রুদ্রনীল, তথাগত বাদ, ভবানীপুরে ভাজপা প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল

0
60

৩৬৫দিন। মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়ানো মানেই বাড়তি মাইলেজ আর একেই এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ভাজপা। লক্ষাধিক ভোটে অনিবার্য্য হারবে জেনেও তাই ভবানীপুর আসনে প্রার্থী করা হলো প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালকে, যিনি ইতিমধ্যেই বিধানসভা ভোটে ৫৮ হাজারের বেশি ভোটে হারার রেকর্ড করেছেন। ভাজপার মূলত উদ্দেশ্য মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে একজন মহিলাকে দাঁড় করিয়ে বাড়তি মাইলেজ কিছুটা পাওয়া। প্রার্থী হওয়ার তালিকায় ছিলেন রুদ্রনীল ঘোষ, তথাগত রায়, তিস্তা বসু বিশ্বাসের মতো কয়েকজন। তথাগত রায় প্রার্থী হতে চাইলেও দিলীপ ঘোষ সহ রাজ্য নেতৃত্বের একেবারেই মত ছিল না তাকে মমতার বিরুদ্ধে দলের মুখ হিসেবে দাঁড় করাতে। এদিকে, প্রার্থী হওয়ার ষোলো আনা ইচ্ছা ছিল রুদ্রনীলেরও। যদিও গত বিধানসভা ভোটের মত এবার আর কোন সেলিব্রিটিকে ভোটে দাঁড় করিয়ে মুখ পোড়াতে চায়নি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তাই ভবানীপুর আসনের প্রার্থী বাছাই নিয়ে প্রথম থেকে কয়েকটি নীতি ঠিক করেছিল বলেই দলীয় সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

১. গত বিধানসভা ভোটে যেমন একাধিক মহিলা সেলিব্রিটিকে টিকিট দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নির্বাচনে হারের পর তাদের একজনকেও আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।তাই এবার কোনো মহিলা সেলিব্রিটি কে মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী করা হবে না।
২. শুধু মহিলা সেলিব্রিটি নয়, হেরে যাওয়া কোনো সেলিব্রিটিকে ভবানীপুরে প্রার্থী করা যাবে না। যাতে একেবারে ফাঁকা মাঠে গোল না দিতে পারে তৃণমূল।আর এই কারনেই বাদ পড়তে হল রুদ্রনীলকে।
৩. ভবানীপুরে এমন কোনো ব্যক্তিকে টিকিট দেওয়া হবে, যিনি খানিকটা হলেও হারের মার্জিন কমাতে পারে। তাই প্রথম থেকেই দিল্লির পছন্দের তালিকায় ছিলেন প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। গত বিধানসভা নির্বাচনে এন্টালি কেন্দ্র থেকে ভজপার টিকিটে লড়াই করেছিলেন তিনি। যদিও তৃণমূলের প্রার্থী স্বর্ণ কমল সাহার কাছে ৫৮হাজার ২৫৭ ভোটে পরাজিত হন। এত মহিলা মুখ থাকতে মমতার বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালকে টিকিট দেওয়া হল কেন? দলীয় সূত্রে খবর,সম্প্রতি ভোট-পরবর্তী হিংসা মামলায় কলকাতা হাইকোর্টে ভজপার হয়ে সওয়াল করে দলে সমনের সারিতে উঠে আসেন আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। তাছাড়াও প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল দীর্ঘদিন ধরে দিল্লির ঘনিষ্ঠ। আবার তার করা মামলাতেই ভোট-পরবর্তী হিংসায় আদালত সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। ফলে একে তো মহিলা মুখ তার ওপর কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছের।
এদিকে, ভবানীপুরের পাশাপাশি আরো দুই আসন সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরেও ভাজপা তোদের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। জঙ্গিপুরে সুজিত দাস ও সামশেরগঞ্জে মিলন ঘোষের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।এই দুটি আসনে প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে ভোট করানোই সম্ভব হয়নি। প্রসঙ্গত, ভবানীপুর কেন্দ্রে প্রার্থী ঠিক করতে কার্যত হিমশিম খেতে হয় দিলীপ ঘোষদের। প্রার্থী বাছাইয়ের বৈঠকে বহু নাম উঠে এলেও রাজ্যের কোন বড় নেতাই মমতার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে অবধারিত হার হারতে রাজি হননি। শেষ বেলায় প্রার্থী ঠিক করলেও ভবানীপুরের পর্যবেক্ষক ঠিক করা হয় আগেই। যদিও শুক্রবার ভবানীপুরের পর্যবেক্ষক হিসেবে অর্জুন সিং জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো সহ দলের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সিং এর নাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয়। ভবানীপুরের ৮ টি ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকবেন ভাজপার ৮জন বিধায়ক। তাদের নামও এদিন ঘোষণা করেছে ভাজপা।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here