অভিষেকের ঘােষণা
শুধু সিট পাওয়ার জন্য নয়, অন্য রাজ্যে যাব জিততে

0

Last Updated on June 7, 2021 10:59 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। বাংলা গােটা দেশে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে, এই জয়ের। জন্য বাংলার মানুষকে ধন্যবাদ জানিয়েছে দেশের মানুষ। গােটা দেশ আশার আলাে দেখতে পেয়েছে। আমরা শুধু অন্য রাজ্যে বিধায়ক সংখ্যা বাড়াতে যাব না। কিংবা শুধুমাত্র ভােটের হার বাড়ানােই আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য নয়। যে রাজ্যেই যাব, জয়ের উদ্দেশ্যে যাব। আগামী এক মাসের মধ্যেই আমরা সামগ্রিক পরিকল্পনা বিস্তারিত ভাবে জানাব। বিজেপির কাছে কোনও ভাবেই মাথা নােয়ব না, জাতীয় পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল কংগ্রেসের আগামীদিনের পরিকল্পনা নিয়ে সরাসরি একথা জানালেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। গত শনিবার দায়িত্ব গ্রহণ করার পরের দিন দলের তিন শীর্ষ নেতার সঙ্গে ‘ওয়ান ইজ টু ওয়ান’ বৈঠকের পর সােমবার দলের লােকসভা দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে তৃণমূল ভবনে অভিষেক যা বললেন

- Advertisement -

বিজেপি বিধায়কেরা যােগাযােগ রাখছে

শুধুমাত্র তৃণমূল থেকে চলে যাওয়া নেতারাই নন, বিজেপির অসংখ্যা বিধায়ক যারা জয়ী হয়েছেন, তারা প্রতিনিয়ত দলের সঙ্গে যােগাযােগ রাখছেন। দলের কর্ম সমিতির বৈঠকে এই বিষয় নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।

পরিবার রাজনীতি নিয়ে বিল আনুন

বিজেপির কাছ থেকে বংশ পরম্পরার কথা শুনব না। আপনারা কেন সংসদে বিল আনছেন না, যে পরিবারের একজন মাত্র রাজনীতিতে থাকতে পারবে। আমি নিজে বিলে সই করে পদত্যাগ করব। বিজেপি আগে নিজেদের দিকে তাকাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিসিসিআই-এর সচিব একই পরিবারের থেকে। আমি তাে নির্বাচিত প্রতিনিধি, আগামী ২০ বছর মন্ত্রী হবাে না। জয় শাহ এই কথা বলতে পারবেন কি ? এত চিন্তিত, এত ভয় পাচ্ছেন কেন। আপনারা? যাদের অন্য দল ভেঙে নিয়েছেন, তারা মধ্যে কতজন। পরিবারতন্ত্রের সুবিধা পেয়েছেন? আগে তাদের সরিয়ে দিন।

রাজ্যপাল সুলভ আচরণ করুন

রাজপাল সুলভ আচরণ করুন। কোথায় বিজেপি কর্মীরা মার খাচ্ছেন তা ডিটেলে বলতে হবে। আপনি রাজ্যের রাজ্যপাল, আপনি বিজেপি, তৃণমূল করবেন কেন?শপথগ্রহনের পর থেকে একটানা আক্রমণ করা ঠিক নয়।

কুৎসা বন্ধ করুন

কুৎসা করবেন না, বিরােধী দলনেতার মতাে গঠনমূলক ভূমিকা নিন। চাটুকারিতা করতে গিয়ে আর কত নিচে নামবেন।

বিজেপি প্রতিষ্ঠানগুলিকে ধ্বংস করছে

বিজেপি গায়ের জোড়ে এজেন্সিকে কাজে লাগিয়ে সব প্রতিষ্ঠানগুলির রাজনীতিকরণ করছে। প্রতিষ্ঠানগুলিকে ধ্বংস করছে। কমিশনকে রাজনৈতিক ভাবে চাপ নিয়ে ৮ দফায় ভােট করিয়েছে। করােনা ছড়িয়েছে বহুগুণ। এর দায় কমিশনকে নিতে হবে।

উত্তরপ্রদেশে কেন্দ্র যাচ্ছে না কেন্দ্রীয় দল

আমফানের সময়েরও প্রতিনিধি দল বাংলায় এসেছিল। উত্তরপ্রদেশে জলে লাশ ভেসে বেড়াচ্ছে, সেখানে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল পাঠানাে হচ্ছে না? বিজেপি হার স্বীকার করতে পারছে না।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here