স্বাস্থ্যসাথী কার্ড কখনও অস্বীকার করা যাবে না, হাসপাতালগুলিকে কড়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দফতরের

0
330

৩৬৫ দিন। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে হাসপাতালগুলিকে এবার কড়া বার্তা দিল স্বাস্থ্য কমিশন। কোনভাবেই অস্বীকার করা যাবে না স্বাস্থ্যসাথী কার্ড। গত দেড় মাস ধরে স্বাস্থ্যসাথী নিয়ে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ জমা পড়ছিল কমিশনে। সেই অভিযোগ নিয়েই আগামী ৩ নভেম্বর এক বিশেষ শুনানি করা হবে। প্রাথমিকভাবে অভিযুক্ত হাসপাতালগুলিকে কারণ দর্শানোর জন্যে নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের চেয়ারম্যান অসীম কুমার বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোকে ১০০ শতাংশ কাজে লাগিয়ে সফল করতে হবে এই প্রকল্পকে। তিন থেকে চারটি হাসপাতালের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে অভিযোগ উঠেছে। এই হাসপাতালগুলিতে স্বাস্থ্যসাথী চালু করেনি। তবে, বুধবার এই নিয়ে চার হাসপাতালের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।কমিশন আরও জানায়, রোগীকে ভর্তির মুহূর্তে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকলে, পরে চিকিৎসা চলাকালীন এই কার্ড দেখালেও, সেই মুহূর্ত থেকে মান্যতা দিতে হবে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডকে। পাশাপাশি, যে ধরনের পরিস্থিতি হোক না কেন, রোগী ফিরিয়ে দিতে পারবে না হাসপাতাল।

- Advertisement -

কোনভাবেই অস্বীকার করা যাবে না স্বাস্থ্য সাথী কার্ড। কোন রোগীর এই কার্ড না থাকলে নতুন করিয়ে আনলে সেই মুহুর্তে এটি গ্রহণযোগ্য হবে। এছাড়াও, চিকিৎসার প্যাকেজ মূল্যের দোহাই দিয়ে ফেরানো যাবে না রোগী। এক্ষেত্রে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য দফতরের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে। প্রসঙ্গত, হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বাধ্যতামূলক। সরকারি হাসপাতালে রোগী ভর্তি করে চিকিৎসার জন্যে হাসপাতালকে দেখাতে হবে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড। দিন দুয়েক আগেই এমনই জানিয়ে একটি নির্দেশিকা জারি করেছে স্বাস্থ্য দফতর। নির্দেশিকা অনুযায়ী, স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকলেও ভর্তি করা সম্ভব হবে রোগীকে। সেক্ষেত্রে, রোগীর কাছে রাজ্যের স্বাস্থ্য প্রকল্পের কার্ড, ইএসআই কার্ড অথবা কেন্দ্রের স্বাস্থ্য প্রকল্পের কার্ডের যে কোন একটি থাকতে হবে। তবে, কারও কাছে কোন কিছুই না থাকলে, সেক্ষেত্রে হাসপাতালের নির্দিষ্ট কেন্দ্র থেকে তৈরি করতে হবে কার্ড। তারপরই, সম্ভব হবে রোগী ভর্তি। অন্যদিকে, বেসরকারি হাসপাতালের জন্যেও জারি করা হয়েছে একটি নির্দেশিকা। যেখানে বলা হয়েছে, বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে ১৯০০ টি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। সরকার নির্ধারিত দামেই করতে হবে যাবতীয় পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজ। এছাড়া, প্যাকেজের বাইরে ৫ হাজার টাকার বেশি করা যাবে না।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here