Operation Alapan – আলাপনকে শোকজ করে কেন্দ্রের প্রশ্ন কেন PM-র বৈঠকে ছিলেন না?

0
226

- Advertisement -

খবর ৩৬৫ দিন টিম


৩৬৫ দিন। গোটা মে মাস জুড়ে বাংলায় একের পর এক পরাজয়ের মুখে পড়তে হয়েছে ভাজপা এবং ভাজপা নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রের মোদি সরকারকে। তাই এই পরাজয়ের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য এবং মমতাকে চাপে ফেলতে ভাজপা নেতারা বাংলার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের যে ব্লু প্রিন্ট তৈরি করেছেন তার প্রথম ভাগে রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার এবং কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে কাজে লাগানো এবং দ্বিতীয় ভাগে রয়েছে বাংলায় প্রধান ভাজপা এজেন্ট হিসেবে নিযুক্ত পদ্মপাল। আসলে পুরো ব্যাপারটাই এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত সমস্ত কলাকুশলী ভাজপা নেতৃত্বাধীন পদ্মের একটা তোড়া। কোন পদ্ম নীল অথবা কোন পদ্ম লাল, কিন্তু পদ্মের চরিত্র তো আর বদলাবে না। তাই সরকারে অধিষ্ঠিত কোন আমলা হোক বা বাংলার পদ্মপাল সবাই সেই পদ্মের চরিত্র অনুসারে কাজ করে চলেছেন।

ষড়যন্ত্রের প্রথম ভাগ

বাংলার মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে তার অবসর গ্রহণের দিন এই জরুরী ভিত্তিতে নয়াদিল্লিতে নর্থ ব্লকে কাজে যোগ দিতে বলার নির্দেশিকা মমতার সরকার অগ্রাহ্য করে তাঁকে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদে নিয়োগ করায় যারপরনাই ক্ষিপ্ত হয়েছেন খোদ নরেন্দ্র মোদি। এর পরেই কার্যক্রম আলাপন ইস্যুতে মমতার কাছে পরাজয় স্বীকার করতে না পেরে রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এবারে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে শোকজ করা হল বাংলার অবসরপ্রাপ্ত মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কে দিল্লিতে যে শুধুমাত্র সেন্ট্রাল ডেপুটেশনে চাকরি দেওয়ার জন্য ডেকে পাঠানো হয়নি এবং তার পিছনে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত রাজনৈতিক প্রতিহিংসার চরিতার্থ করার মনোবৃত্তি রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে আলাপনের কাছে পাঠানো কেন্দ্রের শোকজ নোটিশের ছত্রে ছত্রে। মূলত গত সপ্তাহে কলাইকুন্ডা মমতা এবং রাজ্যের সদ্য প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে মিনিট পনেরো দেরি করে পৌঁছানোয় চরম অপমানিত বোধ করেছেন মোদি। সেই অপমানের বদলা নিতেই দিল্লিতে আলাপন কে ডেকে পাঠিয়ে প্রতিশোধ মেতে চেয়েছিলেন’ ক্যাবিনেট অ্যাপোয়েন্টমেন্ট কমিটির প্রধান মোদী নিজে। তাই মমতা রাতারাতি মাস্টার স্ট্রোক দিয়ে আলাপন কে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদে নিয়োগ করায় আরো অপমানিত হয়ে আলাপন কে উচিত শিক্ষা দিতে ডিজেস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্ট অনুযায়ী শোকজ নোটিশ পাঠানো হলো ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট কমিটির প্রধান নরেন্দ্র মোদির নির্দেশে। কেন্দ্রীয় সরকারের আন্ডার সেক্রেটারি আশিস কুমার সিংহের পাঠানো ওই চিঠিতে আলাপনকে বাংলার মুখ্যসচিব বলেই উল্লেখ করে চিঠিতে লেখা হয়েছে, বিপর্যয় মোকাবিলা আইন, ২০০৫-এর ৫১(বি) ধারা অনুযায়ী ওই আইন অগ্রাহ্য করার জন্য কেন তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা তিন দিনের মধ্যে লিখিত ভাবে জানানো হোক।

ষড়যন্ত্রের দ্বিতীয়ভাগে পদ্মপাল

মমতা তথা আলাপনের বিরুদ্ধে ভাজপা ষড়যন্ত্রের দ্বিতীয় ফলা তাদের এজেন্ট পদ্মপাল। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে যে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্ট এর আলাপনের বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ মিটিং এ উপস্থিত না থাকার অভিযোগ তুলে, সেই প্রসঙ্গে ভাজপাকে সুবিধা পাইয়ে দিতে সকাল থেকেই মাঠে নেমে পড়েছেন পদ্মপাল। সদ্য প্রাক্তন মুখ্যসচিবকে আক্রমণ করে পদ্মপালের পোস্ট, দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর দীর্ঘ ইতিহাসে, ২৮ মে একটি কালো দিন হিসেবে থেকে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর পর্যালোচনা বৈঠকে যোগ না দিয়ে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হয়েছে। আক্রমণের নিশানা রয়েছেন মমতাও। মমতা অসত্য বলছেন বলে ভাজপা নেতাদের সুরে সুর মিলিয়ে পদ্ম পালের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী এবং মুখ্যসচিব সেদিন প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ মিটিং বয়কট করেছেন।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here