মিলিটারি হাসপাতালে ভর্তি হলেন ট্রাম্প

0

Last Updated on October 3, 2020 8:46 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন ।চিকিৎসার জন্য ট্রাম্পকে মিলিটারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার সকালে জানাল হোয়াইট হাউস। কোভিডের মৃদু উপসর্গ থাকার জন্যই চিকিৎসকদের পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি। তবে এক ভিডিয়ো বার্তায় নিজের ‘ভাল’ থাকার কথাও জানিয়েছেন ট্রাম্প। পাশাপাশি চিকিৎসক ও শুভানুধ্যায়ীদের ধন্যবাদ জানান তিনি । মার্কিন প্রেসিডেন্টের হাসপাতালে ভর্তি হওয়া নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি কেলি ম্যাকেনানি বলেছেন, ‘‘সাবধনতা অবলম্বন ও চিকিৎসকদের পরামর্শে বেথেসদার ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টারের স্পেশ্যাল স্যুটে রাখা হবে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে। আগামী কয়েকদিন সেখানেই থাকবেন তিনি। ওয়াল্টার রিডের প্রেসিডেন্সিয়াল অফিস থেকেই নিজের কাজ কর্ম করবেন তিনি।’’ শুক্রবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউস থেকে মাস্ক পরে বেরিয়ে হেলিকপ্টারে করে হাসপাতালে গিয়েছেন ।কোভিড-১৯-এর মৃদু উপসর্গ ট্রাম্পের মধ্যে উপস্থিত। পাশাপাশি ট্রাম্পের বয়স ৭৪। ওজনও অনেকটা বেশি। সে জন্যই কোনও রকম ঝুঁকি না নিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মৃদু উপসর্গ থাকলেও তাঁর অবস্থার কোনও রকম অবনতি হয়নি বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক সিন পি কনলে ট্রাম্পের ব্যাপারে জানিয়েছেন, ‘‘তিনি একটু ক্নান্ত হলেও খোশমেজাজেই রয়েছেন।’’ইতিমধ্যেই ট্রাম্পকে কোভিড-এর পরীক্ষামূলক ওষুধের ডোজ দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে হোয়াইট হাউসের তরফে। রেগেনেরস অ্যান্টিবডি ককটেলের সিঙ্গল ডোজ মার্কিন প্রেসিডেন্টকে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কনলে। এই ওষুধের এখনও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। বাজারে আসার জন্য প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র এখনও পায়নি রেগেনেরস। পাশাপাশি জিঙ্ক, ভিটামিন ওষুধও চলছে । ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার শুধু কাশি ও মাথা ব্যাথা রয়েছে । তাঁকেও পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে । হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে ট্রাম্পের পরিবারের অন্যান্যদের রিপোর্ট নেগেটিভ । অন্যদিকে ট্রাম্প দম্পতির কোভিড পজিটিভ হওয়ায় ভোটের মুখে ব্যপক ধাক্কা খেল রিপাবলিকানরা । বাতিল করা হয়েছে ট্রাম্পের সব প্রচার ও নির্বাচনী বিতর্ক । আগে প্রায় কোনও অনুষ্ঠানে মাস্ক পরেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট । আমেরিকায় করোনা মৃত্যুর সংখ্যা ২ লক্ষ ছাড়ালেও মাস্ক পরা নিয়ে ব্যঙ্গ বিদ্রুপও করেন ট্রাম্প । সেই ভুলেই মাসুল গুনতে হচ্ছে তাঁকে বলে মনে করছেন বিরোধীরা ।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here