কলকাতায় এসে বাংলাদেশের তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রী সাফ জানালেন, গোলমাল পাকিয়েছে জামাত-বিএনপি

0

Last Updated on October 29, 2021 12:36 AM by Khabar365Din

৩৬৫দিন। সম্প্রতি বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ঘটানো হয়েছে। বিএনপি ও জামাত বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক শান্তি বিপন্ন করতেই এই কাজ করেছে। আমাদের সরকার কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে এখনো পর্যন্ত ১২০৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। আমরা জিরো টলারেন্সে বিশ্বাস করি। বৃহস্পতিবার কলকাতা প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টারের উদ্বোধনে এসে সম্প্রতি বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক অশান্তি নিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন হাসিনা সরকারের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী হাসান মাহমুদ। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে কলকাতা প্রেসক্লাবের উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতিতে বাংলাদেশ দূতাবাস এবং কলকাতা প্রেসক্লাবের যৌথ উদ্যোগে প্রেস ক্লাবে বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। আর এই মিডিয়া সেন্টারের উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রীর পাশাপাশি কক্সবাজারের সাংসদ সাইমুম সারওয়ার কমল, বাংলাদেশের উপ রাষ্ট্রদূত তৌফিক হোসেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক তথা ভারত-বাংলাদেশ বিশেষজ্ঞ গৌতম লাহিড়ী সহ বাংলাদেশের একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী হাসান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ কেউ সংখ্যালঘু নয় সকলেই বাংলাদেশের বাঙালি।

- Advertisement -

বাংলাদেশ প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র যেখানে সাম্প্রদায়িকতার কোন জায়গা নেই। বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমান সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সম্প্রীতির বাংলাদেশ তৈরি করেছিলেন। ইকবাল নামের যে ছেলেটি পুজো মণ্ডপে গিয়ে কোরআন রেখে এসেছিল,সে নিজে থেকে যায়নি তাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে প্রচারণা দিয়ে কাজটি করানো হয়েছে। এরাই ভোটের সময় আওয়ামী লীগকে ভারত পন্থী দল বলেll প্রচার করে। তারা হল বিএনপি।এই ঘটনার পর আমরা সারারাত না ঘুমিয়ে সারা রাত পুজো মণ্ডপ পাহারা দিয়েছি। এবছর গোটা বাংলাদেশ ৩২ হাজার পুজো মন্ডপ হয়েছে। পূজা মন্ডপ কে সরকারি সহযোগিতা করা হয়েছে। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি অনেকটাই দমন করেছি তবে নির্মূল করতে পেরেছি বলবো না।যদিও বাংলাদেশের সংবিধান পরিবর্তন নিয়ে হাসান মাহমুদ বলেন, ১৯৭২ সংবিধান তৈরি করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। আমাদের সংবিধানের মধ্যে ধর্মকে আনা উচিত নয়। আমাদের সংবিধানের মূল চেতনাই হল ধর্মনিরপেক্ষতা।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here