২১শের সভা শেষ হতেই সাফাই করতে মাঠে নেমেছে কলকাতা পুরসভা, রেকর্ড ভিড় স্বমহিমায় সামলাল কলকাতা পুলিশ

0

Last Updated on July 22, 2022 7:38 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন।এ বছর ২১শের ভিড় ছিল রেকর্ড।নতুন ইতিহাস তৈরী করেছে। তবে সেই সমস্ত কর্মীদেরকে সঠিক পরিষেবা দেওয়া এবং সবার শেষে সেই জায়গাটিকে সম্পূর্ণ পরিষ্কার করে দেওয়া,সেটাই ছিল কলকাতা পুরসভা এবং ভিড় সামলানো কলকাতা পুলিশের জন্য বেশ বড়সড় চ্যালেঞ্জ হয়েছিল।তবে সেই কাজ স্বমহিমায় সামলাল কলকাতা পুলিশ এবং পুরসভা।

কলকাতা পুরসভার তরফ থেকে জানা গিয়েছিল,ঘন্টাখানেকের মধ্যে ধর্মতলার সভাস্থল থেকে শুরু করে শিয়ালদা স্টেশন বা এস এন ব্যানার্জি রোড, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ ,পার্ক স্ট্রিট একাধিক এলাকা একেবারে ঠিক আগের মত হয়ে যাবে।কারণ সভা শেষ হয়ে যাওয়ার পর যখনই সভাস্থলে ভিড় কমতে শুরু করবে তখনই মাঠে নেমে পড়বেন প্রায় এক হাজারের উপরে জঞ্জাল সাফাই বিভাগের কর্মীরা।

যেখানে যেখানে বৃহস্পতিবার জনসমাগম হয় এবং তাদের ব্যবহার করা জিনিসপত্র যত্রতত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে সেই সমস্ত জায়গায় কাজে লেগে পড়বে এই সাফাই বাহিনী।ঠিক কথা মতোই সভা শেষ হতেই কাজে নেমে পড়ে পুরসভার কর্মীরা। ছোট ব্যাটারি চালিত গাড়ির মাধ্যমে জনতার ফেলে যাওয়া সেই সমস্ত আবর্জনা সংগ্রহ করা হয় আর তারপর সেগুলিকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় কম্প্যাক্টর স্টেশনে । তারপর যেমন ট্রাকে করে শহরের জঞ্জাল বাইরে গিয়ে ফেলা হয় সেই রকমই ব্যবস্থা করা হয়।

কলকাতা পুরসভার পরিবেশ বিভাগের মেয়র পরিষদ স্বপন সম্মাদ্দার এর দাবি,কলকাতার রাজপথকে ফের পুরনো চেহারায় ফিরিয়ে আনতে তাদের লাগবে মাত্র এক ঘন্টা।শুধুমাত্র এই একুশে জুলাইয়ের শহিদ সমাবেশ নয় শহর কলকাতায় যে কোন বড় ধরনের মিটিং কিংবা মিছিল থাকলে সে ক্ষেত্রে জনসাধারণকে পরিষেবা দেওয়ার দায়িত্ব থাকে কলকাতা পুরসভার উপরেই।

আর এই বিপুল জনসমাগমকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিগত কয়েক দিন ধরেই কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছিল কলকাতা পুলিশ। এদিন সভাস্থলে আগত তৃণমূল কর্মী সদস্যদের জন্য তৈরি করা হয়েছিল অস্থায়ী শৌচালয় ,পাশাপাশি পানীয় জল, স্বাস্থ্য শিবির ,অ্যাম্বুলেন্সের সুব্যবস্থা ছিল সেখানেই।নির্বিঘ্নেই সেই সভা শেষ হয়। সমস্ত রকম পরিষেবা ভালোভাবেই পৌঁছে দেওয়া গিয়েছে জনসাধারণকে । আর এবার মূল সভামঞ্চ সংলগ্ন রাজপথ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করতে কলকাতা পুরসভার হাতে সময় ছিল মাত্র ঘন্টা খানেক।সেই মতোই কাজ করে পুরসভা।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here