জনগণমন পাল্টাবে
পাল্টে দেখুক একবার

0

Last Updated on December 16, 2020 11:24 PM by Khabar365Din

উত্তরবঙ্গে বিস্ফোরক মমতা


এখানে বিজেপি একটা নতুন ধর্ম তৈরি করেছে

সেটা হিন্দু ধর্ম নয়, সেটা ভেদাভেদের ধর্ম

- Advertisement -

বন্ধ চা বাগানের শ্রমিকদের মাসে ভাতা দেওয়া হয়

এবার চা শ্রমিকদের পাকা বাড়ি দেওয়া হবে


গোর্খা ব্যাটেলিয়ানের সদর দফতর হবে নকশালবাড়ি, নারায়ণী
সেনা ব্যাটেলিয়ানের সদর দফতর হবে কোচবিহার , জঙ্গলমহল
ব্যাটেলিয়ানের সদর দফতর হবে ঝাড়গ্রাম

বাংলা একমাত্র জায়গা যেখানে সরকার কোনাে অধর্ম কাজ করে না।

৩৪ বছর বামফ্রন্ট সরকার এখানে ছিল। কংগ্রেস বিজেপি ছােট ছােট জায়গায় এসেছে, গেছে। কিন্তু কোন কাজটা করেছে? ভাষণ দিয়ে সবকিছু হয়না। আমাদের কাজে কিছু ভুল ত্রুটি থাকতে পারে। যে কাজ করে সেই ভুল করে। 

সারা উত্তরবঙ্গে নতুন ধর্ম সৃষ্টি করেছে যেটা আমাদের হিন্দু ধর্ম নয়। শুধু ভেদাভেদের রাজনীতি করছে। জলপাইগুড়ি,আলিপুরদুয়ারের মানুষকে ভােটের আগে বলেছিল জিতলে সাতটা চা-বাগান খুলে দেবে। এখনাে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভাঁওতা দিচ্ছে।

মিথ্যে কথা, কুকথা অসত্য আর উল্টোপাল্টা কথা বলার জন্য এরা আছে।

মিথ্যে কথা, কুকথা অসত্য আর উল্টোপাল্টা কথা বলার জন্য এরা আছে।

ইলেকশন এলেই গাের্খাল্যান্ড দেবে বলে। আজ পর্যন্ত কটা গাের্খাল্যান্ড হয়েছে? দার্জিলিংয়ের পার্মানেন্ট সলিউশন করলে আমরাই করব।

আমাদের সরকার আসার পর পশ্চিমবঙ্গের রাজবংশী ও কামতাপুরী কে সরকারি ভাষার স্বীকৃতি দিয়েছি। রাজবংশী ডেভেলপমেন্ট এন্ড কালচারাল বোর্ড তৈরি করা হয়েছে। মােট ২৫ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। রাজবংশী আবাস যােজনায় ১১০০ বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। রাজবংশী শিল্পীদের মিউজিক ইন্সট্রুমেন্ট দেওয়া হয়েছে।কামতাপুরী ভাষা একাডেমী কামতাপুরী ভাষা সাহিত্য একাডেমী ৫ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। 

একটা গােখা ব্যাটেলিয়ন আর একটা নারায়ণী সেনা তৈরি করার দাবি ছিল। আমরা কোচবিহারে হেডকোয়ার্টার করে আমরা সেটা তৈরি করে দিচ্ছি। গােখা ব্যাটেলিয়ান এর হেডকোয়ার্টার হবে নকশালবাড়ি এবং জঙ্গলমহল ব্যাটেলিয়ানের হেডকোয়ার্টার হবে ঝাড়গ্রামে। 

চা সুন্দরী প্রকল্পে ৩৭০ টি চা বাগানের শ্রমিকরা যাদের পাকা বাড়ি নেই তাদের পাকা বাড়ি দেওয়া হবে।

আলিপুরদুয়ার ও জলপাইগুড়ির যে সাতটি চা-বাগান বন্ধ আছে তার মধধ্যে জলপাইগুড়ি ৩৬৯৪ ও আলিপুরদুয়ারের ২৬৪১ পরিবারকে ফাস্ট ফেজে বাড়ি তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে।

বন্ধ চা বাগানের ৪০০০ শ্রমিককে মাসে মাসে দেড় হাজার টাকা করে দেওয়া হয়।

আসামের চা বাগানে শ্রমিকদের ১১ টাকা করে দিতে হয়, কুড়ি কেজি করে খাদ্যশস্য পায়। আমাদের এখানে বিনা পয়সায় ৩৭ কেজি করে দেওয়া হয়।

বাংলা কাউকে বঞ্চিত করে না। আমরা সবকিছুই প্রায় করেছি যেটুকু বাকি আছে দুয়ারে সরকারের মধ্য দিয়ে এপ্লাই করুন। করে দেবাে আমরা।

যে ক্ষমতায় থাকে আর যে ক্ষমতায় থাকে না দুটো। পার্থক্য আছে যে ক্ষমতায় থাকে সে চেষ্টা করে কাজ করবার, মিথ্যা কথা বলে না। যে ক্ষমতায় থাকে না, সে ভাবে ইচ্ছামতাে মিথ্যা কথা বলে, বাইরে থেকে গুন্ডা দিয়ে দাঙ্গা বাধানাের। ভােটটা চলে গেলে তারপর লবডঙ্কা। লঙ্কায় গিয়ে রাবণ হবে।

বাইরে থেকে কিছু আরএসএস-এর লোেক এলাে। এরা রামকৃষ্ণ মিশন নয় ভারত সেবাশ্রম নয় এরা ভিন্ন ধর্মের লোক।

রবীন্দ্রনাথের জনগণমন অধিও বদলে দিতে চাইছে। একবার পাল্টে দেখাে। তারপর উল্টোটা কিভাবে হয় আমরা জানি। মিথ্যে রটাবে, রাতের অন্ধকারে বাড়িতে ঢুকবে।

আমি শান্তিপ্রিয় লােক আমার গায়ে আঘাত করলে আমি যখন প্রত্যাঘাত করব তখন কোটি কোটি গুন্ডা এনেও তা প্রতিহত করতে পারবে না।

একটা ভিআইপি যখন যায় তখন তার নিজস্ব একটা কনভয় থাকে। কিন্তু তার কনভয়ের পেছনে কেন অন্যান্য গাড়ি যাবে ?জেল ফেরত আসামিও তার কনভয়ে যাবে কেন?

একটা ভিআইপি যখন যায় তখন তার নিজস্ব একটা কনভয় থাকে। কিন্তু তার কনভয়ের পেছনে কেন অন্যান্য গাড়ি যাবে ?জেল ফেরত আসামিও তার কনভয়ে যাবে কেন?

৩৬৫ দিন যারা এই দলের সঙ্গে ছিলেন তাদেরই পরীক্ষা দিতে হবে। আর এমন পরীক্ষা দেবেন যাতে আর কোনাে দিন বিজেপি পরীক্ষায় বসতে সাহস না পায়। আজকে আপনাদের লক্ষ্য বিজেপি নামক পার্টি টাকে বাংলা থেকে দূর করে দাও। আগামী দিনে বাংলাই পথ দেখাবে।

সারাক্ষণ ৩৫৬ চমকানি ধমকানি দিচ্ছে। করুক | না করে দেখান না। আমার কাজ কমে যাবে আর আমি সারাদিন মিছিল-মিটিং করে বেড়াবাে।

আমরা কাজ করি, আর বিজেপি একটাই কাজ পারে এনআরসির গাট্টা মারতে পারে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here