ক্ষমতা দখলের পরে কাবুলে তালিবানি ঘোষণা
দেখো আমরা পাল্টে গেছি মহিলাদের সম্মানে হস্তক্ষেপ
নয়, জঙ্গি অ্যাকশন হবে না

0

Last Updated on August 18, 2021 10:56 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

খবরের সূত্র: আল জাজিরা


৩৬৫ দিন। অতীত ভুলে গিয়ে সুন্দর একটা ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখালো তালিবান জঙ্গি গোষ্ঠীর উপ প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা আবদুল গনি বরাদার। অদ্ভুতুড়ে লাগতে পারে, তবে মঙ্গলবার প্রথমবার সাংবাদিকদের সামনে শরিয়াত আইন মেনে মহিলাদের পরিপূর্ণ অধিকারের মর্যাদা দেওয়ার কথা বলা হলো। ১৯৯৬ থেকে ২০০১, তালিবানদের প্রথম ক্ষমতাকালের স্মৃতি আফগানদের ভুলে যাওয়ার আবেদন করলেন এই জঙ্গি নেতা। এখনও ঘোষণা হয়নি কে হবেন দেশের প্রেসিডেন্ট। কাদের হাতে কোন মন্ত্রকের দায়িত্ব থাকবে। তালিবানদের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ জানিয়েছেন, আফগানিস্তান প্রতিবেশী সমস্ত দেশের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। গুলি-বন্দুক দিয়ে তারা ক্ষমতা দখল করলেও এবারের প্রশাসন হিংসা নয়, শান্তির সম্পর্ক বজায় রাখতে আগ্রহী।

দোকান খুলছে

কাবুলে আস্তে আস্তে দোকানপাট খুলতে শুরু করেছে। শহর স্বাভাবিক ছন্দে না ফিরলেও প্রশাসন আতঙ্কের পথ বর্জন করেছে বলে সংবাদ সংস্থা খবর। গতকাল কাবুলের রাস্তা ছিল মহিলা শূন্য। আজও তাই। তার আগের দিন দেশ ছাড়ার জন্য বোরখা পরিহিত মহিলাদের দিশেহারা ভাবে ছুটোছুটি করতে দেখা গিয়েছিল বিমানবন্দরে। আজ কোনও মহিলা বাড়ির অন্দরমহল ছেড়ে বেরোয়নি। কাবুলের রাস্তাঘাট মূলত ছিল ফাঁকা। যারা বেরিয়েছিল, তালিবানদের সাঁজোয়া গাড়ি দেখে আতঙ্কিত হয়ে ছুটোছুটি করেছে, তাদের পিছন থেকে ধেয়ে এসেছে গুলি। পিছমোড়া করে মাথা কামিয়ে দেওয়া হয়েছে। একমাত্র সরকারি কর্মীদের আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। বাকি সবাইকে আপাতত বাড়িতে থাকারই নির্দেশ। রাস্তা কাঁপিয়ে ঘুরে বেরিয়েছে শুধু অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত তালিবান জঙ্গিদের সাঁজোয়া গাড়ি। আজ সেই গাড়ির সংখ্যা অনেক কম।

সক্রিয় সিআইএ

কাবুলে রাষ্ট্রপতি ভবনের দখল তালিবান জঙ্গিদের চলে যাওয়ার পর দেশ কে চালাবে তা নিয়ে তালিবান থিংক ট্যাংকের মধ্যে আলোচনার তুঙ্গে। সরকারিভাবে মার্কিন সামরিক বাহিনী দুই দশক পর আফগানিস্তান ত্যাগ করলেও সিআইএর সক্রিয়তা কোনও অংশে কমেনি। মার্কিন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞ এবং সাংবাদিক জেরি আর্নল্ড এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, তালিবানদের পুরো অপারেশনের ব্লু প্রিন্ট তৈরি করেছিল আইএসআই এবং তা সিআইএর পরামর্শ মতই। সেনা প্রত্যাহারের পর এত তাড়াতাড়ি তালিবানরা কাবুলের দখল পেল এই ব্লু প্রিন্ট মতো চলে। প্রেসিডেন্ট বাইডেন এখন যে বলছেন, তিনি পুরো ঘটনা যে এত তাড়াতাড়ি ঘটবে তা বুঝতে পারেননি, সেটা সত্য নয়।

আফগানদের পাশে

সরকারিভাবে বিশ্বের কোন দেশ তালিবানদের বিরুদ্ধে সক্রিয়ভাবে যুদ্ধ ঘোষণা করেনি বা কূটনৈতিক স্তরে তাদের একঘরে করার ডাকও দেয় নি। তবু গোটা বিশ্ব আফগানদের পাশে। আফগান নাগরিকরা যাতে সুরক্ষিত থাকে, মহিলারা তাদের কাজের পূর্ণ অধিকার পান তা নিয়ে তালিবান প্রশাসনের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে তৈরি। যদিও তালিবানদের এই নতুন প্রশাসন শান্তির পথেই হাঁটতে চায় বলে ঘোষণা করেছে। যদিও এখনও সবাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে এই সংকটের জন্য সরাসরি দায়ী করছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারিয়ে জো বাইডেন স্বদেশে যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন তার অর্ধেকের বেশি হারিয়েছেন বলে মার্কিন সংবাদ সংস্থার খবর।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here