ত্রিপুরায় তৃণমূল পুরপ্রার্থীদের ওপর যৌথ আক্রমণে পুলিশ ভাজপা গুন্ডাদের

0
ভাজপার গুণ্ডামির বিরুদ্ধে আগরতলায় সাংবাদিক বৈঠকে ইন্দ্রনীল সেন, সুস্মিতা দেব মনোজ তিওয়ারি সহ অন্যান্যরা। ত্রিপুরায় তৃণমূল প্রার্থীদের ওপর হওয়া সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মিছিলে হাঁটলেন তাঁরা।

Last Updated on November 15, 2021 11:43 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। আগরতলায় পুরভোট যত এগিয়ে আসছে ততই তৃণমূল প্রার্থীদের ওপর পুলিশ ও ভাজপা’র যৌথ আক্রমণ বেড়েই চলেছে। আগরতলা পুরসভার দশ নম্বর ওয়ার্ডের পান্না দেবকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল৷ মহিলা প্রার্থীর অভিযোগ, নিজের এলাকায় প্রচার চালাতে গিয়ে বাধা পাচ্ছেন তিনি। কিন্তু ওই মহিলার পাশে দাঁড়ানোর বদলে, বিপ্লব দেবের পুলিশ তৃণমূল প্রার্থীকে হেনস্থা করে বলে অভিযোগ। ওই মহিলা প্রার্থী অভিযোগ জানাতে গেলে, তাঁর অভিযোগ নেওয়ার বদলে, চ্যাংদোলা করে আগরতলার পুলিশ সুপারের অফিস থেকে তাঁকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশ কর্মীদের বিরুদ্ধে। প্রতিনিয়ত তৃণমূল প্রার্থী পান্না দেবের লাগানো ফেস্টুন ব্যানার পতাকা ছবি ছিঁড়ে ফেলছে ভাজপা কর্মী সমর্থকরা বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েও কোনো সুরাহা পাননি তিনি। রবিবার সকালে চন্দনপুর এলাকায় প্রচারের সময় ভাজপা গুন্ডারা তৃণমূল প্রার্থীর ওপর চড়াও হন। ‌

- Advertisement -

লাঠির আঘাতে তৃণমূল প্রার্থীর মাথা ফেটে যায়। ‌ তৃণমূল প্রার্থীর অভিযোগ, তাকে এসপির সঙ্গে দেখা তো করতে দেওয়া হয়নি উল্টে মহিলা পুলিশ কর্মীদের দিয়ে চ্যাংদোলা করে এসপি অফিসের বাইরে বের করে দেওয়া হয়। ‌ পরে অভাব ও আচরণ এবং বিনা অনুমতিতে সরকারি দপ্তরে প্রবেশের অভিযোগে তৃণমূল প্রার্থী পান্না দেবকে উল্টে গ্রেপ্তার করে বিপ্লব দেবের পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে তৃণমূল। তৃণমূল নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ত্রিপুরা এমন একটা রাজ্য যেখানে গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। তৃণমূল প্রার্থীকে এইতো নিরাপত্তা দেবে পুলিশ, যাতে উনি ঠিকমত প্রচার করতে পারেন। এসব কিছুই সাধারণ মানুষ দেখেছে, দেশের মানুষ দেখছে। ‌ ত্রিপুরার মানুষের যোগ্য জবাব দেবে।’ এর প্রতিবাদে এদিন বিকেলে তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেব এবং মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন আগরতলায় গিয়ে প্রতিবাদ দেখান। ‌

উপস্থিত ছিলেন সুবল ভৌমিক সহ এলাকার স্থানীয় নেতৃত্বরাও। সাংবাদিক সম্মেলন করে ইন্দ্রনীল সেন বলেন, ‘ত্রিপুরায় জঙ্গল রাজ চলছে। ত্রিপুরায় বিরোধীরা প্রচার করতে পারবে না, কোন গণতান্ত্রিক রাজ্যে এটা হয় না, একমাত্র ত্রিপুরার বিপ্লব দেবের সরকারের জমানায় এটা হয়।’ সাংবাদিক সম্মেলন শেষে সুস্মিতা দেব, ইন্দ্রনীল সেনরা মিছিল করে পুরো ঘটনার প্রতিবাদ করে। আগামী দিনে যদি তৃণমূল প্রার্থীদের ওপর আক্রমণ হয় তাহলে আরো বড় ধরনের আন্দোলনে নামবে তৃণমূল-মিছিল থেকে এই আওয়াজই প্রতিধ্বনিত হয়েছে এদিন। অন্যদিকে শেখর দেববর্মা, তৃণমূল নেতা কে আক্রমণ করে বিজেপি আশ্রিত গুন্ডারা। তাকেও দলের তরফে এদিন হাসপাতালে গিয়ে দেখতে যাওয়া হয়। ত্রিপুরায় তৃণমূল বদ্ধপরিকর, যেভাবেই হোক বিপ্লব দেবের সরকারের অত্যাচারের শেষ দেখে ছাড়ব এ তৃণমূল।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here