পুজোয় পর্যটকদের ভিড় উপচে পড়বে শৈলশহরে, অক্টোবর পর্যন্ত হাউসফুল টয় ট্রেন

0

Last Updated on August 4, 2022 9:03 PM by Khabar365Din

৩৬৫ দিন। পুজোর ছুটিতে পর্যটকদের ভিড় উপচে পড়তে চলছে শৈলশহরে! অক্টোবর পর্যন্ত হাউসফুল খেলনা ট্রেন। ১লা অক্টোবর থেকে ১৫ই অক্টোবর পর্যন্ত টয়ট্রেনের সমস্ত টিকিট বিক্রয় হয়ে গিয়েছে। তারপরও রয়েছে টিকিটের লম্বা ওয়েটিং এর তালিকা। টয়ট্রেনের ইতিহাসে এযাবৎকালে রেকর্ড যাত্রী সংখ্যা বলেই দাবি করছে রেল। ফলে পর্যটকদের নিরাশ না করে ইতিমধ্যেই বাড়তি কোচ ও অতিরিক্ত জয় রাইড চালানোর পরিকল্পনা কষছে ডিএইচআর। পর্যটক চাহিদা মেটাতে প্রয়োজনে হাই ক্যাপাসিটি কোচ (অতিরিক্ত আসন বিশিষ্ট) নামানোর পরিকল্পনাও করছে রেল।

- Advertisement -

দার্জিলিং হিমালয়ান রেলওয়ে তথ্য অনুযায়ী যাত্রী সংখ্যা ও আয়ের নিরীখে কোভিডের পর পুরোনো সমস্ত রেকর্ড ভেঙছে নিউ জলপাইগুড়ি থেকে দার্জিলিং গামী খেলনা ট্রেনের সওয়ারী।দীর্ঘ কোভিড জড়া কাটতেই পাহাড়ের পর্যটন গ্র্যাফ চড়তে শুরু করেছে। যার সরাসরি প্রভাব পড়েছে ইউনেস্কো ওয়াল্ড হেরিটেজ দার্জিলিং হিমালয়ান টয়ট্রেনের আর্থিক কোষাগারে।

ডিএইচআর এর তথ্য বলছে আয়ের নিরীখে কোভিড পরিস্থিতির পূর্বের বিগত কয়েক বছরের তুলনায় প্রায় দ্বিগুনের বেশি আয় এসেছে। শুধুমাত্র জুন মাসের হিসেবেই ডিএইচআরের কোষাগারে আয়ের অংক ৩কোটি১৯লক্ষ৬৪হাজার ৪২৭ টাকা। যা কোভিড পূর্বের ২০১৯এর সালকে সর্বোচ্চ টার্গেট ধরে সে প্রেক্ষিতে ১কোটি ১৪লক্ষ টাকা আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। রেকর্ড গড়েছে যাত্রী সংখ্যাও। ডিএইচআরের ডিরেক্টর একে মিস্রা জানান চলতি বছর মার্চ মাস থেকেই যাত্রী সংখ্যায় পুরনো রেকর্ড ভেঙেছে টয়ট্রেন।

২০২১এর সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত টয়ট্রেনের যাত্রীসংখ্যা ১৫ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।এরপরই চলতি বছর মে মাস থেকে পর্যটন মরশুম শুরু হতেই পর্যটক সংখ্যার গ্র্যাফ উর্দ্ধমূখী। নিত্যদিন গড়ে ২৫জন করে খেলনা ট্রেনে যাত্রী রয়েছে। পুজোর এই উৎসবের মরশুমে তা আরও চড়তে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত ১লা অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর অবধি নিউজলপাইগুড়ি থেকে দার্জিলিংগামী টয়ট্রেনের ১০০% বুকিং রয়েছে। এই সময়কালের সমস্ত টিকিট বুক হয়ে গিয়েছে। টিকিট ওয়েটিংয়ের তালিকাও বেশ লম্বা। এত পরিমাণ যাত্রী চাহিদা যা পূর্বের এক দশকের রেকর্ড ভাঙতে চলেছে বলে দাবি রেল আধিকারিকের।

