মতুয়া টেরিটরিতে শীতের দুপুরে ভাজপার বিদ্রোহী নেতাদের পিকনিক,মেনুতে চিকেন কষা, মাছের কালিয়া

0
290
Advertisement

Last Updated on January 17, 2022 9:39 PM by Khabar365Din

৩৬৫দিন। ভাজপার বিদ্রোহী নেতাদের পিকনিক। গত কয়েকদিনে কখনো আড়ালে আবার কখনো প্রকাশ্যে বৈঠকের পর এবার শীতের দুপুরে বনগাঁর নহাটায় পিকনিকে মজলেন ভাজপার বিদ্রোহী নেতারা। সোমবার দুপুরে গোপালনগর দক্ষিণ মন্ডলের সভাপতি হরিশঙ্কর সরকারের বাড়িতে পিকনিকের আয়োজন করা হয়েছে। বনগাঁর সংসদ শান্তনু ঠাকুর,গাইঘাটা বিধায়াক সুব্রত ঠাকুর ও নাদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক আশীষ কুমার বিশ্বাস, বনগাঁ উত্তরের বিধায়ক অশোক কীর্তনীয়া ছাড়াও পিকনিকে যোগ দিয়েছেন রাজ্য ভাজপার বিক্ষুব্ধ নেতা সায়ন্তন বসু,জয়প্রকাশ মজুমদার , রীতেশ তেওয়ারি, সমীরন সাহারা। পিকনিকের মেনুতে রাখা হয়েছে সব আমিষ আইটেম।পিকনিকের রাঁধুনি জানালেন , সাদা ভাত, ডাল, মাছের কালিয়া, চিকেন কষা, স্যালাড, পাপড়, চাটনি মিষ্টি আজকের পিকনিকের মেনু। সাধারনত কেন্দ্রীয় ভাজপার অনুষ্ঠানে খাওয়ারের মেনুতে কোনো আমিষ আইটেম রাখা হয় না। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের পর ভাজপা এখন নিজেদের অবাঙালি তকমা ঝেড়ে ফেলতে চাইছে। তাই এখন আদ্যোপান্ত বাঙালি পার্টি হয়ে ওঠার কারণে পিকনিকের মেনুতে মাছের কালিয়া, চিকেন কষার মত আইটেম রাখা হয়েছে।

বনগাঁয় সাংসদ যাত্রা
মুখে সাধারন পিকনিকের কথা বললেও এদিন পিকনিকের শেষে বনগাঁর সাংসদ শান্তনু ঠাকুর জানান, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে আমরা বনগায় সংসদ সম্পর্ক যাত্রা করবো। যেখানে বনগাঁর বিধায়ক,আমাদের সকল নেতা কর্মীরা ওই যাত্রায় থাকবেন। গত লোকসভা নির্বাচনে আমায় ৬ টা বিপুল পরিমাণ ভোটে জিতেছে এটা আমি ভুলতে পারি না।তাই আমার এলাকার মানুষের কথা মাথায় রেখে এই যাত্রা করা হবে। এদিকে, পিকনিকের বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে ভাজপার রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, পিকনিক হয়েছে কিনা বলতে পারবোনা কিন্তু মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ বিজেপির সঙ্গেই আছেন। যদিও রাজনৈতিক মহলের একাংশের বলছে, শান্তনুর নেতৃত্বে যেভাবে দলের মধ্যে বিদ্রোহীরা তালিকা ক্রমশ বাড়ছে তাতেই সিঁদুরে কালো মেঘ দেখতে পাচ্ছেন ভাজপা নেতৃত্ব। কারন এই বিদ্রোহের জোরে মতুয়া সম্প্রদায় যে ভাজপার থেকে দূরে চলে গিয়েছে তা কিন্তু ধীরে ধীরে স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

অমিতাভ চক্রবর্তী দালাল নামে পোস্টার
রবিবার রাতে রাজ্য ভাজপার সদরদপ্তর মুরলীধর সেন এর বাইরে সাধারণ সম্পাদক সংগঠন অমিতাভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে বেশ কিছু পোস্টার লক্ষ করা যায়। সেইসব পোস্টারে লেখা রয়েছে, অমিতাভ চক্রবর্তী পিক এর দালাল দল থেকে হটানো হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here