মুম্বইয়ের পর এবার আদানির হাতে আরেক বিমানবন্দর, বেচুবাবু বেচলেন গুয়াহাটি বিমানবন্দর

0

Last Updated on October 13, 2021 6:35 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। মুম্বইয়ের পর এবার গুয়াহাটি বিমানবন্দরও মোদী ঘনিষ্ঠ আদানির হাতে তুলে দিল কেন্দ্রের ভাজপা সরকার। সূত্রের খবর গুয়াহাটি বিমানবন্দরের কর্মী ও আধিকারিকদের আগামী ৩ বছর কাজ করতে দেওয়া হবে। এরপর তাদের স্বেচ্ছাবসর দেওয়া হবে। তার আগে জনগণের করের টাকায় বিমানবন্দর আধুনিকীকরণ করা হয়। নরেন্দ্র মোদী সরকারের আমলে বিমানবন্দর বেসরকারিকরণের প্রথম রাউন্ডে লখনউ, আমেদাবাদ, জয়পুর, ম্যাঙ্গালোর, তিরুঅনন্তপুরম ও গুয়াহাটি বিমানবন্দর ৫০ বছরের জন্য পরিচালনার ভার জিতে নিয়েছিল আদানি গোষ্ঠী। এর পর মুম্বই এবং নভি মুম্বই এয়ারপোর্টও তাঁদের ঝুলিতে যাওয়ার পর দেশের বৃহত্তম বিমানবন্দর পরিকাঠামো প্রস্তুত বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন আদানি গোষ্ঠীর আগ্রাসি মনোভাবের জেরে, দেশে বিমানবন্দর পরিচালনা ক্ষেত্রে মোনোপলি (একাধিপত্য) বিস্তারের সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। আগামী পাঁচ বছরে আরও ৫০টি এয়ারপোর্ট বেসরকারিকরণের পরিকল্পনা কেন্দ্রের।

- Advertisement -

সেক্ষেত্রে আরও কয়েকটি প্রধান প্রধান বিমানবন্দর আদানিরা ‘কিনে’ নিলে বাকিদের সঙ্গে তাদের লড়াইটা নেহাতই অসম হয়ে পড়বে। ফ্রস্ট অ্যান্ড সুলিভান-এর রিসার্চ ডিরেক্টর নৃপেন্দ্র সিংহ বা প্রযুক্তি সহায়তা সংস্থা আইসিএফ এর কর্তা শরদ গম্ভীর-এর দাবি, দেশে বিমানক্ষেত্রে অনেক বছর ধরেই একাধিপত্য চালাচ্ছে হাতে গোনা কিছু বেসরকারি সংস্থা। আগামী দিনে তা আরও প্রখর ভাবে পরিলক্ষিত হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যা নিয়ন্ত্রণে আরও মনোযোগী হতে হবে কেন্দ্রকে। কোনও গোষ্ঠী/সংস্থার হাতে সর্বোচ্চ কতগুলি বিমানবন্দর তুলে দেওয়া হবে, তা নিয়ে অবিলম্বে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এমন যদি হয়, যে কোনও একক গোষ্ঠীর হাতে গুরুত্বপূর্ণ এবং দেশের প্রধান প্রধান একাধিক বিমানবন্দর পরিচালনার চলে যায়, সেক্ষেত্রে এই ক্ষেত্রে বাজার নিয়ন্ত্রণ করার মতো ক্ষমতা তাদের কাছে চলে আসবে। যা সামগ্রিক ভাবে দেশের বিমানবন্দর পরিচালনা ক্ষেত্রের ভারসাম্য নষ্ট করতে পারে। তাই বেসরকারিকরণের আগে থেকেই এইসব বিষয় নিয়ে নির্দিষ্ট নীতি প্রণয়ন করতে হবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here