চা শ্রমিকদের মাথায় ছাদ দিলেন মমতা

0

Last Updated on February 2, 2021 10:28 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। আলিপুরদুয়ার। ভাজপা ভোটের আগে এসে বলে বাগান খুলবে। ভোট মিটলেই পালিয়ে যায়। চা বাগান আর খোলে না। উত্তরবঙ্গের ফালাকাটায় গণবিবাহের অনুষ্ঠানে চা শ্রমিকদের দেওয়া ভাজপা মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে কিভাবে তীব্র আক্রমণ করে মমতা জনতার উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, আগের বার ভোটের আগে বলেছিল ৭টা চা বাগান খুলবে। একটাও খুলেছে? খোলেনি। অপপ্রচার ছাড়া ওরা আর কিছু করেনি। আমরা ৯ টি চাবাগান খুলে দিয়েছি। এটি সামাজিক মঞ্চ। তাই আমি বেশি কিছু বলব না। সকলে ভালো থাকবেন। আমরা চা শ্রমিকদের মজুরি ৬৭ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০২ টাকা করেছি। চা সুন্দরী প্রকল্পেও আমরা ঘর দিলাম। গণবিবাহের অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে আক্রমণ শানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ভোটের সময় চা বাগানের শ্রমিকদের কথা মনে পড়ল? এতদিন কোথায় ছিলে। আদিবাসীরা আমাদের অহংকার। আমরা যা বলি তা করি। কিন্তু ওরা শুধুই মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেয়। উত্তরবঙ্গের এত সাংসদ, কিন্তু করেছেটা কী? কুৎসা আর অপপ্রচার ছাড়া আর কিছু কী করেছে? আমরা সব রাস্তা করে দিয়েছি, তারপর ওদের এখন মনে হচ্ছে রাস্তা করে দিতে হবে। কিন্তু কোথায় কী করবে, আমরা ত আগেই সব করে দিয়েছি। ওদের এই চালাকিতে ভুলবেন না। আমরাই ক্ষমতায় ফিরব। আমরাই আপনাদের পাশে থাকব। আমরাই আপনাদের জন্য কাজ করে যাব।
হোক না গণবিবাহের অনুষ্ঠান, তিনি তো বাড়ির মেয়ে। তাই পায়ে পা মিলিয়ে হাতে হাত ধরে নাচের আসরে যোগ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উত্তরবঙ্গের বুকে এমন ছবি ধরা পড়লো মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটায়। এদিন সেখানে আদিবাসীদের এক গণবিবাহের অনুষ্ঠানে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই তিনি আদিবাসী শিল্পীদের সঙ্গে আদিবাসী নৃত্যে যোগ দেন। এদিন ফালাকাটায় মিল রোডের গণ বিবাহের মঞ্চ থেকেই চা সুন্দরী প্রকল্পে উত্তরের ১২ চা বাগানের শ্রমিকদের ঘরের নথি বিতরনের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। ডুয়ার্সের সোনালী চা-বাগানের গোপাল ওঁরাও আর সিলবিনা ওড়াওরা বিয়ের আগেই একসাথে ঘর করতে শুরু করেছিলেন। মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন ঘটা করে তাদের বিয়ে দিল।
আলিপুরদুয়ার ও জলপাইগুড়ি জেলার মোট ৪৫০ জোড়া যুগলের গণ বিবাহের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী সামিল হয়েছিলেন। সামাজিক এই অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন আদিবাসী দম্পতিরা। বিয়ের পর আদিবাসী যুগলদের এদিন উপহারও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন গণবিবাহের মঞ্চ থেকেই ডুয়ার্সের ১২ টি চা বাগানের চা শ্রমিকদের চা সুন্দরী প্রকল্পে ঘরের নথি বিতরণ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৪৫০ জোড়া নবদম্পত্তির বিয়ের সাজ পোশাক ও অন্যান্য সমস্ত সরঞ্জাম প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে।
একেবারে আদিবাসী রীতি মেনে সরষের তেলে ভেজানো মাসকলাই রাখা প্রদ্বীপ জ্বালিয়ে বিয়ে হয় এই আদিবাসী দম্পত্তিদের। বিয়ের পর মহাভোজেরও আয়োজন করে প্রশাসন। ভাত, ডাল, বাঁধাকপির ঘন্ট, মুরগির মাংস, চাটনি, দই মিষ্টি একেবারে বিয়ের ভোজে যা থাকে সবই ছিল এই মহাভোজে। উল্লেখযোগ্যভাবে এদিনই এই ৪৫০ জোড়া আদিবাসী দম্পতিকে রুপশ্রী প্রকল্পে ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here