জানালা বেয়ে হাসপাতালের কার্নিশে রোগী, ঘণ্টা দুয়েক পর মরণ ঝাঁপ, চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু

0

Last Updated on June 26, 2022 6:33 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। দিনে দুপুরেই হুলুস্থুল কান্ড মল্লিকবাজারের ইনস্টিটিউট অফ নিউরো সায়েন্সেস হাসপাতালে। বেড ছেড়ে হাসপাতালের ৮ তলার কার্নিশে পৌঁছে গেলেন রোগী। তাকে নামাতে ডাকা হল দমকল, খবর দেওয়া হল পুলিশে। ঘণ্টা দুয়েক কার্নিশে বসে থাকার পরই কার্নিশ থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েন ওই ব্যক্তি। ভর্তি করা হয় হাসপাতালে।

কিন্তু, শেষ রক্ষা হল না। হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও ক্রমাগত অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। এদিনই, ভেন্টিলেশনে থাকাকালীন সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টা নাগাদ মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির, বলে জানা গিয়েছে হাসপাতাল সূত্রে। আরও জানা যায়, মাথায় এবং বুকে আঘাত ছিলেন। শরীরের কিছু হাড় ভেঙেছিল।এছাড়াও, মৃতের এপিলেপ্টিক ফিট ছিল।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত ব্যক্তির নাম সুজিত অধিকারী। বয়স ৩৩ বছর। শনিবার সকাল থেকে জানালার আশেপাশে ঘোরাফেরা করছিলেন ওই ব্যক্তি। এরপর, বেলা ১০ টা নাগাদ জানালা টপকে কার্নিশে পৌঁছে যায়। সেখানেই প্রায় ঘণ্টা দুয়েক বসে থাকে। তারপর, পড়ে যায় সুজিত। ২৩ জুন হাসপতালে ভর্তি হন। গতকাল অর্থাৎ, শনিবার তাকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ছিল। তার মাঝেই ঘটে বিপত্তি। এদিন, তাঁর পরিবার অপেক্ষা করছিলেন তার ডিসচার্জ এর জন্যে।

আরও জানা গিয়েছে, সম্প্রতি তার স্ত্রী মারা গিয়েছেন। তারপর থেকেই ওই ব্যক্তি মাথা ঘুরে পড়ে যাচ্ছিলেন বারবার। খিঁচুনিও দেখা যাচ্ছিল। সেখান থেকেই হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত নেয় পরিবার। এদিন, হাসপাতালের সমস্ত বিলও মেটানো হয়ে গিয়েছিল।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলে সুজিতের পিসি বাসন্তী অধিকারী বলেন, জানলা ভেঙে পেশেন্ট যখন একলা বেরোচ্ছিল, তখন হাসপাতালে সবাই কোথায় ছিল? কেউ ওর খেয়াল রাখেনি কেন? জানলা দিয়ে ও বেরিয়ে গেল কী করে?’ তাঁরই সম্পর্কিত ভাই সুভাষ দাস বলেন, ‘ও আমার মামাতো দাদা হয়। দাদাকে দু’দিন আগেই হাসপাতালে ভর্তি করি। খিঁচুনির সমস্যা ছিল। ডাক্তারের পরামর্শ মেনেই আমরা হাসপাতালে ভর্তি করি।

এক মাস আগেই ওই ব্যক্তির স্ত্রীর মৃত্যু হয়। ব্লাড ক্যানসারে ভুগছিলেন তাঁর স্ত্রী।অন্যদিকে, কিভাবে চিকিৎসক এবং নার্সদের চোখ ফাঁকি দিয়ে ওই ব্যক্তি জানালা দিয়ে বেরিয়ে কার্নিশে পৌঁছল? বিষয়টি ঘিরে উঠছে প্রশ্ন। রোগীদের সুরক্ষা এবং নিরাপত্তার দিক থেকে আরও একবার কাঠগড়ায় শহরের এই বেসরকারি হাসপাতাল। কিভাবে ঘটনা ঘটল, তা জানতে চেয়ে হাসপাতালকে রিপোর্ট তলব করেছে স্বাস্থ্য দফতর।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here