বেচুবাবুর বেওসা এবার এয়ার ইন্ডিয়ার পর এলআইসি,উপভক্তাদের লভ্যাংশ ক্রমে কমে ৫০ শতাংশ

0

Last Updated on February 2, 2022 1:23 AM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন । কেন্দ্রীয় সরকারের (Government of India) ২০২২-২৩ সালের বাজেটে দেশের বৃহত্তম বীমা কোম্পানি এল এই সির (Life Insurance Corporation) বেসরকারিকরণের পথ প্রশস্ত করলো বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল । অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানিয়েছেন দ্রুত এই ইনিশিয়াল পাবলিক অফারিং ( আই পি ও) বাজারে আসছে । গত ২০২১-২২-এর বাজেটে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন (Nirmala Sitharaman) ১.৭৫ লক্ষ কোটি টাকার বেসরকারিকরণের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেন। সেখানে এই আই পি ও’ই ১ লাখ কোটি তুলে দিতে পারবে। কেন্দ্রীয় সরকারের করোনা সহ অন্যান্য খরচ সামাল দিতে প্রয়োজন প্রায় ২.১ লাখ কোটি টাকা । এই টাকা কেন্দ্রীয় কোষাগারে আনতে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু সরকারি সম্পদ বিক্রি করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিলগ্নিকরণ দফতরের মাধ্যমে । ইতিমধ্যেই এয়ার ইন্ডিয়াকে (Air India) টাটার (Tata) কাছে বিক্রি করা হয়েছে । নীলাচল ইস্পাত ও একই পথে চলেছে । তবে এল এই সি’র আই পি (LIC IPO) ও বিক্রিই যথেষ্ট বিতর্ক তুলেছে কারণ তাতে অতি সাধারণ মানুষও বিনিয়োগ করে থাকেন । সাধারণত এখনো পর্যন্ত বোনাস ও ডিভিডেন্ড এর পদ্ধতিতে এলআইসি তাদের ৯৫ শতাংশ মুনাফা তাদের লগ্নিকারীদের দিয়ে থাকেন । তবে এই প্রস্তাবিত ৫ থেকে ১০ শতাংশ শেয়ার আই পি ও বাজারে ছাড়লে এল এই সির বিনিয়োগকারীরা ৯৫ এর বদলে ৯০ লাভ পাবেন । ফলে কমতে পারে তাদের বোনাস ও ডিভিডেন্ড । অন্যদিকে বিদেশি বিনিয়োগ ২০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিয়ে রেখেছে কেন্দ্র । ফলে এখন যেমন এল এই সির মালিক সরকার ও তার লাভ পাচ্ছে বিনিয়োগকারীরাই এই আই পি ও বাজারে আসার পর বিদেশি সহ অন্য যে কেউ এই এই পি ও কিনে এল এই সির মালিকানা নিতে পারবে । যদিও এল এই সির যারা বিনিয়োগকারী তারাও ডিমাট একাউন্ট (Demat Account) ও প্যান কার্ড (Pan Card) থাকলে এই এই পি ও বা টুকরো মালিকানা কিনতে পারবে । তবে বাজার বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন ধীরে ধীরে ৫১ শতাংশ মালিকানাই রাখবে কেন্দ্রীয় সরকার । ফলে এই বেসরকারীকরণেই ভয় পাচ্ছে পলিসি হোল্ডাররা । ভারতীয় জীবন বীমা নিগম শেয়ার বিক্রি একেবারে নয়, বরং দুটি পর্যায়ে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সম্প্রতি দেশের সবথেকে বড় বিমা সংস্থার প্রথমবার শেয়ার ছাড়ার (আইপিও) প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটি (সিসিইএ)।প্রাথমিকভাবে আইপিও-র মাধ্যমে ৫%-৬% ইক্যুইটি বিক্রি হতে পারে সূত্রের অনুমান। এর পরে দ্বিতীয় ধাপে আরও এক বছর বাদে ৪%-৫% পাবলিক অফারিং হতে পারে। প্রাথমিকভাবে ১০ % ইক্যুইটি বিক্রি করার কথা বলা হয়েছিল। বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, এল আই সি’র -মোট বাজারমূল্য ১২-১৫ লক্ষ কোটি টাকা। এর ১০%, অর্থাতৎ ১.২-১.৫ লক্ষ কোটি টাকার অফারিং দেবে সংস্থাটি। এলআইসির বাজারমূল্য, মুনাফা সংক্রান্ত বিষয় খতিয়ে দেখার জন্য চলতি বছরের জানুয়ারিতে একটি বিশেষজ্ঞ সংস্থা নিয়োগ করেছিল কেন্দ্র। সেই কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর। এলআইসির বাজারমূল্য, মুনাফা সংক্রান্ত বিষয় খতিয়ে দেখার জন্য চলতি বছরের জানুয়ারিতে একটি বিশেষজ্ঞ সংস্থা নিয়োগ করেছিল কেন্দ্র। সেই কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here