মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি পূরণ
স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড
১০ লক্ষ টাকার
ধার শোধ ১০ বছরে

0

Last Updated on June 25, 2021 12:24 AM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন।ছাত্র ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য ক্রেডিট কার্ড দেবে রাজ্য সরকার। সেইমতো বৃহস্পতিবার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।আগামী ৩০ জুন, রাজ্যের ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য ১০ লক্ষ টাকার ক্রেডিট কার্ড দেবে রাজ্য সরকার। নির্বাচনী ইস্তেহারে প্রতিশ্রুতির পরে বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে এই প্রকল্পকে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, উচ্চ শিক্ষার জন্য খরচ বাবদ এই টাকা ঋণ দেবে রাজ্য। অন্তত ১০ বছর রাজ্যে বসবাসকারী মানুষই এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। চাকরি পাওয়ার ১৫ বছরের মধ্যে (৪০ বছর বয়স পর্যন্ত) এই ঋণ ফেরত দিতে হবে ছাত্র-ছাত্রীদের। রাজ্য সরকার এই ঋণের গ্যারান্টার থাকবে।

- Advertisement -

প্রসঙ্গ পুর ভোট

আগে নির্বাচন কমিশন উপনির্বাচন করাক, আমরা ঠিক সময়মতো পুর নির্বাচন করিয়ে দেব। আমাদের নির্বাচন করতে কোন ভয় নেই, আমরা প্রস্তুত- বৃহস্পতিবার সরাসরি একথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রসঙ্গত কলকাতা সহ রাজ্যের প্রায় অধিকাংশ পুরসভায় পুরভোট করানো নিয়ে বদ্ধপরিকর রাজ্য সরকার। অন্যদিকে রাজ্য নির্বাচন কমিশনও পুরভোটের আগে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামোগত কাজ শেষ করে রেখেছে। অন্যদিকে দিনহাটা, খড়দহ, শান্তিপুর, ভবানীপুর, গোসাবা, সামসেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুরে উপনির্বাচন বাকি রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ওরা উপনির্বাচন টা করাক, আমরা ঠিক পরেই আমাদেরটা করিয়ে দেব।

কেন্দ্র অটোক্রেসির জন্য সারাদেশে বদনাম হয়েছে
জম্মু ও কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনায় সরব হলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্যের অধিকার কেড়ে নেওয়ার দরকার ছিল না। লোকের স্বাধীনতা হরণ করেছে কেন্দ্র, এটা করে দেশের কোনো লাভ হয়নি, দু’বছর কাশ্মীরে কোন পর্যটক যেতে পারেনি, ভ্যাকসিন নিয়ে যেমন দেশে বদনাম হয়েছে কেন্দ্র, তেমনই অটোক্রেসি নিয়েও গোটা দেশে সমালোচিত হয়েছে। বিজেপি সবাইকে টেরোরিস্ট বলে, শুধু ওরাই ন্যাশনাল আর বাকি সবাই অ্যান্টি ন্যাশনাল।

কোভ্যাকসিনের অনুমোদন দরকার

কোভ্যাক্সিনকে যাতে দ্রুত অনুমোদন দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখলেন মমতা। মমতার অভিযোগ, এই টিকা নেওয়া উচ্চশিক্ষার পড়ুয়ারা যাঁরা বিদেশে যেতে চান, তাঁরা সমস্যায় পড়ছেন। তাই পড়ুয়াদের কথা ভেবে যাতে কোভ্যাক্সিনকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে অনুমোদন দেওয়া হয়, সেই দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। ভারতে কোভ্যাক্সিন দেওয়া হলেও এখনও বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা করোনার এই টিকাকে ছাড়পত্র দেয়নি। কিন্তু বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ছাড়পত্র না আসায় বিদেশে এই ভ্যাকসিন নিয়ে কাউকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। ফলে যাঁরা বিদেশে পড়তে যেতে চান বা অন্য কাজ করেন, তাঁরা চরম সমস্যায় পড়েছেন।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here