মুখ্যমন্ত্রীর তীব্র আক্রমণ
জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা’র যাত্রা দেবতার রথে বিজেপি নেতারা কেন ?

0
653

৩৬৫ দিন। রায়গঞ্জ ও মালদা। জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রাকে নিয়ে বিজেপি নোংরা রাজনীতি করছে। আমরা জগন্নাথের রথকে প্রণাম জানাই । আমরা এরকম রাজনীতি করি না। এখন এরা রথকে নিয়ে কেউ জগন্নাথ, কেউ বলরাম আবার কেউ শ্রীকৃষ্ণ সাজছে। মনে রাখবেন এই রথে করে সীতা হরণ করেছিল রাবন।রথযাত্রায় জগন্নাথ-বলরাম-সুভদ্রা থাকবেন, বিজেপির নেতারা কেন থাকবেন? তারা কী দেবতার থেকেও বড়? তাহলে বিজেপি নেতাদের কি আমাদের এখন পুজো করতে হবে? আবার যুদ্ধের সময় রথ দেখেছি। শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনের রথের সারথী ছিলেন। তাহলে এরাকি শ্রীকৃষ্ণ সব? কোত্থেকে শ্রীকৃষ্ণ হল? দেবতারা সব চলে গেলো তার জায়গায় এরা এলো? আমি দুঃখিত, আমি লজ্জিত যে জগন্নাথ দেবের রথযাত্রাকে এরা কালিমালিপ্ত করছেন। ধর্মের নামে মনে রাখবেন এরা অধর্ম করছে। দেবতার রথ বিজেপির রথ হতে পারে না– ভাজপার ফাইভ স্টার রথযাত্রার তীব্র সমালোচনা করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার প্রথমে উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ এবং পরে মালদায় দুটি জনসভায় যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী। বিপুল জনপ্লাবনের মধ্যে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সংযোজন, রথ বেড় করেছেন বাবুরা। সেই রথে বিরিয়ানি, মাংস , পোলাও, কাবাব থেকে শুরু করে, বিশ্রাম, গানা থেকে শুরু করে সব রেডি। যেগুলো টেনস্টার হোটেলে গেলে পাওয়া যায়, সব এনে রেখে নেতারা ফূর্তি করছেন। জনগনের টাকায় ফূর্তি করছেন। আর বলছেন তারা নাকি রথযাত্রা করছেন। ভাজপার প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, বাংলায় ওরা নিয়মিত আসছেন। গায়ের জোরে মমতাকে হারাতে চান। মমতাকে হারানো আপনাদের পক্ষে সম্ভব নয়। বাংলায় মমতা একা নয়। মমতার সাথে মানুষ আছে। এরা মুসলিমদের দেয় দে চিমটি, দলিতদের দেয় রাম চিমটি, আর তপশিলীদের দেয় শ্যাম চিমটি। সবাইকে কোনো না কোনো চিমটি দেবে, আর কিছু দেবে না। তাই এদের বিরুদ্ধে জাগতে হবে। মনে রাখবেন এই ভোটটা আমার ভোট। যদি আপনারা আমাকে চান, তবে মনে রাখবেন, আপনার একটাই চিহ্ন জোড়াফুল-তৃণমূল। প্রার্থী কারা হল দেখার দরকার নেই। পাশাপাশি দলবদলকারীদের কড়া সমালোচনা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, যে কটা গেছে আপদ গেছে। আমি খুব খুশি হয়েছি। ঈশ্বর, আল্লা আমাকে বাঁচিয়ে দিয়েছে।রাজনীতিতে তিন ধরনের লোক আছে। একটা লোভী, একটা ভোগী, আরেকটা ত্যাগী। যারা লোভী তাদের বাদ দিন। যারা ভোগী তাদের ঘরে থেকে ভোগ করতে বলুন। আর যারা ত্যাগী তাদের মানুষের কাজ করতে বলুন। তাহলেই মানুষ ভালোবাসবে। আমি তো দেখছি একটা পলিটিকাল দল বিজেপি এতো মিথ্যা কথা বলে! ওরা রাতকে দিন বলে আর দিনকে রাত বলে। আর শুধু মিথ্যে কথা বলে। একটা তিলক কেটে আমি ধর্মকে ভালোবাসি বললে হয় না। ধর্মকে ভালোবাসতে হলে আগে মানুষকে ভালোবাসতে হয়। এটা মাথায় রাখবেন।

- Advertisement -
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here