নন্দীগ্রামে মমতাকে
হত্যার চক্রান্ত

0

Last Updated on March 10, 2021 8:13 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। নন্দীগ্রাম। নন্দীগ্রামে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র পেশ করার পরেই নক্বারজনকভাবে হত্যার চেষ্টা করা হলো মমতাকে। গুরুতর আহত মমতাকে রাতেই নন্দীগ্রাম থেকে কলকাতায় নিয়ে আসা হচ্ছে চিকিৎসার জন্য।আজ মনোনয়নপত্র পেশ করার পরে নন্দীগ্রামের বিভিন্ন মন্দির এবং গ্রামে গিয়ে জনসংযোগ কর্মসূচি চালাচ্ছিলেন মমতা। শেষে সন্ধ্যে সোয়া ছটা নাগাদ ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত রেয়াপাড়া মন্দিরে পুজো দিয়ে বেরোনোর পরে গাড়িতে ওঠার সময় তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে হঠাৎ করেই ধাক্কা দেয় ৪/৫ জন অপরিচিত ব্যক্তি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মমতা পড়ে যান গাড়ির ভিতরে। এখানেই না থেমে অজ্ঞাত পরিচয় আততায়ীরা মমতার গাড়ির দরজা সপাটে বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু গুরুতর আহত মমতা গাড়ির সিটের ওপরে পড়ে যাওয়াতে বাইরে থাকা বাঁ পায়ের ওপরেই সজোরে দরজা বন্ধ করার চেষ্টা করার ফলে বড় ধরনের চোট পান মুখ্যমন্ত্রী। ভিড়ের মধ্যে আচমকা ধাক্কা দেওয়ায় মুখ থুবড়ে পড়ে যান মমতা। কপালে ও মাথায় আঘাত লাগে তাঁর। আঘাত লাগে বাঁ পায়েও। সেইসময় ঘটনাস্থলে পুলিশের কেউ ছিল না বলে অভিযোগ। ছিলেন না বলে অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। দেহরক্ষীরাই কোনও রকমে তুলে গাড়িতে নিয়ে যান মমতাকে। মুখ্যমন্ত্রীর মাথায়, কপালে এবং পায়ে চোট লেগেছে বলে জানা গিয়েছে। তাই প্রচার মাঝপথে বন্ধ রেখেই কলকাতায় ফিরিয়ে আনা হচ্ছে তাঁকে। কিন্তু পথেই অসম্ভব যন্ত্রণা অনুভব করেন মমতা। রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে একটি দোকান থেকে বরফ নিয়ে তাঁর পায়ে দেওয়া হয়।
গোটা ঘটনায় ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মমতা। মমতা বলেন, ভিড়ের মধ্যে ৪-৫ জন বাইরে থেকে ঢুকে পড়েছিল। ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় আমাকে। ইচ্ছাকৃত ভাবে ধাক্কা মারা হয়। এর পিছনে ষড়যন্ত্র ছিল। বুধবার হলদিয়ায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে নন্দীগ্রামে ফিরে আসেন মমতা। সেখানে গাড়ি নিয়ে একাধিক মন্দিরদর্শন সারতে বেরিয়েছিলেন তিনি। সব শেষে রেয়াপাড়ায় যে বাড়ি ভাড়া নিয়ে রয়েছেন, সেখানকার রানিচকের একটি মন্দিরে হরিনাম-সঙ্কীর্তন শুনতে যান। সেখান থেকে বেরনোর সময়ই ভিড়ের মধ্যে থেকে তাঁকে ধাক্কা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ সামনে এসেছে।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here