নয়াদিল্লিতে প্রেস ক্লাব অব ইন্ডিয়াতে বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টার উদ্বোধন

0
134

- Advertisement -

গৌতম লাহিড়ী। নয়াদিল্লি


৩৬৫ দিন। ভারতের প্রেস ক্লাব অব ইন্ডিয়া’য় বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্ম শতবর্ষে ‘বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টারের আজ সোমবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ডঃ হাসান মাহমুদ। এই জন্য তিনি রোববার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে আগরতলা হয়ে রাজধানী দিল্লি পৌঁছাচেছন। নয়াদিল্লির ঐতিহ্যমন্ডিত প্রেসক্লাবের দ্বিতীয় তলে নবগঠিত অত্যাধুনিক মিডিয়া সেন্টারটি নয়াদিল্লির বাংলাদেশ মিশন ও প্রেস ক্লাবের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে। এই বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হাইকমিশনার, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সহ কূটনীতিবিদরা উপস্থিত থাকবেন। বিশেষভাবে আমন্ত্রিত হয়েছেন বাংলাদেশের জাতীয় প্রেস ক্লাবের প্রথম মহিলা সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন।অনুষ্টানের জন্য বিশেষভাবে আমন্ত্রিত হয়েছেন বিশিষ্ট সাংবাদিক এবং গণমান্য ব্যাকতিরা।এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ হাইকমিশন এবং প্রেস ক্লাব ইন্ডিায়র মধ্যে একটি সমঝোতা পত্র স্বাক্ষরিত হবে। তথ্যমন্ত্রী ও অন্যান্য আমন্ত্রিদের উপস্থিতিতে সমঝোতা পত্রটি স্বাক্ষর করবেন বাংলাদেশ মিশনের মিনিস্টার প্রেস শাবান মাহমুদ এবং প্রেসক্লাবের সেকরেটারি জেনারেল সাংবাদিক বিনয় কুমার। সমঝোতা পত্রে বলা হয়েছে প্রতি পাঁচ বছর অন্তর আলোচনার ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় উন্নয়ন মূলক সংস্কার করা হবে। অনুষ্টানের শেষে বাংলাদেশের জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতির সংগে ভারতের প্রেস ক্লাবের সভাপতি উমাকান্ত লখেড়া সহ ব্যবস্থাপনা কমিটির বৈঠক হবে।

যেখানে ভারত-বাংলাদেশের গণমাধ্যমের সহযোগিতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে বিশেষ কর্মসূচী গ্রহণ নিয়ে আলোচনা হতে পারে। মুল অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর জীবনের উপর একটি তথ্য চিত্র প্রদর্শিত হবে। এই জন্য বাংলাদেশ মিশন সহযোগিতার লক্ষ্যে একটি চলচ্চিত্র প্রজেকটার প্রেস ক্লাবকে উপহার দিয়েছেন। মিডিয়া সেন্টারের প্রবেশ পথে বঙ্গবন্ধুর একটি পূর্ণাবয়ব প্রতিকৃতি স্থাপিত হয়েছে। এটিরও আবরণ উন্মেচান করবেন তথ্যমন্ত্রী। মিডিয়া সেন্টারের মধ্যেওে দুই বিভাগের স্থায়ী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন হয়েছে। এতে বঙ্গবন্ধুর জীবনের গুরত্বপূর্ণ দিক আলোকচিত্রের মধ্যে প্রকাশিত হয়েছে। অন্যভাগে ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সুবর্ণ জয়ন্তীর ক্যামেরা বন্দি উল্লেখজনক মুহুর্ত গুলি প্রদর্শিত হয়েছে। এতে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধি ও অন্যান্য আর্ন্তজাতিক বিশিষ্ট রাষ্ট্রনেতার সংগে বঙ্গবন্ধুর অন্তরঙ্গ মুহুর্ত এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ রেহানার সংগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বৈঠকের মুহুর্তগুলি। বাংলদেশ মিশন সহযোগিতার অংশ হিসাবে উন্নত মানের কমপিউটার উপহার দিয়েছেন প্রেস ক্লাবকে। এই উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনার অভ্যাগতদের জন্য মধ্যাহনভোজের ও আয়োজন করেছেন। ১৯৫৭ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরূ এক নম্বর রায়সিনা রোডে এই ভবনটি সাংবাদিকদের ক্লাব হিসাবে দান করেন। বহু রাজনৈতিক উত্থান পতনের সাক্ষী এই ক্লাবের সাংবাদিক সদস্য সংখ্যা বর্তমানে ৪৫০০। জাতীয় ও আঞ্চলিক গণমাধ্যমের দিল্লিতে কর্মরকত সাংবাদিকরাই এর সদস্য।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here