ত্রিপুরা হাইকোর্টের রায় ব্যাপক ধাক্কা ভাজপার, অভিষেক সহ তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে তদন্তে স্থগিতাদেশ

0

Last Updated on September 24, 2021 12:06 AM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। আগরতলা। ত্রিপুরায় রীতিমতো চাপে ভাজপা। খোয়াই থানায় দলের কর্মীদের জামিনে মুক্ত করতে যাওয়ায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সহ ৫ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে ত্রিপুরা পুলিশ যে মামলা দায়ের করে বারেবারে নোটিশ পাঠাচ্ছিল, তার উপরে স্থগিতাদেশ দিল ত্রিপুরা হাইকোর্ট।
স্বাভাবিকভাবেই হাইকোর্টের এই নির্দেশে ত্রিপুরার ভাজপা সরকারের দমনমূলক নীতির বিরুদ্ধে তৃণমূলের অভিযোগ সত্যি প্রমাণিত হলো। আপাতত দুর্গা পুজো পর্যন্ত অভিষেক, কুণাল ঘোষদের আর কোন রকম জিজ্ঞাসাবাদ অথবা তদন্তের নামে নোটিশ পাঠিয়ে হেনস্থা করতে পারবে না ত্রিপুরার ভাজপা সরকারের পুলিশ। ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি অখিল আব্দুল হামিদ কুরেশি আজ এই নির্দেশ দিয়েছেন। আজ ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির এজলাসে তৃণমূলের পক্ষে আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা ও বিশ্বজিৎ দেব বলেন, ত্রিপুরা পুলিশ তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যে বলেছিল। তদন্ত শেষ হয়ে যাওয়ার দাবি করেও তারপর কুণাল ঘোষকে নোটিশ পাঠিয়েছে। তা সত্ত্বেও কুনাল ঘোষ গত পরশুদিন খোয়াই থানার পুলিশের নোটিশ পেয়ে তদন্তে সহযোগিতা করেছেন। এমনকি জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব শেষ হয়ে যাওয়ার পরে খোয়াই থানার পুলিশ লিখিতভাবে জানিয়ে দিয়েছে কুনাল ঘোষ তদন্তের সমস্ত রকম সহযোগিতা করেছেন।

- Advertisement -

প্রধান বিচারপতি সেই নোটিশ ও নথি দেখতে চান। আইনজীবীরা তা পেশও করেন। আর তাতেই প্রমাণ হয়ে যায় পুলিশ দ্বিচারিতা করছে। প্রসঙ্গত, খোয়াই থানার পুলিশ তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ, রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন, বাংলার শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু এবং ত্রিপুরার তৃণমূলের নেতা সুবল ভৌমিক এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিল।
হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির এজলাস এ শুনানি চলাকালীন তৃণমূলের পক্ষের আইনজীবীদের পেশ করা কুণালের নথি দেখার পর ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি অখিল আব্দুল হামিদ কুরেশি অন্তর্বর্তী রায় দিয়ে নির্দেশ দেন, পরবর্তী নির্দেশ দেওয়ার আগে আর কাউকে নোটিশ পাঠানো যাবে না। যদিও তৃণমূল নেতাদের তদন্তের স্বার্থে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করার প্রয়োজন রয়েছে বলে মরিয়া চেষ্টা করে ত্রিপুরা সরকার। এমনকি ত্রিপুরার এডভোকেট জেনারেল এর অনুপস্থিতির কারণ দেখিয়ে পরবর্তী শুনানি তাড়াতাড়ি করার জন্য সময় চাইলেও তা খারিজ করে দিয়ে ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন, দুর্গা পুজোর পরে এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here