ধনকড়ের বিরুদ্ধে মহিলা কমিশনের অভিযোগ

0
3037

৩৬৫ দিন। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করার কারণে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ জমা পড়ল রাজ্য মহিলা কমিশনে। একটি অভিযোগ পত্রে সরাসরি উল্লেখ করা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর সম্পর্কে সম্মানহানিকর, নারীবিদ্বেষমূলক মন্তব্য করেছেন রাজ্যপাল। অন্য আরেকটি অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, রাজ্যের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ভুল তথ্য তুলে ধরেছেন রাজ্যপাল। কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী বুধবার এই বিষয়ে তারা জরুরি বৈঠক করবেন। উল্লেখ্য, কলকাতার বাসিন্দা সুস্মিতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগপত্রে যে দুটি টুইটের বয়ান তুলে ধরেছেন, তাতে একটি সর্বভারতীয় নিউজ চ্যানেল এবং অমিতাভ বচ্চনের টুইটার হ্যান্ডলকে ট্যাগ করা হয়েছে। ট্যাগ করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর টুইটার হ্যান্ডলকেও। অমিতাভের উদ্দেশে রাজ্যপাল সেখানে লিখছেন, ‘রাজ্যপাল হিসেবে আমি ইতিমধ্যেই হটসিটে বসে রয়েছি, কোনও লাইফলাইন ছাড়াই’। তিনি লিখছেন, মহানায়ককে অনুরোধ করেছি সেই মুহূর্তটা লক করতে, যখন আমি মমতাজির কাছ থেকে মমতা পাব। মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কে ধনখড় যা লিখেছেন, তা একজন মহিলার পক্ষে ‘সম্মানহানিকর’ বলে অভিযোগপত্রে লেখা হয়েছে। রাজ্যপালের ওই টুইট নারীবিদ্বেষী বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।
রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে গত সপ্তাহে এই চিঠিটি লিখেছেন অভিযোগকারিণী। অভিযোগপত্রে সুস্মিতা দাবি করেছেন যে, রাজ্যপালকে ওই টুইট পুরোপুরি সরিয়ে ফেলতে এবং প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে কমিশন নির্দেশ দিক। কমিশন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদ থেকে ধনখড়কে ইস্তফা দিতে বলুক কমিশন, এমন দাবিও অভিযোগপত্রে করা হয়েছে। আরেকটি অভিযোগপত্র জমা পড়েছে রাজ্য মহিলা কমিশনে, সেখানেও বিষয়বস্তু পৃথক হলেও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে রাজ্যপাল মুখ্যমন্ত্রীর সম্পর্কে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিকৃত তথ্য সকলের সামনে তুলে ধরেছেন। সাধারণত কমিশন এই ধরনের অভিযোগ পেলে সাইবার সেলের কাছে পুরো বিষয়টি তুলে ধরে। আগামী বুধবার এই দুটি অভিযোগ পত্র নিয়ে বৈঠকে বসছে কমিশন।

- Advertisement -

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here