ওয়াশিংটনে কনসার্টের কাছে বন্দুকবাজের হামলা। নিহত ১ জখম অনেকে

0

Last Updated on June 21, 2022 6:46 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। আমেরিকায় ফের বন্দুকবাজের হামলা এবার ঘটনাস্থল ওয়াশিংটন ডিসি। স্থানীয় পুলিশের দাবি গুলিবিদ্ধ হয়ে এক নাবালকের মৃত‍্যু হয়েছে। এছাড়া অনেকের গুলিবিদ্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কয়েকজন পুলিশ অফিসারের-ও জখম হওয়ার খবর মিলেছে। কে বা কারা।গুলি চালিয়েছে তা জানা যায়নি। আপাতত এই ঘটনাকে বন্দুকবাজের হামলা হিসাবেই দেখা হচ্ছে। জঙ্গি যোগের কোনও প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। বন্দুকবাজের খোঁজে তল্লাশি চলছে বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার স্থানীয় সময় রাত ১০ টা নাগাদ এই হামলা হয়। পথচারীদের লক্ষ‍্য করে আচমকা ঝাঁকে ঝাঁকে ছুটে আসে গুলি। একাধিক ব‍্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে লুটিয়ে পড়েন। ঘটনাস্থলে দ্রুত ওয়াশিংটন ডিসি পুলিশ ছুটে আসে। পুলিশের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ গুলির লড়াই চলে। এর-ই মধ‍্যে পালিয়ে যায় হামলাকারী।

ওয়াশিংটন ডিসির পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, নর্থওয়েস্ট ওয়াশিংটনে এই হামলা হয়। স্থানীয় অনুষ্ঠান ‘মোচেলা’ উপলক্ষে সেখানে একটি কনসার্ট চলছিল। ফলে অন‍্যান‍্য দিনের তুলনায় ওই রাস্তায় রবিবার ভিড় বেশী ছিল। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান পরিকল্পনা করেই এই হামলা হয়েছে। এদিকে রবিবারের এই ঘটনার পর আমেরিকার আগ্নেয়াস্ত্র সংক্রান্ত আইন আরও কঠোর করার দাবি উঠেছে বর্তমানে আমেরিকায় যে বন্দুক নীতি রয়েছে সেখানে আগ্নেয়াস্ত্র কেনার ক্ষেত্রে তেমন কোনো বিধিনিষেধ নেই অনেকে মনে করছেন এই সুযোগে অল্পবয়সী ছেলেমেয়েদের হাতে বন্দুক চলে আসছে এবং তার তার যথেচ্ছ ব্যবহার করছে।

গত কয়েক মাসে অন্তত 10 থেকে 15 টি গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে গুলিচালনার ঘটনার সঙ্গে অল্প বয়সী ছেলেমেয়েরা যুক্ত বলে জানা যাচ্ছে। মে মাসে টেক্সাসের বন্দুক হামলায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়। হাড় হিম করা এই হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে এক নাবালক ছিল, পুলিশের গুলিতে যার মৃত্যু হয় এই ঘটনা ঘটানোর পর। সুতরাং একের পর এক এই ধরনের ঘটনা থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বন্দুক নীতি আরো কঠোর করা উচিত বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা

যদিও ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের মতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যে আর্মস লবি রয়েছে তারা অত্যন্ত ক্ষমতাশালী সরকারের ওপর এই লবির ভয়ঙ্কর রকম প্রভাব রয়েছে। তাই আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার বা বিক্রির ওপর যদি কোনো রকম বিধিনিষেধ আরোপ করা হয় তাহলে এই লবি সরকারের বিপক্ষে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

ফলে বাইডেন সরকারের পক্ষে আদৌ কোনো কঠিন পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে বড়োসড়ো প্রশ্ন চিহ্ন রয়েছে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here