এরপরও বিভিন্ন জায়গা থেকে দুর্গোৎসব থেকে দীপাবলির পর্যন্ত টয়ট্রেনের টিকিটের খোঁজ খবর করছেন পর্যটকেরা। এ বিষয়ে ডিএইচআরের ডিরেক্টর বলেন পর্যটক চাহিদার কথা মাথায় রেখে দার্জিলিং ও ঘুমের মধ্যে জয় রাইডের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। রেলের তরফে সর্বোচ্চ ১২টি জয় রাইড চালানোর ভাবনা চিন্তা রয়েছে। উৎসবের মরশুমে টিকিটের চাহিদা এরকমটাই থাকলে নিউজলপাইগুড়ি থেকে দার্জিলিং গামী বাড়তি কোচ সংযোজন করা হতে পারে।

সেক্ষেত্রে যাত্রী সংখ্যা অত্যধিক হলে সর্বোচ্চ ৩০-৩৩টি আসন বিশিষ্ট হাই ক্যাপাসিটি কোচ চালনার পরিকল্পনাও রয়েছে। এদিকে ডিএইআরের রিপোর্ট অনুযায়ী কোভিড পূর্বের স্বাভাবিক বছরের তুলনায় মে মাসে পর্যটকের সংখ্যা ছিল ১১২৮৪ যা চলতি বছরে ১২৪৯৫। হেরিটেজ টয়ট্রেনের কোষাগারে আয় এসেছে গত এপ্রিল মাসে ১কোটি ৫৩লক্ষ৭৫হাজার টাকা। যা পূর্বের বছরগুলিতে ছিল ১কোটি১৪লক্ষ ৮৭হাজার ৮৮২। আয় বৃদ্ধি তিন লক্ষের কিছু বেশি। মে মাসে যাত্রী সংখ্যা ২৬৯০৯।

বিগত বছরগুলিতে মে মাসে সর্বাধিক যাত্রীসংখ্যা ছিল ১৮৪৯২। চলতি বছরে মে মাসে আয় ৩কোটি ১৯লক্ষ ৬৪হাজার ৪২৭টাকা। মে মাসে বিগত বছরের নিরীখে আয় বৃদ্ধি ১কোটি ১৪লক্ষ টাকার বেশি। জুনের তুলনামূলক হিসেব অনুযায়ী ডিএইচআরের কোষাগারে আয় হয়েছে ২কোটি ৭৪লক্ষ২৬হাজার ৪৪৮। যাত্রী সংখ্যা ২৩৫১১।জুনে তুলনামূলক আয় বৃদ্ধি ৭৯লক্ষ ২৭হাজার টাকা। অন্যদিকে একইসঙ্গে রয়েছে স্পেশ্যাল রিজার্ভ খেলনা ট্রেনের সফর বাবদ রেলের বাড়তি আয়।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় সরকারের এক দপ্তরের আধিকারিকদের একটি টিম কার্শিয়াং থেকে সোনাদা পর্যন্ত ডিজেল লোকো চালিত দুই কোচ যুক্ত সম্পূর্ণ ট্রেনটি সফরের জন্য ভাড়া নিয়েছেন।

রেল কর্তৃপক্ষের তরফে জানা গিয়েছে আগামী নভেম্বরে মাসে বিদেশি পর্যটকদের পৃথক দুই থেকে তিনটি টিম বিশেষত হেরিটেজ স্টিম ইঞ্জিন চালিত টয়ট্রেন রিজার্ভ করেছে। কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে ঐতিহাসিক স্টিম ইঞ্জিন সমেত টয়ট্রেনটিকে ভাড়ায় নিয়ে খেলনা ট্রেনে সওয়ার হয়ে প্রাকৃতিক নৈসর্গে পূর্ন পাহাড় সফর স্থির করেছেন একাধিক বিদেশি পর্যটকদের দল।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here