসার চিহ্নিত করতে এবার আরও তৎপর কলকাতা পুরসভা।এবার কলকাতা পুরসভার মেয়র ক্লিনিক-সহ প্রতিটি বরোতে চালু হয়েছে ক্যানসার স্ক্রিনিং কেন্দ্র।সেখানেই চলছে সমস্ত পরীক্ষা নিরীক্ষা।

পুরসভার প্রতিটি বরোর একটি করে আরবান প্রাইমারি হেল্থ সেন্টারে এই স্ক্রিনিং সেন্টার খোলা হবে বলেই জানা গিয়েছে।বলা বাহুল্য,পুরসভার এমন উদ্যোগের ফলে বহু সংখ্যক মানুষ উপকৃত হবেন।সাধারণত বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রোগীর অসচেতনতার কারণে ক্যানসার ধরে পড়ে একেবারে শেষ পর্যায়ের কাছাকাছি সময়ে।আর তার ফলে বাঁচানো সম্ভব হয় না সেই ক্যানসার আক্রান্ত রোগীকে।

এবার সেই দৃশ্য বদলাতে চলেছে।বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন,কলকাতা পুরসভার  মেয়র ক্লিনিক-সহ প্রতিটি বরোর একটি করে আরবান প্রাইমারি হেল্থ সেন্টারে ক্যানসার স্ক্রিনিং কেন্দ্র চালু হলে অনেক আগেই অর্থাৎ ক্যানসারের প্রথম পর্যায়ে ধরে ফেলা যাবে উপসর্গ।আর তারপর দ্রুত চিকিৎসা শুরু করে দেওয়া সম্ভব হবে।ফলে ক্যানসার আক্রান্ত রোগী প্রাণে বেঁচে যাবেন।

ইতিমধ্যে কলকাতা পুরসভার কোন বরোর হেল্থ সেন্টারে কবে ক্যানসারের স্ক্রিনিং হবে তা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতা পুরসভার তরফে।কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, ইতিমধ্যেই এই ধরনের সেন্টার নির্মানের এনওসি পুরসভা দিয়েছে।এমন বেশ কিছু নামী বেসরকারি হাসপাতালে এই ধরনের রেফারেলের জন্য দশটি করে বেড এর কোটা রাখতে বলা হয়েছে।সেখানে পুর স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে রেফার হওয়া ক্যানসার রোগীর চিকিৎসা হবে নিখরচায়।

এই বিষয়টি আরও জানা গিয়েছে,সামান্য উপসর্গ,ছোট্ট একটা টিউমার।বহুদিন ধরেই রয়েছে।গলায় ঢোঁক গিলতে গেলে লাগছে।মহিলাদের বুকের মাঝখানে একটা অস্বস্তিকর কোনও কিছুর অস্তিত্ব যা পরবর্তীকালে ক্যানসার হতে পারে।

ইতিমধ্যেই সেটি ম্যালিগন্যান্ট।আপনি বুঝতে পারছেন না।বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আমরা এগুলোকে ইগনোর করি। পরে যখন বাড়তে বাড়তে তা চরম পর্যায়ে যায়,তখন গেল গেল রব তুলে হাসপাতালে দৌড়াই। কিন্তু শেষরক্ষা হয় না অনেক ক্ষেত্রেই।স্ক্রিনিং সেন্টার ঠিক এখানেই গুরুত্বপূর্ণ রয়েছে বলেই জানা গিয়েছে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here