দেহরক্ষীর রহস্যমৃত্যুর তদন্তে সোমবার শুভেন্দুকে তলব সিআইডি’র

0

Last Updated on September 5, 2021 1:14 AM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। এতদিন পর্যন্ত ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর দেহরক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের বয়ান রেকর্ড করেছিল সিআইডি। সিআইডি তদন্তভার গ্রহণ করার আগে পুলিশের তরফেও ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ির লাগোয়া অঞ্চলের মানুষ জনের সঙ্গে কথোপকথন হয়। পুলিশের তদন্তের মাঝেই এলাকার মানুষের দাবি ও রাজ্য প্রশাসনের নির্দেশে ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর প্রাক্তন দেহরক্ষী শুভব্রত চক্রবর্তীর রহস্যমৃত্যুর তদন্তভার গ্রহণ করে সিআইডি।এবার শুভেন্দু অধিকারীর প্রাক্তন দেহরক্ষী শুভব্রত চক্রবর্তীর রহস্যমৃত্যুতে খোদ ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর বয়ান রেকর্ড করতে চায় সিআইডি। সেই উপলক্ষে আগামী সোমবার ভবানী ভবনে শুভেন্দু অধিকারীকে ভবানী ভবনে হাজিরা দেওয়ার নোটিস দিল সিআইডি। প্রসঙ্গত, গত জুলাই মাসে কাঁথি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন শুভেন্দু অধিকারীর প্রাক্তন দেহরক্ষী শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী। অভিযোগে তিনি জানান, ভয়ে এতদিন তিনি কিছু বলতে পারেননি। শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে প্রভাবশালী তত্ত্ব তুলেছিলেন।
এর পরেই পুলিশ তদন্তে নামে। শুভব্রত চক্রবর্তীর মৃত্যুকে কেন আত্মহত্যা বলে তখন দেখানো হয়েছিল সেই তদন্ত শুরু করে পুলিশ। কেন শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে প্রভাবশালী তত্ত্ব নিয়ে আসেন শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী তারও তদন্ত শুরু হয়।

- Advertisement -

এর কিছুদিন পরেই তদন্তভার গ্রহণ করে সিআইডি। সিআইডি এরপর একাধিকবার কাঁথিতে শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে গিয়ে মৃত শুভব্রত চক্রবর্তীর বন্ধুদের বয়ান রেকর্ড করে। শুভেন্দু অধিকারীর বর্তমান দেহরক্ষীদের বয়ান রেকর্ড করা হয়। শুভব্রত চক্রবর্তী যেখানে থাকতেন সেই এলাকার বাসিন্দাদের থেকেও বয়ান রেকর্ড করে সিআইডি। শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী এরও বয়ান রেকর্ড করে সিআইডি। শুভব্রতর যখন রহস্য মৃত্যু হয় তখন কী কারণে তার স্ত্রী ভয় পান, তারও বয়ান রেকর্ড করে সিআইডি। শুভব্রত যখন মারা যান, তখন তিনি শুভেন্দু অধিকারীর দেহরক্ষী ছিলেন, কেন শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী তখন থানায় অভিযোগ করতে ভয় পেয়েছিলেন, কেউ তাকে ভয় দেখিয়ে ছিল কিনা- সকল বিষয়ই শুভব্রত স্ত্রীয়ের বয়ান রেকর্ড করে সিআইডি। শুভেন্দু অধিকারীকে যে নোটিস সিআইডি পাঠিয়েছে, তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, শুভব্রত চক্রবর্তীর রহস্য মৃত্যু যে সময় হয় সেই সময় তিনি ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীর দেহরক্ষী ছিলেন, তাই অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় ব্যক্তির মতই শুভেন্দু অধিকারীর বয়ান রেকর্ড করতে চায় সিআইডি। তাই আগামী সোমবার ভবানী ভবনে শুভেন্দু অধিকারীকে হাজির হওয়ার নোটিস দেওয়া হয়েছে সিআইডির তরফে। সিআইডি সূত্রের খবর, গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের বয়ান রেকর্ড করে সিআইডি তদন্তের গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে পৌঁছেছে। এবার ভাজপা নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে জেরা করে, তার বয়ান রেকর্ড করতে চায় সিআইডি।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here