ছটপুজো উপলক্ষে হাওড়াতেও নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

0

Last Updated on October 30, 2022 11:03 PM by Khabar365Din

- Advertisement -

৩৬৫ দিন। ছটপুজো উপলক্ষে হাওড়াতেও প্রতিটি গঙ্গার ঘাটে এবং শহরের সব এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে হাওড়া সিটি পুলিশের তরফ থেকে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ছট পুজোর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকছেন হাওড়া সিটি পুলিশের পদস্থ আধিকারিকরা। এছাড়াও কনস্টেবল, সিভিক ভলেন্টিয়ার, টেম্পোরারি হোমগার্ড থাকছে। এছাড়াও পুলিশের হেভি রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াড এবং রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াড গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় মোতায়েন করা হচ্ছে।

এর পাশাপাশি ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিম, সিভিল ডিফেন্সের টিম থাকছে। এছাড়াও জলের মধ্যে যাতে কোনও দুর্ঘটনা না ঘটে তারজন্য নৌকা প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। তাতেও পুলিশের টহলদারি থাকছে। এর পাশাপাশি পুলিশের নিজস্ব লঞ্চেও টহলদারি থাকছে।

ভীড়ের মধ্যে যাতে চুরি, ছিনতাই বা অন্য কোনও অপরাধ না ঘটে তার নজরদারির জন্য পুলিশ কর্মীদের পাশাপাশি সাদা পোশাকে মহিলা পুলিশ থাকছে। ড্রোনের মাধ্যমেও নজরদারি চালানো হচ্ছে। মাইকিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুরসভা আলোর ব্যবস্থা করেছে।

৩০ অক্টোবর রবিবার এবং ৩১ অক্টোবর সোমবার এই দুই দিন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে। হাওড়া সিটি পুলিশ এলাকার ১৩৭টি ঘাটে ছটপুজো হয়ে থাকে। হাওড়ার ঘাটে প্রায় ২০ হাজার, শিবপুরের ঘাটে প্রায় ৩৯ হাজার মানুষ ছটপুজোয় অংশগ্রহণ করেন। কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এবং দুর্ঘটনা এড়াতে গঙ্গায় দূরে যাতে না কেউ যেতে পারেন তারজন্য ঘাটগুলোতে দড়ি দিয়ে ঘিরে রাখা হচ্ছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এছাড়াও ছটপুজো কমিটিকে আবেদন করা হয়েছে যদি বান আসে তাহলে দ্রুত পাড়ে উঠে আসার জন্য। এবং নির্দেশনামা যাতে অ্যানাউন্স করা যায় তা দেখতে বলা হয়েছে। এর পাশাপাশি হাওড়া পুরনিগমের কনজারভেন্সি দপ্তরের পক্ষ থেকেও ছটপুজোর জন্য আগাম প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

পুরনিগমের প্রশাসকমন্ডলীর ভাইস চেয়ারপার্সন সৈকত চৌধুরী জানান, রবিবার এবং সোমবার সকালে ছট পুজো উপলক্ষ্যে হাওড়ার বিভিন্ন ঘাট পরিদর্শন করা হয়েছে। মূলত ৩৯টি রেজিস্ট্রার্ড ঘাটে ছটপুজো হয়ে থাকে। এছাড়া আরও বেশ কিছু গঙ্গার ঘাটে ছটপুজোয় সাধারণ মানুষ ব্যবহার করে থাকেন।

এই সময় যাতে ঘাটগুলো পরিষ্কার থাকে এবং পর্যাপ্ত আলো থাকে সেগুলো দেখাই পুরনিগমের উদ্দেশ্য। সেই কারনেই ঘাটগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে। কোনওরকম দুর্ঘটনা এড়াতে প্রতিটা ঘাটে বাঁশের ব্যারিকেড করে ঘিরে দেওয়া হচ্ছে। রবিবার এবং সোমবার সকালে ঘাটগুলো পরিষ্কার করা হবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here