দলিত তরুণী গণধর্ষণে মৃত্যু, চাপে যোগী সরকার

0
1006

৩৬৫ দিন। হাথরস-কাণ্ড নিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। বড় ধরনের আন্দোলনের আশঙ্কা দানা বেঁধেছে। কাজেই, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে হাথরস জেলার সমস্ত সীমান্ত সিল করে দেওয়া হয়েছে। একাধিক এলাকায় জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। জানা যাচ্ছে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে যাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি হাতের বাইরে না-চলে যায়, তার জন্য ভিমসেনার প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। এদিকে, এই ইস্যুকে সামনে রেখে বিজেপির বিরুদ্ধে রাজনৈতিক লড়াইয়ে নেমে পড়েছে কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাথরসতে নির্যাতিতার বাড়ি রওনা দেন রাহুল এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধি। যদিও, জেলা শাসক পি লস্কর জানিয়েছেন, রাহুল এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধির আসার কোনও খবর নেই।

- Advertisement -


এদিন সকালে বিশেষ তদন্তকারী দল মৃতার পরিবারের বাড়ি গিয়ে কথা বলেন বলে খবর। বস্তুত, ১৭ দিন আগে হাথরসতে ১৯ বছরের এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হন। নির্যাতনের সময় তাঁর জিভ কেটে নেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। গত মঙ্গলবার দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। ঘটনার পর পুলিশ যেভাবে জোর করে মৃতদেহের সৎকার করে, তাতে সমালোচনার ঝড় ওঠে বিভিন্ন মহলে। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন জাভেদ আখতার, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রশেখর আজাদ রাভান-সহ প্রমুখ ব্যক্তিত্ব। রাহুল টুইটে লেখেন, বেটি বাঁচাও এখন বিজেপির স্লোগান নয়। ওদের স্লোগান এখন সত্য লুকিয়ে যাও, ক্ষমতা বাঁচাও।
অন্যদিকে, হাথরসের রেশের মধ্যেই আবারও ধর্ষণ করে খুন করার খবর পেলেন দেশবাসী। রাজ্য সেই যোগীর উত্তরপ্রদেশ। এবারের ঘটনাটি ঘটেছে বলরামপুর। জানা যাচ্ছে ২২ বছরের এক দলিত যুবতীকে পা এবং মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়ে গণধর্ষণ করা হয়। তারপর একটি রিকশায় তুলে অভিযুক্তরা তাঁকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। নির্যাতিতার পরিবারের তরফে জানানো হচ্ছে, মেয়ে যখন বাড়ি ফেরে, তখন সে ঠিক মতো দাঁড়াতে পারছিল না। মায়ের কাছে কেঁদে বলেছিল― আমাকে বাঁচাও। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা নির্যাতিতাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বুধবার রাতে গিয়স্রি থানার পুলিশ এই ঘটনার কথা স্বীকার করে নেয়। থানার তরফে পেশ করা তথ্য মোতাবেক, ওই যুবতী একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন। কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার পথে তাঁকে অপহরণ করা হয়। পৈশাচিক অত্যাচার চালানোর পর নির্যাতিতাকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিল দুই ধর্ষক। পরে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ওই তরুণীকে রিকশায় তুলে দিয়ে চম্পট দেয় তারা। ইতিমধ্যে ওই দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে বলে জানাচ্ছে পুলিশ।
ঘটনার তীব্র সমালোচনা করে টুইট করেন অখিলেশ যাদব। তিনি লেখেন, হাথরসতের পর এবার বলরামপুরে এক কন্যাকে ধর্ষণ করে খুন করা হল। বিজেপি সরকার এখনও পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেয়নি! অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here