পারফরম্যান্স অতি দুর্বল, বিজ্ঞাপনে বেশি মন, টি ২০ অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা বিরাটের

0
107

৩৬৫ দিন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরেই অধিনায়কত্ব ছাড়ছেন বিরাট কোহলি ৷  টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে অব্যাহতি চেয়ে নিলেন বিরাট৷তবে টেস্ট ক্রিকেট এবং একদিনের ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দেবেন কোহলি ৷ নিজের ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বৃহস্পতিবার ট্যুইট করে জানান বিরাট। যদিও এই সংবাদে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এটা তো হওয়ারই ছিল। তাঁর ওপর চাপ যে ছিল না তা নয়, শেষ কবে পারফর্ম করেছেন,বা তাঁর বিরাট ইনিংস ভারতকে বাঁচিয়েছে তা খুঁজতে এখন গুগলের সাহায্য লাগে। বরং ব্যাট হাতে ২২ গজে বোলারদের শাসন করার থেকে বিজ্ঞাপনে অনেক সাবলীল লাগে তাঁকে। একই সঙ্গে সংসার, গুড হাজবেন্ডের দায়িত্ব পালন, সন্তান, পোষ্য, গাড়ি, নতুন বাড়ি, কিংবা ইনস্টাগ্রাম সামলে ক্রিকেট খেলাটা সত্যিই কঠিন। পতৌদি, গাভাস্কর,কপিল কিংবা শচীনরা পারেননি। উইথ হিম বইতে সইফ তাঁর বাবা পতৌদি সম্পর্কে লিখছেন, বাবা অনেকদিন বাড়িতে মানে এখন টেস্ট ক্রিকেট হচ্ছে না।

- Advertisement -

অঞ্জলি তেন্ডুলকর পরিষ্কার বলেছিলেন, শচীনের দুই সন্তান কখন বড় হল তা তাঁর স্বামী জানতেই পারে নি। একই কথা প্রযোজ্য বাকিদের ক্ষেত্রে। এনারা সকলেই কালজয়ী ক্রিকেটার, রেকর্ডের অধিকারী, এবং লেজেন্ড কিন্তু সকলেই ব্যক্তিগত জীবন, পরিবার, স্ত্রীর যত্ন কিংবা সন্তানের দায়িত্বপালনে ডাহা ফেল। বিরাট লকডাউনে স্ত্রী অনুষ্কাকে রান্নায় হেল্প করে ইনস্টাগ্রামে নজর কেড়েছেন। খেলার অফ সিজনে অনুষ্কার সঙ্গে গ্রিস ঘুরেছেন, টেরেস গার্ডেন সামলেছেন, অনুষ্কার বোলিংয়ে প্র্যাকটিস করে সোশ্যাল মিডিয়ায় নাম করেছেন, কিন্তু রান পাননি। এই মুহূর্তে বছরে ২০০ কোটির এন্ডোর্সমেন্ট তিনি এবং অনুষ্কা মিলে জুটি বেঁধে করেন। কিন্তু ৪ বছর ওপেনিং বা মিডল অর্ডারে রোহিত বা রাহুলের সঙ্গে রান পাচ্ছেন না। এই সমালোচনা শুনলে, অনেকেই রে রে করে তেড়ে আসবেন, অনুষ্কাকে দোষ কেন দেওয়া হচ্ছে, তাদের দাম্পত্যকে কেন টানা হচ্ছে? অবশ্যই টানা হবে। টি ২০ থেকে অবসর একটা শুরু মাত্র। পতনেরও বলা যায়। ওর পরিচিতি বিজ্ঞাপন বা ইনস্টাগ্রামের জন্য নয়, ক্রিকেট খেলার জন্য। সেই কাজটায় ফাঁক পড়লে পাবলিক তো চেপে ধরবেই। 

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here